×

৮ ফাল্গুন  ১৪২৫  বৃহস্পতিবার ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
নিউজলেটার

৮ ফাল্গুন  ১৪২৫  বৃহস্পতিবার ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সুব্রত বিশ্বাস: ট্রেন বাতিলের হিড়িকে শুক্রবার কাজের দিনে দুঃসহ যন্ত্রণার মধ্যে পড়লেন শিয়ালদহ মেন শাখার যাত্রীরা। কাঁকিনাড়া ও নৈহাটির মাঝে চতুর্থ লাইনের কাজের জন্য রাত থেকে বহু ট্রেন বাতিল করেছে শিয়ালদহ ডিভিশন। বৃহস্পতিবার রাত থেকেই ট্রেন বাতিল শুরু হয়েছে। এদিন ৩২টি লোকালকে বাতিল করা হয়েছে ওই শাখায়। যার মধ্যে চারটি শিয়ালদহ-রানাঘাট, ২০টি শিয়ালদহ-নৈহাটি ও ৮টি শিয়ালদহ-কল্যাণীর লোকাল। শহরতলির অফিসযাত্রীদের কলকাতায় যাতায়াতের মূল মাধ্যমই হল ট্রেন। একসাথে এত লোকাল বাতিল হওয়ায় যাত্রীদের যে চরম দুর্ভোগের শিকার হতে হয়েছে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। এমনিতেই শিয়ালদহ মেন শাখার ট্রেনগুলিতে অফিস টাইমে তিল ধারনের জায়গা থাকে না। এদিন ট্রেন বাতিল থাকায় পরিস্থিতি আরও খারাপ।

[লাইনে ইন্টারলকিংয়ের কাজ, শিয়ালদহ মেন শাখায় বাতিল ১১৪টি লোকাল ট্রেন]

মেন শাখার নৈহাটি পর্যন্ত বেশি ট্রেন বাতিল হওয়ায় শিয়ালদহ-নৈহাটির মধ্যে ট্রেনগুলিতে প্রচণ্ড ভিড় হয়। এক প্রকার বাদুড়ঝোলা হয়েই অফিস টাইমে যাতায়াত করতে হয় যাত্রীদের। বিশেষ অসুবিধায় পড়েন মহিলা যাত্রীরা। ভিড়ে যাত্রা করতে তাঁদের কালঘাম ছুটে যায়। রেল জানিয়েছে, আগামী রবিবার রাত পর্যন্ত শিয়ালদহ-রানাঘাট শাখায় ১১৪টি ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। সমস্যা থাকলেও অপেক্ষাকৃত কম গুরুত্বপূর্ণ ট্রেনগুলি বাতিল করা হয়েছে বলে রেলকর্তারা জানিয়েছেন।

[নন এসি রেকে যান্ত্রিক ত্রুটি, ফের ব্যাহত মেট্রো পরিষেবা]

চতুর্থ লাইনের কাজের জন্য তিনদিন ধরে চলবে নন ইন্টারলকিংয়ের কাজ। শনিবারও বাতিল থাকবে ৪০টি ট্রেন। যার মধ্যে ৮টি রানাঘাট, ২৪টি নৈহাটি ও ৮টি কল্যাণী লোকাল। রবিবার ৪২টি ট্রেন বাতিল থাকবে। এর মধ্যে ৮টি রানাঘাট, ২৪টি নৈহাটি লোকাল, দু’টি রানাঘাট-নৈহাটি লোকাল ও ৮টি কল্যাণী লোকাল। ওই দুই দিনও দূরপাল্লার গোরক্ষপুর-কলকাতা এক্সপ্রেস, গঙ্গাসাগর এক্সপ্রেস, গৌড় এক্সপ্রেস, বালিয়া এক্সপ্রেস, কলকাতা-পাটনা, মুজফফরপুর ফাস্ট প্যাসেঞ্জারকে ডানকুনি দিয়ে ঘুরিয়ে পাঠানো হবে। রেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, চতুর্থ লাইনটি ঠিক হলে ট্রেনের গতি যেমন বাড়বে, তেমনই বাঁচবে সময়। ফলে এই সমস্যা যাত্রীদের মেনে নিতে হবে বৃহত্তর সামাজিক স্বার্থেই।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং