১ আশ্বিন  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: একের পর এক বাড়ি ভেঙে পড়ার ঘটনায় আতঙ্ক বউবাজারজুড়ে। সেই রেশ এখনও কাটেনি। আর তারই মধ্যে মাটির নিচে প্রবল বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল কলকাতার ডালহৌসি চত্বর। স্টিফেন হাউসের সামনে বিস্ফোরণের ঘটনায় ছড়াল তীব্র চাঞ্চল্য। ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছেছে দমকলের ইঞ্জিন, বম্ব স্কোয়াড এবং পুলিশ।

[আরও পড়ুন: সুস্থতার পথে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য, হাসপাতালে খেলেন আইসক্রিমও]

রবিবার সন্ধেয় ডালহৌসি এলাকায় মাটির নিচে তীব্র বিস্ফোরণে রাস্তার অনেকখানি ফাটল ধরে যায়। যে ফুটপাত দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ যাতায়াত করেন, সেই পথের প্রায় ২০ ফুট জুড়ে ধস নেমে যায়। সিইএসসির পাইপ লাইনেই বিস্ফোরণ হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। বিস্ফোরণের স্থলে সিইএসই-র তার পোড়ার গন্ধ পাওয়া যায়। তা থেকেই প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে যে, তার থেকেই বিস্ফোরণ ঘটেছে। সেখানে কোনও বিস্ফোরক রয়েছে কি না, তা খতিয়ে দেখতে এসে পৌঁছায় বম্ব স্কোয়াড। তবে পরীক্ষা নিরীক্ষার পর খবর মেলে, সেখান থেকে কোনও বিস্ফোরক পাওয়া যায়নি। স্নিফার ডগ এনেও চলে তল্লাশি। ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছান কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা প্রধান মুরলীধর শর্মাও। বিস্ফোরণের পর গোটা এলাকা ধোঁয়া হয়ে যায়। দমকলের ইঞ্জিন ধোঁয়া নিয়ন্ত্রণে আনে। বিস্ফোরণের পিছনে অন্য কোনও কারণ রয়েছে কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে এর সঙ্গে মেট্রো চ্যানেল তৈরির কোনও সম্পর্ক নেই বলেই জানা গিয়েছে। 

রবিবার ছুটির দিন হওয়ায় এলাকা অনেকটাই ফাঁকা ছিল। নাহলে কর্মব্যস্ত দিনে এই চত্বরে থাকে উপচে পড়া ভিড়। কলকাতা এবং শহরের বাইরে থেকে বহু মানুষ কাজের জন্য আসেন এই এলাকায়। তাছাড়া এখানে অনেকগুলি ব্যাংক এবং এটিএম-ও রয়েছে। এদিন সেই সময় এটিএম-এ যাঁরা টাকা তুলতে এসেছিলেন, তাঁরা বিস্ফোরণের শব্দে রীতিমতো কেঁপে ওঠেন। তবে এলাকা ফাঁকা থাকায় হতাহতের কোনও ঘটনা ঘটেনি।

[আরও পড়ুন: কেএমডিএ-র কাজে দেরি, সোমবার নির্দিষ্ট সময়ে খুলছে না চিংড়িহাটা উড়ালপুল]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং