BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

২১-এর সমাবেশে মদন স্মরণ কবীর সুমনের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 21, 2016 4:10 pm|    Updated: August 21, 2020 12:56 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ধর্মতলায় ২১ জুলাইয়ের সভাস্থলে তখন পৌঁছে গিয়েছেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তখনও মঞ্চে ওঠেননি, কারণ তখন বক্তব্য পেশ করছেন কবীর সুমন৷ একদা মমতাপন্থী, পরে বিরোধী, ফের প্রত্যাবর্তন ঘটিয়ে সুমন যে শহিদ দিবসের মঞ্চে বক্তব্য পেশ করবেন, তার আগাম আঁচ অবশ্য এদিন অনেকেই পাননি৷

সুমন বক্তব্য পেশ করতে উঠবেন, অথচ বিস্ফোরক কিছু বলবেন না, এমনটা আশা করা যায় না৷ তাই বক্তব্যের শুরুতেই বোমাটা ফেললেন এবং অস্বস্তিতে পড়ল তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্বের একাংশ৷ তৃণমূলনেত্রী যখন দল থেকে বেনোজল ছেঁটে ফেলার প্রক্রিয়া শুরু করেছেন, তখন সুমন হঠাৎ পুরনো ঘা খুঁচিয়ে দিলেন৷ একদা মমতাঘনিষ্ঠ, পরে সারদা-কাণ্ডে জেলবন্দি মদন মিত্রকে দরাজ সার্টিফিকেট দিলেন প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ৷ বললেন, “অনেকদিন পর আমি আর মমতা একসঙ্গে মঞ্চে উঠলাম, এত মানুষ এসেছেন, আমার খুব আনন্দ হচ্ছে৷ কিন্তু এতজনের মধ্যে আমি মদন মিত্রকে খুব মিস করছি৷”

(২১ জুলাই : LIVE)

কবীর সুমনের বক্তব্য, “মদনের মতো মানুষ আমি খুব কম দেখেছি৷ সিপিএম যখন আমাদের ছেলেকে মারছে, তখন মুকুল রায় এসেছিলেন, আর এসেছিলেন মদন মিত্র৷ গাড়িতে করে আমাদের ছেলেদের নিরাপদে বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছিলেন তিনি৷ আমি প্রাণপণে আশা করব, যেন মদন মিত্র মুক্তি পান৷” সুমনের এই বক্তব্যে তখন কপালে ঘাম জমতে শুরু করে দিয়েছে তৃণমূল নেতৃত্বের একাংশের৷ কারণ, মদনের সঙ্গে অনেকদিনই হল দূরত্ব বাড়িয়ে ফেলেছেন তৃণমূলনেত্রী৷ তাঁর স্পষ্ট বক্তব্য, “দু’মুঠো ভাত খেয়েও যারা তৃণমূলের পতাকা হাতে নিয়ে ব্লকে ব্লকে বুথে জিন্দাবাদ বলেন, তারাই প্রকৃত তৃণমূল কর্মী৷ তাঁদের আমি সেলাম জানাই৷ অনেকে মন্ডা-মিঠাইয়ের লোভে পড়ে গিয়েছে৷ একজন সাধারন মানুষ হিসাবে জীবনযাপন করা উচিত, বেশি লোভ করবেন না৷” মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য থেকেই স্পষ্ট, দলের অন্দরে দুর্নীতি তিনি সেকেন্ড ইনিংসে মোটেও বরদাস্ত করবেন না৷ আর তাই সুমনের বক্তব্য শেষ হওয়ার পর মমতার দীর্ঘ বক্তব্যে একবারও উঠল না কামারহাটির প্রাক্তন বিধায়ক মদনের নাম৷ এমনকী, কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সিবিআই লেলিয়ে দেওয়ার অভিযোগ তুললেও একবারও মদনের নাম মুখে আনলেন না৷

শুধু মদন নয়, রাজনৈতিক বন্দিদের মুক্তির দাবিও এদিন মমতার কাছে পেশ করেছে কবীর সুমন৷ যদিও সুমন বা মদন, কারও প্রসঙ্গেও একটিও শব্দ খরচ করেননি তৃণমূল সুপ্রিমো৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement