BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বিরিয়ানি কাজিয়ায় মৃত্যু ইঞ্জিনিয়ারের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 22, 2016 1:40 pm|    Updated: June 22, 2016 1:40 pm

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: কেন বেশি রাতে রাস্তার উপর গাড়ি থামিয়ে বিরিয়ানি খাচ্ছেন তাঁরা? কেনই বা তাঁদের দুই বন্ধু রাস্তার ধারে ভ্যাটের দেওয়ালে প্রস্রাব করছেন?
এই প্রশ্ন তুলেই রাতের কলকাতায় পাঁচ যুবকের সঙ্গে প্রথমে বচসা ও তারই জেরে তাণ্ডব বাইক বাহিনীর৷ রাতের শহর দেখতে ‘নাইট আউটে’ বেরিয়েছিলেন সোনারপুরের বাসিন্দা ওই পাঁচ বন্ধু৷ এক ‘বাইকার’ ফুটপাতের একটি ‘টাইল’ ছুড়ে মারে গাড়ির দিকে৷ গাড়ির জানালার পাশেই বসে ছিলেন পেশায় ইঞ্জিনিয়ার রমিত মণ্ডল (২৮)৷ তাঁর মাথায় এসে লাগে পাথরের মতো শক্ত বস্তুটি৷ শুক্রবার রাতেই প্রায় অচেতন অবস্থায় তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়৷ তিনদিন পর মঙ্গলবার সকালে মৃত্যু হয় রমিতের৷
এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে দানা বেঁধেছে রহস্য৷ অভিযুক্ত বাইক আরোহীদের পরিচয় নিয়ে ধন্দে পুলিশ৷ এদিন বালিগঞ্জ থানায় ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০৪ ধারায় অনিচ্ছাকৃত খুনের মামলা রুজু হয়েছে৷ রমিতের বাবা মনোরঞ্জন মণ্ডল বালিগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করে জানিয়েছেন, তাঁর ছেলের খুনের পিছনে কোনও চক্রান্ত রয়েছে৷ রমিতের পরিবারের অভিযোগের তির তাঁর সঙ্গে থাকা চার বন্ধুর দিকেও৷ পুলিশ ওই চার যুবককেও জেরা করছে৷ ময়নাতদন্তে জানা গিয়েছে, ভারী কোনও বস্তু দিয়ে মাথায় আঘাত করা হয়েছে৷ ওই আঘাতের ফলে মাথার ডানদিকের অংশের খুলির হাড়ও ভেঙে যায়৷ তদন্তে ফরেনসিক বিশেষজ্ঞদের সাহায্য নিচ্ছে পুলিশ৷ মস্তিষ্ক থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণও হয়৷ তার ফলেই মৃত্যু হয় ইঞ্জিনিয়ারের৷
পুলিশ জানিয়েছে, দক্ষিণ ২৪ পরগনার সোনারপুরের বিদ্যাসাগর কলোনির খিরিশতলার বাসিন্দা রমিত কয়েক বছর আগে একটি বেসরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ থেকে বি টেক পাস করেন৷ শুক্রবার রাত সাড় দশটার পর সোনারপুর থেকে গাড়ি নিয়ে বের হন পাঁচ বন্ধু৷ গাড়ি চালাচ্ছিলেন রমিতের বন্ধু চিরঞ্জিৎ নন্দী৷ দেশপ্রিয় পার্কের কাছে একটি রেস্তোরাঁ থেকে তাঁরা পাঁচ প্যাকেট বিরিয়ানি কেনেন৷ বেশি রাতে তাঁরা বালিগঞ্জ থানা এলাকার ম্যাডক্স স্কোয়ারের কাছেই আর্ল স্ট্রিটে আসেন৷ সেখানেই বিরিয়ানি খাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তাঁরা৷ তিন বন্ধু গাড়িতে বসে বিরিয়ানি খাচ্ছিলেন৷ দু’জন পার্কের উল্টোদিকেই একটি ভ্যাটের দেওয়ালে প্রস্রাব করছিলেন৷ যুবকদের অভিযোগ, তখন রাত প্রায় দু’টো৷ দু’টি বাইকে করে বেপরোয়া গতিতে ৬ যুবক তাঁদের সামনে আসে৷ কেন তাঁরা রাস্তার উপর বিরিয়ানি খাচ্ছেন, কেনই বা তারা রাস্তায় প্রস্রাব করছেন, তা নিয়ে প্রশ্ন করতে থাকে তারা৷ এর পরই দু’পক্ষের মধ্যে বচসা শুরু হয়৷ গোলমাল এড়িয়ে যেতে তাঁরা গাড়িতে উঠে পড়েন৷ চিরঞ্জিৎ গাড়ি স্টার্ট দেন৷ তখনই এক যুবক ফুটপাথ থেকে একটি বড় ইট অথবা ফুটপাতের ‘টাইলস’ ছুড়ে মারে গাড়ির দিকে৷ গাড়ির ডানদিকের পিছনদিকে বসে ছিলেন রমিত৷ জানালা দিয়ে সেই ইট রমিতের কানের উপর মাথায় লাগে৷
অভিযুক্ত বাইক আরোহীদের শনাক্ত করার চেষ্টা করছে পুলিশ৷ খতিয়ে দেখা হচ্ছে এলাকার সিসিটিভির ফুটেজ৷ রমিতের বন্ধুদের কাছ থেকে বিবরণ নিয়ে বাইক আরোহীদের ছবি আঁকছেন পুলিশ শিল্পীরা৷ তাঁদের কখনও আলাদাভাবে আবার কখনও মুখোমুখি বসিয়ে আসল ঘটনা জানার চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement