BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘মানুষের জন্য একটু বেশিই কাজ করে ফেলেছি, এতটা উচিত হয়নি’, মমতার গলায় আক্ষেপের সুর

Published by: Sulaya Singha |    Posted: May 25, 2019 6:59 pm|    Updated: May 25, 2019 7:00 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘সাধারণ মানুষের জন্য একটু বেশিই কাজ করে ফেলেছি। এত কাজ করা হয়তো উচিত হয়নি। এবার দলের জন্য বেশি সময় দেব।’ লোকসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর প্রথমবার সাংবাদিক বৈঠকে এসে এমন মন্তব্যই করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

লোকসভা নির্বাচনে এরাজ্যেও গেরুয়া ঝড়ের প্রভাব স্পষ্ট। ১৮টি আসন দখলে নিয়েছে বিজেপি। ২২টি আসনে জিতে কোনওক্রমে গড় রক্ষা হয়েছে তৃণমূলের। এমন পরিস্থিতিতে কেন্দ্রের শাসকদলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর কথায়, সাম্প্রদায়িক বিষ ছড়িয়ে ভোট জয়ের চেষ্টা করেছে বিজেপি। আর গোটা বিষয়টিতে সাহায্য করেছে নির্বাচন কমিশন। নিজের রাজ্যেই গত পাঁচ-ছমাস ক্ষমতাহীনভাবে বসিয়ে রাখা হয়েছে মমতাকে। তাই এদিন সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করলেন তিনি। তাঁর মতে, ইস্তেহারের সমস্ত কাজ তিনি করেছেন। তা সত্ত্বেও ভোট বাক্সেই মানুষ বুঝিয়ে দিয়েছেন তৃণমূলকে পছন্দ
নয়। আর সেখান থেকেই আক্ষেপের সুরে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “মানুষ দু’টাকা কিলো চাল পেয়েছে। স্বাস্থ্য সাথী, সবুজ সাথী সবই পেয়েছে। তারপরেও কেউ খুশি নয়। সাধারণ মানুষের জন্য মনে হচ্ছে একটু বেশিই কাজ করে ফেলেছি। এত কাজ করা হয়তো উচিত হয়নি। এবার দলের জন্য বেশি সময় দেব। কারণ ইস্তেহারের সব কাজই সারা হয়ে গিয়েছে। ওরা (বিজেপি) তো কিছুই করেনি। তাই এবার না হয় দলীয় কাজেই বেশি মন দেব।”

tmc

[আরও পড়ুন: মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে কাজ করার ইচ্ছা নেই, সাংবাদিক বৈঠকে জানালেন মমতা]

এরাজ্যে ভোট প্রচারে এসে অমিত শাহ ও নরেন্দ্র মোদির মুখে শোনা গিয়েছিল এনআরসির কথা। অসমের মতো বাংলাতেও নাগরিকপঞ্জি বা এনআরসি চালু হবে বলে জানিয়েছিলেন তাঁরা। শনিবার সাংবাদিক বৈঠকে এপ্রসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিলেন, এমনটা তিনি কোনওভাবেই হতে দেবেন না। জাতপাতের রাজনীতি তিনি বিশ্বাস করেন না।

এদিন তিনি আরও বলেন, “দলের প্রত্যেকের কাছে পদ ছাড়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছি। কিন্তু ওরা সবাই আমায় চায়। আমার চেয়ারের প্রয়োজন নেই। চেয়ারকে আমার প্রয়োজন। তবে একটা শর্তেই আমি কাজ চালিয়ে যাব। যদি সবাই একক শক্তিতে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই করে।” আগামী ৩১ মে দলের শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে তিনি ফের বৈঠকে বসবেন বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

[আরও পড়ুন: গেরুয়া ঝড়ে খাস কলকাতাতেই কুপোকাত তৃণমূলের মন্ত্রী-বিধায়করা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement