BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ব্যবসায়িক শত্রুতার জের? সল্টলেকের গেস্ট হাউসে সঙ্গীর হাতেই গুলিবিদ্ধ জলন্ধরের বাসিন্দা

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: August 17, 2020 1:22 pm|    Updated: August 17, 2020 2:16 pm

An Images

কলহার মুখোপাধ্যায়, বিধাননগর: ব্যবসায়িক সঙ্গীর সঙ্গে কথা কাটাকাটি, বচসা। যা মোড় নিল গুলিচালনার মতো চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতিতে। সল্টলেকের (Salt Lake) এক গেস্ট হাউসে চলল গুলি। জখম এক ব্যক্তি। ঘটনাস্থল থেকেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে অভিযুক্তকে। বিস্তারিত তদন্তের জন্য বিধাননগর পূর্ব থানার পুলিশ তাকে ৮ দিনের হেফাজতে নিয়েছে। 

পুলিশ সূত্রে খবর, গত ১২ তারিখ সল্টলেক সেক্টর-২’র BJ ব্লকের একটি গেস্ট হাউসে এসে উঠেছিলেন জলন্ধরের বাসিন্দা মনপ্রীত দীপা সিং এবং তাঁর ব্যবসায়িক সঙ্গী (Business Partner) সানি সিং। ছিলেন তাঁদের পরিবারের ৮ জন সদস্য।  গেস্ট হাউসটির একই ঘরে থাকতেন সানি এবং মনপ্রীত। ১৪ তারিখ জলন্ধরে ফিরে যান ৩ জন। বাকিরা এখানেই ছিলেন। রবিবার রাতে খাওয়াদাওয়ার পর সানি এবং মনপ্রীতের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয় বলে জানাচ্ছেন গেস্ট হাউসের কর্মীরা। নিজেদের মধ্যে সমস্যা ভেবে তাঁরা স্বাভাবিকভাবেই আমল দেননি। এরপর রাত ১০টা নাগাদ আচমকাই গুলির শব্দ শোনা যায়। কর্মীরা ছুটে গিয়ে দেখেন, রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছেন মনপ্রীত। তাঁর পেটে গুলি লেগেছে। অদূরেই অস্ত্র হাতে দাঁড়িয়ে সানি সিং।

[আরও পড়ুন: স্বামী-বাপের বাড়ির কাছে ‘অচ্ছুৎ’, করোনাজয়ী মহিলার ঠাঁই শেষপর্যন্ত হাসপাতালেই]

এই ঘটনায় গেস্ট হাউসের কর্মী এবং অন্যান্যরা প্রবল আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। সঙ্গে সঙ্গে খবর পাঠানো হয় বিধাননগর পূর্ব থানায়। রাতেই ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ। গেস্ট হাউস থেকে গ্রেপ্তার করা হয় সানি সিংকে। আহত মনপ্রীতকে সল্টলেকের এক বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। তাঁর শরীর থেকে গুলি বের করতে অস্ত্রোপচার হয় বলে হাসপাতাল সূত্রে খবর। 

পুলিশ সূত্রে জানা যাচ্ছে, উভয়ের মধ্যে মতানৈক্যের একটা খবর পাওয়া যাচ্ছে। তার জেরেই গুলি চলেছে কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে তাঁদের ধন্দে ফেলছে আক্রান্ত মনপ্রীতের বয়ান। তিনি হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে জানিয়েছেন, ভুলবশত গুলিচালনার ঘটনা ঘটেছে। একই দাবি মনপ্রীতের পরিবারেরও। তা সত্ত্বেও আসল ঘটনা জানার জন্য সানিকে জেরা করছেন তদন্তকারীরা। তার জন্য তাকে ৮ দিনের হেফাজতে নিয়েছে বিধাননগর পূর্ব থানার পুলিশ।

[আরও পড়ুন: ‘সবাইকে সঙ্গে নিয়ে চলুন’, দিল্লির বৈঠকে দিলীপকে সংযত হওয়ার বার্তা হাইকমান্ডের]

এদিকে, সল্টলেকের মতো অভিজাত এলাকার গেস্ট হাউসে এমন গুলিচালনার ঘটনায় চারপাশে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। কীভাবেই বা আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে গেস্ট হাউসে ঢুকলেন ভিনরাজ্য থেকে আসা কোনও ব্যক্তি, সেই প্রশ্নও উঠছে। নিরাপত্তার স্বার্থে গেস্ট হাউসের পুলিশি প্রহরা বাড়ানো হয়েছে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement