১৯ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  শুক্রবার ৬ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

দীপঙ্কর মণ্ডল : দীর্ঘদিনের অশান্ত কাশ্মীর উপত্যকাকে এক সিদ্ধান্তেই ঠান্ডা করে দিল কেন্দ্র৷ বিশৃঙ্খলা দমন এবং স্থায়ী শান্তি স্থাপনের জন্য গোটা রাজ্যকে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করে দেওয়া হল৷ এখন থেকে রাজ্য নয়, জম্মু-কাশ্মীরের পরিচিতি হল জম্মু-কাশ্মীর এবং লাদাখ – দু’টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল৷ বহু আলোচিত, বিতর্কিত ৩৭০ এবং ৩৫এ ধারা অবলুপ্ত করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর মস্তিষ্কপ্রসূত এই সিদ্ধান্ত ইতিমধ্যেই প্রশংসাযোগ্য হয়ে উঠেছে৷ বিভিন্ন মহল কেন্দ্রের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে৷ কোথাও কোথাও শুরু হয়ে গিয়েছে উৎসবও৷

[আরও পড়ুন: নিরাপত্তায় বাড়তি নজর, বউবাজারে প্রবীণ নাগরিকদের সঙ্গে বৈঠক পুলিশের]

কলকাতাও এই উদযাপনের বাইরে নেই৷ এমনিতে বঙ্গবাসী ও কাশ্মীরবাসীর মধ্যে  ব্যবসায়িক সম্পর্ক বরাবরই ভাল৷ তাই আজকের ঐতিহাসিক দিনে উপত্যকাবাসীর আনন্দে শামিল শহর ও শহরতলির মানুষ৷ আয়োজন রাজনৈতিক দলে তত্বাবধানে হলেও, সাধারণ মানুষ কিন্তু তাতে যোগ দিতে কোনও দ্বিধা করছেন না৷ যেমনটা দেখা গেল বড়বাজার এলাকায়৷ জম্মু-কাশ্মীরের ‘পুনর্জন্ম’-এর খবর পেয়ে সেখানকার সাধারণ মানুষই মেতে উঠলেন উচ্ছ্বাসে৷ জাতীয় পতাকা নিয়ে আনন্দ করার পাশাপাশি মিষ্টিমুখও চলল৷ একে অন্যকে লাড্ডু বিতরণ করে উৎসবের মেজাজ আরও জমাটি করে তুললেন৷ সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউয়ের মুরলীধর সেন লেনেও একই ছবি৷ রাজ্য বিজেপির সদর কার্যালয়ে কর্মী, সমর্থকরা আনন্দিত৷ নানা দিক থেকে জট পড়ে থাকা কাশ্মীর নিয়ে দ্বিতীয় নরেন্দ্র মোদি সরকারের এমন নজিরবিহীন, মঙ্গলময় সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাতেই তাঁদের এই আয়োজন৷

উদযাপনের প্রস্তুতি চলছে রাজ্যের অন্যত্রও৷ সোমবার বিকেলে নিমতা এলাকার পূর্বপাড়া থেকে নিমতা থানা পর্যন্ত বিজয় মিছিলের আয়োজন করেছে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব৷ তবে তাতে এলাকাবাসীও শামিল হচ্ছেন৷ আরেকদিকে সন্ধেবেলা গড়িয়া মোড় থেকে সুলেখা মোড় পর্যন্ত বিজয় মিছিলে হাঁটবেন আমজনতা৷ অনেকেই মনে করছেন, এবার আরও নিশ্চিন্তে ভূস্বর্গ ভ্রমণ করতে পারবেন৷ এই ইতিবাচক ভাবনা থেকেই আনন্দের উদযাপন৷

[আরও পড়ুন: PUBG-তে আসক্তি, বাধা পেয়ে আত্মঘাতী খাস রিজেন্ট পার্কের মেধাবী ছাত্র]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং