৩০ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অসমের মতো বাংলাতেও হবে এনআরসি। তাতে বাদ যাবে ২ কোটি মানুষ। বুধবার দিল্লিতে শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় রিসার্চ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ‘সেভ বেঙ্গল’ নামে একটি আলোচনা সভায় বললেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, ‘অসমের ধাঁচে পশ্চিমবঙ্গেও হবে এনআরসি। তাতে প্রায় দু’কোটি মানুষ বাদ পড়বে। বিদেশিরা এসে রাজ্য আর দেশের সর্বনাশ করছে। সেটাই আটকাতেই এনআরসি প্রয়োজন।’

[আরও পড়ুন: এনআরসি বিরোধী মিছিলে মুখ্যমন্ত্রী, নিরাপত্তার জন্য টেন্ডার ডেকে যাত্রাপথে বসল ব্যারিকেড]

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার দুপুরেই বাংলায় এনআরসি রুখতে প্রতিবাদ মিছিলে হাঁটবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সিঁথি থেকে শ্যামবাজার পর্যন্ত এই মিছিলে হাঁটবেন রাজ্যের মন্ত্রীরাও। থাকবেন তৃণমূল নেতা-কর্মীরাও। তার আগে দিল্লিতে ফের একবার এনআরসি প্রসঙ্গ উসকে দেন দিলীপ ঘোষ। তিনি মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে বলেন, ‘ওনার পুরনো অভ্যাস কিছু হলেই রাস্তায় নেমে পড়া। উনি বাড়িতে থাকতে পারেন না। সেই অভ্যাস বজায় রাখতেই রাস্তায় নামছেন। ২০২১ সালের পর তো রাস্তাতেই নামতে হবে। তবে যেই রাস্তায় নামুক, বাংলায় এনআরসি হবেই।’

উল্লেখ্য, বাংলাকে এখন পাখির চোখ করেছে বিজেপির হাইকমান্ড। সামনেই দুর্গাপুজোর মরশুম। তাই জনসংযোগ বাড়াতে বঙ্গ নেতৃত্বকে পুজোকে হাতিয়ার করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। পুজোর মরশুমকে কাজে লাগাতে চাইছে বঙ্গ বিজেপিও। তাই দিলীপ ঘোষ পুজোর সময় শীর্ষ নেতৃত্বকে বাংলায় আসার অনুরোধ করেছেন। কলকাতার ফ্রেন্ডস ইউনিয়ন পুজো কমিটি অমিত শাহকে পুজো উদ্বোধনের জন্য আমন্ত্রণও জানিয়েছে। সূত্রের খবর, মহালয়ায় বাংলায় আসতে পারেন বিজেপির সর্বভারতীয় কার্যকরী সভাপতি জেপি নাড্ডা।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং