৫ ভাদ্র  ১৪২৬  শুক্রবার ২৩ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জল্পনা উসকে রামকথার আয়োজন করতে চলেছেন মদন মিত্র৷ আগামী ২৪ জুলাই, ভবানীপুরে নিজের বাড়িতেই ‘রামভক্ত’দের নিয়ে ‘রামনাম’ করবেন রাজ্যের প্রাক্তন পরিবহণ ও ক্রীড়া মন্ত্রী৷

[আরও পড়ুন: পার্ক স্ট্রিটে স্কুলের সামনে গাঁজা বিক্রি, হাতেনাতে ধৃত যুবক]

জানা গিয়েছে, আসন্ন অনুষ্ঠানের জন্য ইতিমধ্যেই অথিতিদের কাছে আমন্ত্রণ পৌঁছে গিয়েছে৷ বেশ ঘটা করেই ‘রঘুবীর’-এর উদ্দেশ্যে ‘দাদা’র সঙ্গে ভক্তি নিবেদন করবেন ভক্তকুল৷ কথা শেষে প্রসাদেরও ব্যবস্থা বেশ ভাল৷ এলাকায় বেশ জনপ্রিয় মদন মিত্র৷ রাজনৈতিক মঞ্চে দাপট খানিকটা কমলেও, জনপ্রিয়তায় তেমন একটা ভাটা পড়েনি মদন ‘লাইভ’ মিত্রর৷ তাই তাঁর আয়োজিত অনুষ্ঠানে যথারীতি জমায়েত ভালই হবে এ জানা কথা৷ তবে হঠাৎ করে রামকথা কেন? এই প্রশ্নই এখন ঘুরপাক খাচ্ছে রাজনৈতিক মহলে৷ বিগত ভাটপাড়া উপনির্বাচনে তৃণমূলের হয়ে লড়াই করেন মদন৷ পবন সিংয়ের কাছে হারলেও, দল ও ‘দিদি’ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতি আস্থা প্রকাশ করেন তিনি৷ লোকসভা পরবর্তী পরিস্থিতিতে দলবদলের হিড়িকে মদনকে নিয়ে তেমন জল্পনা শোনা যায়নি৷ তবে গত জুন মাসে, ফেসবুক লাইভে তাঁর তোপের মুখে পড়েন তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব। ২০১৬ সালের নির্বাচনে পরাজয়ের জন্য তিনি দায়ী করেন খোদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে, আবার কাটমানি বিতর্ক নিয়েও ছুঁড়ে দিয়েছিলেন কটাক্ষ। এমনকি ‘সামনে সব রাস্তাই এখন খোলা’ বলেও মন্তব্য করে বসেন তিনি৷ তারপরই দলের অন্দরে শুরু হয় কানাঘুষো৷ এমন পরিস্থিতিতে মদনের ‘রামকথা’র আয়োজন স্বাভাবিকভাবেই উসকে দিয়েছে প্রশ্ন৷

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশের মতে, নিকট ভবিষ্যতে নিজের ও খোদ তৃণমল কংগ্রেসের রাজনৈতিক অস্তিত্ব নিয়ে সন্ধিহান মদন মিত্র৷ ভাটপাড়ায় হার ‘মরার উপর খাঁড়ার ঘা’র কাজ করেছে৷ ফলে দুঁদে রাজনীতিবিদ হিসেবে গেরুয়া শিবিরের দিকে ঝুঁকে পড়া তাঁর পক্ষে অসম্ভব কিছুই নয়৷ এলাকায় জনপ্রিয় নেতাকে দলে শামিল করতে তেমন কুন্ঠাবোধ করবে না বিজেপিও৷ অপরদিকে, অনেকেই মনে করছেন বিজেপির ‘হিন্দুত্ববাদ’ ঠেকাতে ‘রামকথা’র দাওয়াই দিয়েছেন মদন৷ গত লোকসভা নির্বাচনে ভবানীপুরে এগিয়ে ছিল বিজেপি৷ ফলে এলাকায় ফের তৃণমূলের প্রভাব বিস্তারে রামনামই ভরসা মদনের৷

[আরও পড়ুন: মেমারির যুবকের অঙ্গে নতুন জীবন ৫ জনের, কাজে লাগছে ত্বকও]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং