২০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ৭ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞর চেম্বার থেকে ৩.৫ কোটি টাকা আটক

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: September 16, 2017 8:54 am|    Updated: September 16, 2017 11:03 am

IT raid yields 3.5 Cr from Doctor’s house in Behala   

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আয়কর হানায় স্বনামধন্য চিকিৎসকের চেম্বার থেকে মিলল প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকা। বেহালার শকুন্তলা পার্কে স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ বাণীকুমার মিত্রের চেম্বারে হানা দেন আয়কর আধিকারিকরা। প্রায় ৩১ ঘণ্টা ধরে তল্লাশিতে চার ট্র্যাঙ্ক ভরতি টাকা উদ্ধার হয়। সূত্রের খবর, ওই বিপুল অর্থের যথাযথ ব্যাখ্যা দিতে পারেননি বাণীকুমার মিত্র।

IT-RAID-UD

[শহরে ফের ভেঙে পড়ল বিপজ্জনক বাড়ি, মৃত এক কিশোরী]

শুক্রবার ভোর রাতে ওই ডাক্তারের চেম্বারে ঢোকেন আয়কর কর্তারা। নোট বাতিলের পর এত দীর্ঘ সময় ধরে অভিযান কলকাতায় এই প্রথম। সূত্রের খবর, আয়কর রিটার্ন ফাইলের সঙ্গে তাঁর সম্পত্তির হিসাব মেলাতে পারেননি ওই চিকিৎসক। এমনকী তাঁর আয়ব্যয়ের হিসাব ঠিকমতো দিতে পারেননি। উদ্ধার হওয়া টাকার মধ্যে বেশ কিছু পুরনো নোটেরও বান্ডিল ছিল। কেন বাতিল ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট ছিল তাঁর কাছে? সূত্রের খবর, এর জবাবে বাণীকুমার মিত্র জানান, বিভিন্ন কারণে ওই টাকা তিনি জমা দেওয়ার সময় পাননি। দীর্ঘ তল্লাশিতে বিপুল অর্থ ছাড়াও বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ নথি উদ্ধার করেছে। তাঁর থেকে মিলেছে বেশ কিছু ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্ট। এই অ্যাকাউন্টগুলি স্ত্রী এবং অন্যান্যদের সঙ্গে রয়েছে বাণীকুমার মিত্রের। ওই অ্যাকাউন্টগুলিতে বাণীকুমারের সঙ্গে আদৌ তাঁরা হোল্ডার হিসাবে ছিলেন কিনা তা খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা। অ্যাকাউন্টগুলিতে কীভাবে টাকা এল তার খোঁজ নেওয়া শুরু হয়েছে। শকুন্তলা পার্কের চেম্বার সিল করে দেওয়া হয়েছে।

[সিবিআই চাইলেও ‘ভয়েস স্যাম্পেল’ দেননি অধিকাংশ তৃণমূল নেতাই]

আয়কর সূত্রে খবর, বাণীকুমার মিত্রের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ছিল। তার সূত্র ধরেই বেহালার শকুন্তলা পার্কে অভিযান চালায় আয়কর দপ্তর। বেহালায় এবং রাসবিহারী অ্যাভিনিউতে চেম্বার রয়েছে ওই ডাক্তারের। সেখানে এবং বাণীকুমার মিত্রের বাড়িতেও হানা দিতে পারেন আয়কর আধিকারিকরা। কৃত্রিম গর্ভধারণের ক্ষেত্রে কলকাতায় যথেষ্ট পরিচিতি আছে বাণীকুমার মিত্রের। টানা দেড় দিন ধরে এই অভিযান দেখে তাঁর কাছে যাওয়া রোগীরা বেশ অবাক। তারা জানিয়েছেন চেম্বারে গিয়ে চিকিৎসা না করিয়ে ফিরতে হচ্ছে। তাদের আগামী সপ্তাহে আসতে বলা হয়েছে। সূত্রের খবর, শুধু বাণীকুমার নন, আয়কর দপ্তরের ব়্যাডারে রয়েছেন কলকাতার একাধিক চিকিসৎক। যাদের সম্পত্তির তালিকা তৈরি করে সবকিছু খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে