৩ শ্রাবণ  ১৪২৬  শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ

৩ শ্রাবণ  ১৪২৬  শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অমিত শাহের প্রচার মিছিল চলাকালীন বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙচুরের ঘটনায় তোলপাড় তিলোত্তমায়৷ কে বা কারা এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত তা নিয়ে চলছে রাজনৈতিক তরজা৷ এই ঘটনার পর থেকে রাজ্যে অশান্তির পরিবেশ তৈরি হয়েছে বলে বুধবারই দাবি করেছিল নির্বাচন কমিশন৷ নজিরবিহীনভাবে কমিয়ে দেওয়া হয়েছে রাজনৈতিক দলগুলির প্রচারের সময়সীমাও৷ তারপর চব্বিশ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই আবারও এই ঘটনায় কঠোর পদক্ষেপ কমিশনের৷ এবার সরিয়ে দেওয়া হল আর্মহাস্ট স্ট্রিট থানার ওসি এবং ডায়মন্ড হারবারের এসডিপিও-কে৷ এছাড়াও কে বা কারা মূর্তিটি ভাঙল, তা খতিয়ে দেখার জন্য গঠন করা হল সিট৷ ডিসি নর্থের তত্ত্বাবধানে ছ’জন সদস্য ওই ঘটনার তদন্ত করবেন৷ 

[ আরও পড়ুন: শেষ দফার ভোটের আগে রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিব অত্রি ভট্টাচার্যকে সরাল কমিশন]

সপ্তম দফার নির্বাচনী প্রচারে মঙ্গলবার রাজ্যে আসেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ৷ বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব শহরে পা রাখার আগে থেকেই শুরু হয় উত্তেজনা৷ মিছিলের আগেই ব্যানার, ফেস্টুন সরিয়ে দেওয়াকে কেন্দ্র করেই অশান্তির সূত্রপাত৷ ভাঙচুর করা হয় নির্বাচন কমিশনের গাড়িও৷ তবে সেই অশান্তির পর আবারও শুরু হয় মিছিল৷ এদিন সন্ধেয় অশান্তির জেরে একদল লোকজন ঢুকে পড়ে বিদ্যাসাগর কলেজে৷ ওই কলেজের ভিতরে থাকা বিদ্যাসাগরের আবক্ষ মূর্তিকে টেনে বের করে আনা হয়৷ এরপর ভেঙে ফেলা হয় ওই মূর্তি৷ কে বা কারা ওই ঘটনার সঙ্গে জড়িত, তা নিয়েই তৈরি হয়েছে ধোঁয়াশা৷ বিজেপির দাবি, এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত তৃণমূলের গুন্ডাবাহিনী৷ যদিও সেই অভিযোগ বারেবারেই নস্যাৎ করে দিয়েছেন খোদ তৃণমূল নেত্রী৷ তাঁর দাবি, এই ঘটনার সঙ্গে পুরোপুরি জড়িত গেরুয়া শিবির৷

[ আরও পড়ুন: ‘এটা বিজেপির প্ল্যান্টেড গেম’, কমিশনের সমালোচনায় সরব ক্ষুব্ধ মমতা]

এদিকে, এই ঘটনার পর থেকে রাজ্যে অশান্তির আবহ তৈরি হয়েছে বলেই দাবি নির্বাচন কমিশনের৷ তাই বুধবার সন্ধেয় রীতিমতো সাংবাদিক বৈঠক করে ভোটের প্রচারের সময়সীমা কমিয়ে দেওয়া হয়৷ বৃহস্পতিবার রাত ১০টার পর থেকে আর কোনও রাজনৈতিক দল প্রচার করতে পারবে না বলেই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷ এরপর বৃহস্পতিবার এই ঘটনার জেরে আর্মহাস্ট স্ট্রিট থানার ওসি এবং ডায়মন্ড হারবারের এসডিপিও-কে সরিয়ে দেওয়া হল৷ এর আগেও একাধিক পুলিশ আধিকারিককে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ এমনকী সদ্যই রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিব অত্রি ভট্টাচার্যকেও দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিয়েছে নির্বাচন কমিশন৷ যদিও প্রতিটি ঘটনার নেপথ্যে রাজনৈতিক অভিসন্ধিই দেখছে রাজ্য প্রশাসন৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং