BREAKING NEWS

৫ মাঘ  ১৪২৮  বুধবার ১৯ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

ত্রিপুরা কাণ্ডের জের, টালিগঞ্জে ভাঙা হল শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মূর্তি

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: March 7, 2018 9:53 am|    Updated: September 13, 2019 8:00 pm

Left-Liberals ‘vandalise’ Shyama Prasad Mookerjee’s staute in Kolkata

অর্ণব আইচ: মূর্তি ভাঙা মানব না। পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু ত্রিপুরায় লেনিন-মূর্তি ভাঙার প্রভাব পড়ল এ রাজ্যেও। বুধবার সাতসকালে ভাঙা হল টালিগঞ্জের শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মূর্তির একাংশ। মাখানো হল কালি। ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সাতজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

f1fcb019-5482-40eb-a9c2-7b96794a4e79 (1)

জানা গিয়েছে, এদিন সকালে ওই ছয় তরুণ ও এক তরুণীকে শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মূর্তিতে কালি মাখিয়ে তা ভাঙতে দেখেন পথচলতি মানুষ। খবর পেয়েই পরিস্থিতি সামাল দিতে ছুটে আসেন স্থানীয় তৃণমূলকর্মীরা। আসে পুলিশও। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা হয়। কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শীর দাবি, নিজেদের যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালের পড়ুয়া বলে দাবি করেন ছয় তরুণ-তরুণী। অন্য একটি সূত্রের দাবি, আটকরা নকশালপন্থী ব়্যাডিক্যাল সংগঠনের সদস্য। সকলকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।

[‘আমরাও সিপিএমের বিরুদ্ধে লড়াই করেছি, কিন্তু মূর্তি ভাঙিনি’]

উল্লেখ্য, সোমবার রাজধানী আগরতলা থেকে ৯০ কিলোমিটার দূরে বেলোনিয়ায় গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় লেনিনের মূর্তি। তারপরই রাজ্য জুড়ে শুরু হয় প্রবল হিংসা। অভিযোগ, পালা বদলের পরই আগরতলার সিটু অফিস দখল করে নিয়েছে বিজেপি সমর্থকরা। রাজ্য জুড়ে সিপিএম কর্মীদের উপর হামলা চালাচ্ছে গেরুয়া দলবল। ইতিমধ্যে পরিস্থিতি সামাল দিতে আসরে নেমেছে বিশাল পুলিশ বাহিনী। সংবেদনশীল এলাকাগুলিতে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে বলে খবর।

মঙ্গলবার এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বাঁকুড়ার পাত্রসায়রের জনসভায় তিনি জানান, ‘সিপিএমের সঙ্গে আমার মতাদর্শগত মিল নেই। কিন্তু ক্ষমতায় এসে কেউ মনীষীদের মূর্তি ভাঙবে, তা কখনওই সমর্থন করি না।’ তাঁর প্রশ্ন, একটা দল যখন জিতেছে, তখন সে উন্নয়নে মনোযোগী হবে। মূর্তি ভাঙবে কেন? তিনি বলেন, “আমরাও সিপিএমের বিরুদ্ধে লড়াই করেই ক্ষমতায় এসেছি। আমরা কিন্তু পিঁপড়ের ডিমের মতো অত্যাচার করিনি। মার্কস, লেনিন আমার নেতা নয়। কিন্তু এক একটা দেশে তাঁদের গুরুত্ব আছে। যে যে পার্টিরই সমর্থক হোক না কেন, হামলা বাঞ্ছনীয় নয়। আমরা বলেছিলাম, বদলা নয়, বদল চাই।” এদিকে চারদিকে এই ঘটনার নিন্দায় অনেকে সরব হলেও উলটো সুর শোনা যায় রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের মুখে। ত্রিপুরা জয়ের উল্লাস নিরামিষ হবে কেন? পালটা প্রশ্ন তোলেন তিনি।

ছবি- রূপায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়

[ত্রিপুরায় খান খান লেনিনের মূর্তি, টুইট করে বিতর্কে রাজ্যপাল তথাগত রায়]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে