৫ মাঘ  ১৪২৫  রবিবার ২০ জানুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফিরে দেখা ২০১৮ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

অর্ণব আইচ: এখনও পাঁচদিন বাকি। তার মধ্যে হাতে হাতে আদায় ২৯ কোটি টাকা। ১৪ জানুয়ারি শেষ হতে চলেছে ট্রাফিক জরিমানার উপর ৬৫ শতাংশ ছাড়ের স্কিম। গত দেড় মাসে এই স্কিম বাবদ আদায় হয়েছে ২৯ কোটি টাকা। ট্রাফিক পুলিশ কর্তাদের আশা, বাকি পাঁচদিনে আরও বেশ কয়েক কোটি টাকা আদায় হবে। ট্রাফিক সংক্রান্ত জরিমানা আদায়ে চলছে জোরদার প্রচার। এমনকী, ‘ওয়ান টাইম ট্রাফিক ফাইন সেটলমেন্ট স্কিম’-এ যাতে শহরবাসীরা জরিমানা মেটান, তার জন্য মিনিট কয়েকের ‘অ্যানিমেশন’ ছবিও তৈরি করেছে পুলিশ। 

[ ঘুমিয়ে পড়েছিলেন চালক! বাইপাসে দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল যাত্রীর]

১৪ জানুয়ারির মধ্যে পুরনো ট্রাফিক জরিমানা মেটালে মিলবে ৬৫ শতাংশ ছাড়। ১ ডিসেম্বর থেকে  ‘ওয়ান টাইম ট্রাফিক ফাইন সেটলমেন্ট স্কিম’ চালু করেছে ট্রাফিক পুলিশ। পরিসংখ্যান অনুযায়ী, প্রায় ৭৬ লাখ ট্রাফিক মামলা এই স্কিমেই মিটেছে। এতগুলি মামলা বাবদ মোট ৮২ কোটি টাকা বাকি ছিল। স্কিম ঘোষণা হওয়ার আগে পর্যন্ত ওই টাকা দেননি গাড়ির মালিকরা। কিন্তু স্কিম ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই এতগুলি পুরনো ট্রাফিক মামলার নিষ্পত্তি হয়।  আদায় হয়েছে ২৯ কোটি টাকা। ট্রাফিক পুলিশের এক আধিকারিক জানান, এই স্কিমের ফলে বহু পুরনো মামলাও মিটেছে। আসলে একজন গাড়ির মালিকের উপর অনেকগুলি মামলা চেপে যাওয়ার কারণে একসঙ্গে অত টাকা দিতে চাইতেন না তাঁরা। এমনকী, সরাসরি যেতে চাইতেন না লোক আদালতেও। নয়া এই স্কিমে জরিমানা মেটাতে স্বতঃপ্রণোদিতভাবে এগিয়ে এসেছেন গাড়ির মালিকরা। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা গিয়েছে, ভাড়ার গাড়িতে মামলা বাকি থাকলে তা স্কিমের মাধ্যমে মালিককে মেটাতে বলেছেন চালকরাই। যেহেতু অনলাইনেই এই স্কিমে জরিমানার টাকা দেওয়া সম্ভব, তাই বাড়িতে বসেই গাড়ির মালিকদের একটি বড় অংশ টাকা মিটিয়েছেন। উত্তর কলকাতার জোড়াবাগান, দক্ষিণ কলকাতার কসবা, মধ্য কলকাতার হেড কোয়ার্টার ট্রাফিক গার্ডের মতো বেশ কিছু ট্রাফিক গার্ডেও জমা পড়েছে জরিমানার টাকা।

শুধু যে ১৪ জানুয়ারি মধ্যেই  ‘ওয়ান টাইম ট্রাফিক ফাইন সেটলমেন্ট স্কিম’-এ জরিমানা মেটানো যাবে, তা কিন্তু নয়। জরিমানা মেটানোর জন্য ১৫ জানুয়ারি থেকে আরও ৩০ দিন সময় পাওয়া যাবে। তবে সেক্ষেত্রে ৬৫ শতাংশ নয়,  ৫০ শতাংশ ছাড় দেওয়া হবে। 

[ব্যবহারের অযোগ্য হাওড়া স্টেশনের শৌচাগার, বিপাকে যাত্রীরা]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং