BREAKING NEWS

১৪ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বুধবার ১ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

শোভনের গড়ে ভরসা রত্না, পুরভোটে প্রচারের দায়িত্ব দিল তৃণমূল

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: March 7, 2020 4:03 pm|    Updated: March 7, 2020 4:03 pm

Kolkata civic polls: Ratna Chatterjee gets key responsibility

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পুরভোটের মুখে বড়সড় দায়িত্ব পেলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়ের স্ত্রী রত্না। শনিবার দুপুরে বেহালায় ‘বাংলার গর্ব মমতা’ কর্মসূচি নিয়ে মাঠে নামার আগে সাংবাদিক বৈঠকে রত্না চট্টোপাধ্যায়কে পাশে বসিয়ে দলের মহাসচিব বললেন, “বেহালা পূর্বের পুরভোটের দায়িত্ব দেওয়া হল রত্না চট্টোপাধ্যায়কে।” রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে, রত্নাদেবীকে এই দায়িত্ব দিয়ে তিনি ঘুরিয়ে বার্তা দিলেন প্রাক্তন মেয়র তথা ওই কেন্দ্রের বিধায়ক শোভন চট্টোপাধ্যায়কে। বড় দায়িত্ব পেয়ে দলকে ধন্যবাদ জানিয়ে রত্নাদেবী বলেছেন, ‘পার্থদার গাইডেন্সে কাজ করব। বেহালা পূর্ব কেন্দ্রকে এগিয়ে নিয়ে যাব।’

একুশের লক্ষ্যে পুরভোটে কোমর বেঁধে নেমে পড়েছে রাজ্যের শাসকদল। ২ মার্চ আনুষ্ঠানিকভাবে সূচনা হওয়া নতুন কর্মসূচি ‘বাংলার গর্ব মমতা’র কাজ শুরু হল আজ থেকে। আর নিজের এলাকায় প্রথমদিন প্রচারের শুরুতেই রীতিমতো চমক দিলেন দলের মহাসচিব তথা বেহালা পূর্বের বিধায়ক পার্থ চট্টোপাধ্যায়, যার জন্য বোধহয় প্রস্তুত ছিলেন না ওয়াকিবহাল মহলের কেউই। তাঁর পাশের নির্বাচনী কেন্দ্রের ভোটপ্রচারের দায়িত্ব তুলে দিলেন প্রাক্তন মেয়রপত্নী রত্না চট্টোপাধ্যায়ের হাতে। কো-অর্ডিনেটর হিসেবে কাজ করবেন রত্নাদেবী। অর্থাৎ তাঁর মূল কাজ, আসন্ন পুরনির্বাচনে যে যে কাউন্সিলররা প্রার্থী হবেন, তাঁদের মধ্যে সমন্বয় বজায় রাখা। এই দায়িত্ব তুলে দিয়ে পার্থ চট্টোপাধ্যায় পরোক্ষে প্রাক্তন মেয়রের উদ্দেশে মন্তব্য করেন, “একজনকে এই কেন্দ্র থেকে জিতিয়ে এনেছিলাম। কিন্তু তিনি নিষ্ক্রিয় হয়ে গিয়েছেন। কেউ নিষ্ক্রিয় হলে তো আর তাঁর কেন্দ্র নিষ্ক্রিয় থাকতে পারে না।”

[আরও পড়ুন: N95 মাস্কের দেদার কালোবাজারি, কলেজ স্ট্রিট-বড়বাজারে হানা ইবি আধিকারিকদের]

বরাবর বেহালা পূর্ব কেন্দ্র থেকে নির্বাচনে লড়ে, জিতে বিধায়কের পদটি ধরে রেখেছেন প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়। বর্তমানে রাজনৈতিক, অ-রাজনৈতিক একাধিক কারণে যাঁর সঙ্গে দলের একটা দূরত্ব তৈরি হয়েছে। এ নিয়ে বঙ্গ রাজনীতিতে কম চর্চা হয়নি। দলের তরফে ফিরহাদ হাকিম, পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেও ভুল বোঝাবুঝি মিটিয়ে শোভনের সঙ্গে দূরত্ব কমাতে তৎপর হয়েছিলেন। কিন্তু সুফল মেলেনি কিছু। আনুষ্ঠানিকভাবে মেয়র ও দলের সদস্যপদ ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেছেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। যদিও সেই দলেও তাঁর অবস্থান এই মুহূর্তেও খুব একটা স্পষ্ট নয়। পুরভোটের প্রাক্কালে শোভন চট্টোপাধ্যায়কে দলে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা হচ্ছে বলে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল। শহরজুড়ে তাঁকে ফিরে আসার জন্য পোস্টারও পড়ে। ফলে জল্পনা আরও বাড়ে। কিন্তু বাস্তবে তেমনটা হয়নি। শোভনকে ছাড়াই পুর-লড়াইয়ে এগিয়েছে তৃণমূল। এই পরিস্থিতিতে রত্না চট্টোপাধ্যায়কে প্রচার আহ্বায়কের দায়িত্ব তুলে দিয়ে দল যে বেশ কড়া বার্তা দিতে চাইল, তা স্পষ্ট।

[আরও পড়ুন: পুরভোটের আগে দলবদল, সিপিএম ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিলেন কাউন্সিলর]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে