১১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

নিউটাউনে চলন্ত অটোয় তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টা, গ্রেপ্তার চালক

Published by: Kumaresh Halder |    Posted: November 21, 2018 10:45 am|    Updated: November 21, 2018 5:47 pm

Molestation in New Town auto

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাতের শহরে চলন্ত অটোয় তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টা। অভিযোগ অটো চালকের বিরুদ্ধে৷ এমনকী ধর্ষণে বাধা দেওয়ায় তরুণীকে খুনেরও হুমকি দেওয়া হয়৷ বেগতিক পরিস্থিতিতে প্রাণের ভয় উপেক্ষা করে চিৎকর করেন আক্রান্ত মহিলা। তাঁর চিৎকারে ছুটে যান স্থানীয় বাসিন্দারা৷ স্থানীয়দের তৎপরতায় প্রাণে বেঁচে যান নিউটাউন এলাকার আক্রান্ত তরুণী৷ পরে অভিযুক্ত ওই অটো চালককে গ্রেপ্তার করে নিউটাউন থানার পুলিশ৷

[শহরে ফাঁস বেআইনি গ্যাস ‘রিফিলিং সেন্টার’, গ্রেপ্তার চক্রের পাণ্ডা]

পুলিশ সূত্রে খবর, পেশায় তথ্যপ্রযুক্তি কর্মী তরুণী মঙ্গলবার রাতে কাজ শেষে বাড়ি ফিরছিলেন৷ বাড়ি ফেরার পথে একটি অটোয় ওঠেন তিনি৷ অভিযোগ, ইডেন পার্ক এলাকায় যাওয়ার কথা থাকলেও অটো মাঝপথে থামিয়ে দেয় চালক৷ তরুণীকে স্থানীয় একটি মাঠে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে অভিযুক্ত অটো চলক৷ ধর্ষণে বাঁধা দেওয়ায় তরুণীকে প্রাণে মারার হুমকিও দেওয়া হয়৷ কিন্তু খুনের হুমকিতে দমে না গিয়ে চিৎকার শুরু করেন আক্রান্ত ওই তরুণী৷ রাতদুপুরে তরুণীর চিৎকার শুনে ঘটনাস্থলে ছুটে যান স্থানীয় দুই বাসিন্দা৷ গোটা ঘটনার প্রতিবাদ করেন তারা৷ পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে তর্ক জুড়ে দেয় অভিযুক্ত অটোটালক৷ তরুণীর বিরুদ্ধে ভাড়া না দেওয়ার পালটা অভিযোগ তোলে অভিযুক্ত চালক৷ পরে, গোটা বিষয়টি স্থানীয়দের জানান ওই তরুণী৷ স্থানীয়দের উদ্যোগে অটো চালকে ধরে নিউটাউন থানার পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়৷ থানায় গিয়ে খুন ও ধর্ষণের চেষ্টা-সহ একাধিক ধারায় অটো চালকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন আক্রান্ত  তরুণী৷ লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত অটো চালককে গ্রেপ্তার করে ঘটনার তদন্তে নামে নিউটাউন থানার পুলিশ৷

[‘রেড মিরচি’র পর এবার রেলে ‘অরেঞ্জ’ আতঙ্ক]

তবে, নিউটাউনের মতো একটি পরিকল্পিত নগরীতে চলন্ত অটোয় ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ প্রকাশ্যে আসায় প্রশ্নের মুখে শহরের নিরাপত্তা৷ এমনিতেই, সল্টলেক ও নিউটাউনে গভীর রাত পর্যন্ত কাজ করেন কয়েক হাজার তরুণ-তরুণী৷ কাজের প্রয়োজনে ছুটি পেতে কখনও কখনও ভোররাতও হয়ে যায়৷ ফলে, রাত-দুপুরে বাড়িও ফিরতে হয় তাঁদের৷ সেক্ষেত্রে অটোই হয়ে ওঠে একমাত্র ভরসা৷ কিন্তু, শেষ ভরসার অটোতেই যদি যাত্রীকে ধর্ষণের মতো গুরুতর অভিযোগ ওঠে, তাহলে কোথায় যাবেন সাধারণ যাত্রীরা? প্রশ্ন তুলছেন নিউটাউন এলাকার তথ্যপ্রযুক্তি কর্মীরা৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে