৪ ভাদ্র  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২২ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৪ ভাদ্র  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২২ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়: মডেলের পর বক্সার৷ ফের শহরে হেনস্তার শিকার এক মহিলা৷ তবে উষসী কাণ্ডেও হুঁশ ফেরেনি প্রশাসনের৷ অভিযোগ জানাতে গেলে, তা নেওয়া হয়নি বলেই অভিযোগ৷ তাই বাধ্য হয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সুর চড়ান নিগৃহীতা৷ বিদ্যুতের গতিতে ভাইরাল হওয়া ওই পোস্ট নিয়ে রীতিমতো হইচই পড়ে যায়৷ চাপের মুখে বাধ্য হয়ে নড়েচড়ে বসে পুলিশ৷ ঘণ্টাখানেকের মধ্যে তিন অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷ আগামী ৩ জুলাই পর্যন্ত জেল হেফাজতেই রাখা হবে অভিযুক্তদের৷

[আরও পড়ুন: সংবাদ প্রতিদিন-এর উদ্যোগে ‘চিকিৎসাজ্যোতি সম্মান’-এ ভূষিত বিশিষ্ট ডাক্তাররা]

এদিকে, তদন্তে নেমে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে৷ ডিসি ট্র্যাফিকের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে৷ এছাড়া ঘটনার দিন কর্তব্যরত যে কনস্টেবল ঘটনা দেখেও যথাযথ পদক্ষেপ নেয়নি, তাঁর বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷ তাঁকে এই নতুন গঠিত তদন্ত কমিটির কাছে জবাবদিহি করতে হবে৷

শুক্রবার সকালে বাড়ি থেকে মহাকরণের অফিস যাচ্ছিলেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন মহিলা বক্সার সুমন কুমারী৷ তিনি এদিন নিজের স্কুটি চালিয়ে অফিসে যাচ্ছিলেন। অভিযোগ, সেই সময় মোমিনপুরের কাছে অজ্ঞাতপরিচয় এক যুবক স্কুটির সামনে এসে তাঁকে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। এর প্রতিবাদ করায় ওই যুবক তাঁকে মারধরও করে৷ মহিলা বক্সার নিজের ফেসবুকে লেখেন, “ঘটনার সময় ওই এলাকায় ডিউটি করছিলেন এক পুলিশকর্মী। পুরো ঘটনাটি ঘটে তাঁর চোখের সামনে। দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে ওই পুলিশকর্মী সমস্ত ঘটনা দেখলেও ব্যবস্থা নিতে তিনি এগিয়ে আসেননি। উপরন্তু তাঁর সাহায্য চাইতে গেলে তিনি আমাকে থানায় গিয়ে এফআইআর করতে বলেন।”

[আরও পড়ুন: অবশেষে ঠাকুর রামকৃষ্ণ পরমহংসদেবের ডেথ সার্টিফিকেট হাতে পেল বেলুড় মঠ]

দিনকয়েক আগে রাতের শহরে নিগৃহীত হতে হয়েছিল প্রাক্তন মিস ইউনিভার্স উষসীকে৷ তাঁর ক্ষেত্রেও অভিযোগ ছিল প্রায় একইরকম৷ পুলিশি কোনও সাহায্য পাননি বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়েছেন উষসী৷ সেই ঘটনার পর নারী নিগ্রহের মতো ঘটনা রোধে কড়া পদক্ষেপ নিয়েছে লালবাজার৷ তারপরেও মহিলা বক্সার নিগ্রহ কাণ্ডে পুলিশি নিষ্ক্রিয়তা নিয়ে রীতিমতো সমালোচনার ঝড় ওঠে৷ ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই যদিও তিন অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ৷ রাহুল শর্মা (২০), শেখ ফিরোজ (২০) এবং ওয়াসিম খান (২৪) ধৃত এই তিন যুবকই খিদিরপুর ও মোমিনপুর এলাকার বাসিন্দা। এবিষয়ে ডিসি (বন্দর) সৈয়দ ওয়াকার রাজা বলেন, “অভিযোগ পাওয়ার পরই সিসিটিভি ফুটেজ দেখে তিন যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং