BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘উঃ ২৪ পরগনার করোনা পরিস্থিতি আয়ত্তে আসছে না কেন?’, ভারচুয়াল বৈঠকে প্রশ্ন মুখ্যমন্ত্রীর

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: August 24, 2020 3:45 pm|    Updated: August 24, 2020 4:04 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারচুয়াল প্রশাসনিক বৈঠক থেকে উত্তর ২৪ পরগনার করোনা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। প্রশ্নের সুরে বললেন, “উত্তর ২৪ পরগনার করোনা সংক্রমণ আটকানো যাচ্ছে না। কিন্তু কেন? স্থানীয় প্রশাসন আদৌ যত্ন নিচ্ছে তো?” তবে স্বস্তি প্রকাশ করলেন সুস্থতার হার নিয়ে।

রাজ্যজুড়ে করোনার (Coronavirus) দাপট বেড়েই চলেছে। শেষ কয়েকদিনে প্রতিদিনই বাংলার তিন হাজারেরও বেশি সংখ্যক মানুষ সংক্রমিত হয়েছেন। যার মধ্যেই একটা বড় অংশ উত্তর ২৪ পরগনার। সেই পরিসংখ্যানের নিরিখেই এদিন উত্তর ২৪ পরগনার পরিস্থিতি নিয়ে দুশ্চিন্তা প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী। ওই জেলা ডেঙ্গুর আঁতুরঘর, এমন মন্তব্যও করেন তিনি। এরপরই নির্দেশের সুরে বলেন কোথায় সমস্যা হচ্ছে, অবিলম্বে তা খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নিতে হবে। পরিস্থিতি যত দ্রুত সম্ভব আয়ত্তে আনতে হবে। করোনা প্রসঙ্গে জেলাশাসক বলেন, ২৬ টি পুরসভা এলাকায় নিয়ম মেনে পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে। উপসর্গযুক্ত ও আক্রান্তদের প্রয়োজনীয় পরিষেবা দেওয়া হচ্ছে। ভিড় যাতে না হয়, সেদিকেও নজর রাখা হচ্ছে বলে জানান তিনি। ডেঙ্গু প্রসঙ্গে জেলাশাসক জানান, “চলতি বছরে ডেঙ্গুর প্রকোপ অনেকটাই কম। কারণ, গত বছরের কথা মাথায় রেখে আগেভাগেই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।” এদিন অন্যান্য জেলার করোনা সংক্রমণ ও সুস্থতার হার নিয়েও পর্যালোচনা করেন মুখমন্ত্রী। হাওড়া প্রসঙ্গে বলন, “হাওড়া প্রচুর চেষ্টা করছে। তা সত্ত্বেও আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চলেছে। সুস্থতার হারও ভাল।” হুগলির বর্তমান পরিস্থিতি অন্যান্য জেলার থেকে অনেকটাই ভাল বলে মন্তব্য করেন তিনি। 

[আরও পড়ুন: ‘পরীক্ষা নেওয়ার পরিস্থিতি নেই’, সেপ্টেম্বরে NEET ও JEE পিছিয়ে দেওয়ার আবেদন মমতার]

প্রসঙ্গত, প্রথম থেকেই করোনা উত্তর ২৪ পরগনার উপর দাপট দেখিয়ে চলেছে। ফলে সেখানকার বাসিন্দাদের উদ্বেগও চরমে। প্রতিদিনই ওই জেলার পাঁচশোরও বেশি মানুষ সংক্রমিত হচ্ছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা ৬৯৬। ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ইতিমধ্যেই ২৯ হাজারের গণ্ডি পেরিয়েছে। একদিনে সেখানে মৃত্যু হয়েছে ১৮ জনের। ফলে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬৪৭। একইভাবে সুস্থও হয়েছেন বহু মানুষ। এখনও পর্যন্ত করোনাকে পরাস্ত করে হাসিমুখে ঘরে ফিরেছেন ওই জেলার ৫,৭৯৬ জন।

[আরও পড়ুন: এসি চালানো নিয়ে বচসা, খাস কলকাতায় চলন্ত ক্যাবে ফের ‘শ্লীলতাহানি’র শিকার মহিলা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement