১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘সোনার বাংলা কি বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙা দিয়ে শুরু হবে?’, শাহকে তোপ পার্থর

Published by: Sayani Sen |    Posted: June 11, 2020 1:52 pm|    Updated: June 11, 2020 6:05 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সোনার বাংলা তৈরির নামে সংস্কৃতি ভাঙার চেষ্টা করছে বিজেপি। তৃণমূল ভবনে সাংবাদিক বৈঠক করে গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগে সুর চড়ালেন মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। আমফান, করোনার জোড়া ধাক্কা সামলাতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রাণপণ লড়াই করে যাচ্ছেন বলেও দাবি তাঁর।

গত মঙ্গলবার ভারচুয়াল সমাবেশ ছিল বিজেপির। সেই সমাবেশে অমিত শাহ সোনার বাংলা গড়ার ডাক দেন। অমিত শাহের সেই দাবিকে কটাক্ষ করলেন তৃণমূলের মহাসচিব। পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “যিনি সোনার বাংলা গড়ার ডাক দিচ্ছেন তাঁর চোখের সামনেই বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙা হয়। তাঁরই দলের একজন প্রচারক বললেন বিদ্যাসাগর সহজপাঠ লিখেছেন। যাঁরা সোনার বাংলা গড়তে চায়, তাঁরা বাংলার সংস্কৃতিকে ভেঙে দিতে চাইছে। নতুন সংস্কৃতি গড়ার চেষ্টা করছে। সোনার বাংলা কি বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙা দিয়ে শুরু হবে? সংস্কৃতি নিয়ে তাঁদের কথা বলার দরকার নেই। বাংলার মানুষ দুর্দিন আসতে দেবেন না।”

[আরও পড়ুন: নিয়মের গেরো, শুরুর কয়েকদিনের মধ্যেই বন্ধ দমদম বিমানবন্দরের কোয়ারেন্টাইন সেন্টার]

করোনা সংক্রমণ ঠেকানোর পাশাপাশি কীভাবে অর্থনৈতিক পরিস্থিতিতে সচল রাখা যায় তা নিয়ে ভাবনায় গোটা দেশ। তার উপর আবার বাংলায় দাপট দেখিয়েছে আমফান। একদিকে করোনা আবার অন্যদিকে আমফানের জোড়া দাপটে বাংলার ক্ষতি হয়েছে ব্যাপক। বৃহস্পতিবার তৃণমূল ভবনের সাংবাদিক বৈঠকে ক্ষতির খতিয়ানও তুলে ধরেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বাংলার কঠিন পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করছেন বলেও জানান তিনি। বিরোধীদের কটাক্ষ করে তিনি বলেন, “করোনা, আমফানের ক্ষতি সামাল বড় চ্যালেঞ্জ। মানুষকে বাঁচানোই এখন প্রাথমিক লক্ষ্য। এই সময় রাজনীতি না করে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর।” এর আগেও বারবার বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে বিরোধীদের রাজনীতি না করার আরজি জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। এদিকে, এদিন পার্থ চট্টোপাধ্যায় ঘোষণা করেন ছাত্রছাত্রীদের মিডডে মিলের পাশাপাশি মাস্ক এবং সাবানও দেওয়া হবে।

[আরও পড়ুন: সংগ্রহ করা হবে করোনাজয়ীদের প্লাজমা, কলকাতায় আসছে WHO’র প্রতিনিধি দল]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement