BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

আগে সংগঠন, তারপর জোট, অধীরের সতর্কতা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 18, 2016 11:04 am|    Updated: September 12, 2020 3:10 pm

An Images

রাহুল চক্রবর্তী: জোট যতই থাকুক, সিপিএমের সঙ্গে বিধানসভায় বেশি গা ঘেঁষাঘেঁষি করে চলতে পরিষদীয় দলকে বারণ করলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরি৷ আবদুল তাঁর পরামর্শ, বহুদিন পর কংগ্রেস বিরোধী দলের জায়গা ফিরে পেয়েছে, ফলে যোগ্য বিরোধী দল হিসাবে নিজেদের প্রমাণ করতে হবে৷ শুক্রবার বিধানসভার অধিবেশন শুরুর প্রথম দিনই কংগ্রেসের পরিষদীয় দলের বৈঠকে স্পষ্ট হয়ে গেল, আগে দলের সংগঠন৷ তারপর জোট৷
বিধানসভা নির্বাচনে বাম-কংগ্রেস জোট বেঁধে লড়েও ১০০ আসনে পৌঁছতে পারেনি৷ ফল প্রকাশের পরই জোটের গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন উঠে যায়৷ সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্রর কালঘাম ছোটে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে বোঝাতে, জোট করে ভুল করেননি৷ তার পরও রাজ্যের বিরোধী দলনেতা আবদুল মান্নান ও বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তীর গায়ে গা লাগিয়ে চলা, একসুরে কথা বলা, একসঙ্গে ক্যামেরার সামনে আসাকে কোনওভাবেই মেনে নিতে পারছিলেন না দু’দলের একাধিক নেতা থেকে বিধায়করা৷ তারপরই বামফ্রন্টের বৈঠকে কংগ্রেসকে বাদ দিয়ে আলাদাভাবে কর্মসূচি নেওয়ার কথা ঘোষণা করেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু৷ তারই প্রতিফলন লক্ষ্য করা গেল প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরির নির্দেশে৷ এদিন বিধানসভার অধিবেশন শুরুর আগে কংগ্রেসের পরিষদীয় দলের বৈঠক বসে৷ সেখানে হাজির ছিলেন অধীর৷ নির্বাচিত ৪৪ জন কংগ্রেস বিধায়কের প্রতি অধীরের বার্তা, “জোট থাকুক৷ কিন্তু বামকরণ থেকে সতর্ক থাকুন৷” দলের বিধায়কদের অধীর বুঝিয়ে দিলেন, বামেদের অনুকরণ করে চলবেন না৷ আগে নিজের দলের দিকে নজর দিন৷ অধীর বলেন, “মানুষের স্বার্থ, মানুষের অধিকার গুরুত্ব পাবে কংগ্রেস বিধায়কদের বক্তব্যে৷” অধীরের নির্দেশের পরই মান্নান-সুজনের চেনা ‘শো’ দেখা যায়নি৷ এতদিনের রীতি ভেঙে আলাদাভাবে সাংবাদিক বৈঠক করেছেন আবদুল মান্নান ও সুজন চক্রবর্তী৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement