২১ ফাল্গুন  ১৪২৭  সোমবার ৮ মার্চ ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে খাস কলকাতায় বন্ধুর যৌন লালসার শিকার মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী

Published by: Sulaya Singha |    Posted: November 21, 2020 9:46 pm|    Updated: November 21, 2020 9:46 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

কৃষ্ণকুমার দাস: ধার দেওয়া পাওনা চার হাজার টাকা চাইতেই ধর্ষণের শিকার হল এক মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী। কলঙ্কজনক এই ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ কলকাতার (Kolkata) যোধপুর পার্ক লাগোয়া গোবিন্দপুর রেল কলোনিতে। ঘটনার জেরে লেক থানার পুলিশ তক্ষক পাচারের দায়ে দীর্ঘদিন জেলে থাকা আবীর নস্কর ওরফে নান্টু নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, অভিযুক্ত আবীরের বাড়ি ৫২ নম্বর গোবিন্দপুর রোড। আর একই পাড়ার বাসিন্দা নির্যাতিতা। তার মেডিক্যাল পরীক্ষার পর হোমে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন আলিপুর আদালতের বিচারক। শনিবার রাতে পুলিশ জানায়, নির্যাতিতা কিশোরীর সঙ্গে ওই যুবকের বছর দুই ধরে বন্ধুত্বের সম্পর্ক ছিল। ফোনে মাঝে মধ্যে কথা হত দু’জনের। বস্তুত সেই সুযোগ নিয়েই কিশোরীর কাছ থেকে চার হাজার টাকা ধার নেয় অভিযুক্ত। কিন্তু মাস ছয়েক ধরে সেই টাকা ফেরত দিচ্ছিল না সে। বারবার টাকার জন্য চাপ দেওয়ায় গত বৃহস্পতিবার দুপুরে সেই টাকা নিতে ডেকে পাঠায় আবীর।

[আরও পড়ুন: ফের জট! মমতার বিকল্প মুখ জোটের অধীর? কংগ্রেসের জল্পনায় জল ঢালল CPM]

নির্জন ঘরে একাই অপেক্ষা করছিল সে। কিশোরী যেতেই মুখে রুমাল চাপা দিয়ে তাকে ধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ। এমনকী ভয় দেখিয়ে নান্টু ওই কিশোরীকে এই বলে শাসায়, যে কাউকে কিছু বললে, বাবা-মাকেও খুন করে দেওয়া হবে। রক্তাক্ত অবস্থায় বাড়ি পৌঁছতেই কিশোরীর মা গোটা ঘটনা জানতে পারেন। সঙ্গে সঙ্গে পুলিশে খবর দেওয়া হয়। কিন্তু ততক্ষণে চম্পট দিয়েছে অভিযুক্ত।

শনিবার তাকে গ্রেপ্তার করে লেক থানার পুলিশ। পুলিশি তদন্তে উঠে এসেছে, অভিযুক্ত যুবক বিবাহিত। স্ত্রী ও সন্তানকে বাড়ি থেকে তাড়িয়েও দিয়েছে সে। নিগৃহীতা কিশোরীর বাবা জানিয়েছেন, “কুখ্যাত দুষ্কৃতী ওই যুবকের সঙ্গে বহু অসামাজিক লোক পাড়ায় ঢোকে। তাই যথেষ্ট ভয়ে রয়েছি। পুলিশ কড়া শাস্তি না দিলে ছাড়া পেয়ে ফের চড়াও হতে পারে।”

[আরও পড়ুন: করোনা কালে কীভাবে বসবে মেলা ও সংগীতের আসর? প্রাথমিক গাইডলাইন দিলেন মুখ্যসচিব]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement