BREAKING NEWS

২১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ৪ জুন ২০২০ 

Advertisement

শহরে নিষিদ্ধ মাদক ‘ইয়াবা’র কারখানা! প্রচুর ট্যাবলেট-সহ ধৃত ৬

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: September 8, 2018 9:46 am|    Updated: September 8, 2018 9:52 am

An Images

অর্ণব আইচ: শহরের বুকে ফাঁস বড়সড় মাদক পাচারচক্রের পর্দাফাঁস। গ্রেপ্তার ছয় পাচারকারী। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে কয়েক লক্ষ টাকা মূল্যের নিষিদ্ধ ‘ইয়াবা’ মাদক। গোয়েন্দাদের সন্দেহ শহরেই কথাও তৈরি হচ্ছে ওই নিষিদ্ধ মাদক।  

[ফের উত্তপ্ত উপত্যকা, সেনার গুলিতে নিকেশ জঙ্গি]    

জানা গিয়েছে, গোপন খবরের ভিত্তিতে ময়দান থানার অন্তর্গত ইডেন গার্ডেনস এলাকা থেকে হাতেনাতে গ্রেপ্তার করা হয় পাচারকারীদের। ধৃতদের নাম- আবদুল রশিদ (২৫), আবদুল শাহিদ (৫০), আবদুল জাহিদ (৩২), রাজু আহমেদ (২৬), নারায়ণ মণ্ডল (৩৫), সাবির শেখ (২৭)। এদের মধ্যে রাজু আহমেদ বাংলাদেশি নাগরিক। নারায়ণ মণ্ডল মালদার বাসিন্দা। বাকিরা সবাই একবালপুর ও মোমিনপুরের বাসিন্দা। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার প্রায় ২ হাজার ইয়াবা ট্যাবলেট। এই অভিযানকে বড়সড় সাফল্য বলেই মনে করছে কলকাতা পুলিশের এসটিএফ। সূত্রের খবর, মালদার পাচারকারী নারায়ণের সঙ্গে যোগাযোগ করে ধৃতরা। সে বাংলাদেশি চক্রের সদস্য রাজু আহমেদকে খবর দেয়। তারপর কথা মতো দুজনে কলকাতা আসে ইয়াবা কিনতে। এই খবর পৌঁছে যায় এসটিএফ-এর কাছে। তারপরই অভিযান চালিয়ে হাতেনাতে ধরা হয় পাচারকারীদের। গোয়েন্দারা মনে করছেন শহরেই রয়েছে মাদক তৈরির কারখানা। ধৃতদের জেরা করে তারই হদিস পাওয়ার চেষ্টা করছেন তসন্তকারীরা।

উল্লেখ্য, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় সেনাদের চাঙ্গা রাখার জন্য হিটলারের তৈরি করা উত্তেজক ট্যাবলেট রোহিঙ্গাদের হাত ধরে ঢুকছিল পশ্চিমবঙ্গে। আগে অন্য নামে এই ট্যাবলেট বিক্রি হলেও এখন মায়ানমারে দেদার তৈরি হচ্ছে ‘ইয়াবা’ পরিচয়ে। বার্মিজ সেনার তাড়া খেয়ে দেশ ছেড়ে পালাতে থাকা রোহিঙ্গারা ব্যাগ ভর্তি করে এই উত্তেজক মাদক ট্যাবলেট নিয়ে ঢুকে পড়ছিল বাংলাদেশ এবং ভারতে। যারা বাংলাদেশ সীমান্ত দিয়ে ঢুকছে তারা কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের শরণার্থী শিবিরে আশ্রয় নিচ্ছে। কিন্তু যারা মণিপুরের মতো সীমান্ত দিয়ে গোপনে ঢুকছে তারা ভারতের বিভিন্ন প্রদেশে জনতার মধ্যে মিশে যাচ্ছে।  যৌন উত্তেজনা বৃদ্ধির পাশাপাশি শরীর চনমনে রাখতে এই ইয়াবা ট্যাবলেট কলকাতায় উচ্চবিত্তদের বখাটে সন্তানসন্ততিদের মধ্যে দ্রুত জনপ্রিয় হচ্ছে। বস্তুত এই কারণে কলকাতায় ইয়াবা চক্রের সন্ধানে বিস্তারিত তল্লাশি শুরু করেছে। উল্লেখ্য, মিষ্টি গন্ধ ও নজরকাড়া উজ্জ্বল রঙের ইয়াবা ট্যাবলেট বিভিন্ন ফ্লেভারে পাওয়া যায়।         

            [পরকীয়ায় লিপ্ত স্ত্রী, ফেসবুকে ভিডিও পোস্ট করে আত্মঘাতী যুবক]                     

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement