BREAKING NEWS

১৩ মাঘ  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

ভোটের আগে কড়া নজরদারি গঙ্গায়, অতিরিক্ত সতর্ক দুই পারের পুলিশ

Published by: Bishakha Pal |    Posted: May 5, 2019 9:15 am|    Updated: May 5, 2019 9:15 am

Police take extra security before general election in howrah

অর্ণব আইচ: ক’দিন বাদেই ওপারে ভোট। তাই এখন থেকেই এপারে নজর পুলিশের। হাওড়ায় ভোটের সময় যাতে কলকাতার দুষ্কৃতীরা তাণ্ডব চালাতে না পারে, তার জন্য ছোট নৌকার উপরও নজরদারি শুরু করেছে জলপুলিশ।

আগামী সোমবার ভোট হাওড়ায়। ভোট নিয়ে কলকাতা পুলিশের কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকও হয়েছে হাওড়া পুলিশের। হাওড়ায় ভোটের দিন কলকাতা থেকে দুষ্কৃতীরা গিয়ে অশান্তি করতে পারে, এই সম্ভাবনাও পুলিশ উড়িয়ে দিচ্ছে না। কলকাতায় ভোটের আগেই হাওড়ায় ভোট। তবু এখন থেকেই কলকাতা পুলিশ নজরদারি শুরু করেছে এখানকার দুষ্কৃতীদের উপর। লালবাজারের গোয়েন্দা আধিকারিকদের মতে, কলকাতা থেকে যদি হাওড়ায় গিয়ে দুষ্কৃতীরা কোনও গোলমাল করতে চায়, তবে তাদের আগেই রোখার প্রয়োজন। যেহেতু সড়কপথের উপর পুলিশের কড়া নজরদারি রয়েছে, তাই জলপথকেও বেছে নিতে পারে দুষ্কৃতীরা। সেই কারণেই গার্ডেনরিচ ও উত্তর বন্দর এলাকার ঘাটগুলিতে শুরু হয়েছে নাকা তল্লাশি। হাওড়া ও কলকাতায় ভোটের দিন অনেক সময়ই কয়েকটি রুটের ফেরি সার্ভিস বিশেষ সময়ের জন্য বন্ধ রাখা হয়। তাই গোয়েন্দাদের ধারণা, ভোটের কয়েকদিন আগেই গঙ্গা পার হওয়ার চেষ্টা করতে পারে দুষ্কৃতীরা।

[ আরও পড়ুন: তর্জন গর্জনই সার, এই চার কারণে তিলোত্তমায় বিষদাঁত ফোটাতে ব্যর্থ ফণী ]

গার্ডেনরিচ এলাকায় রয়েছে বিচালিঘাট। আবার উত্তর বন্দর থানা এলাকার বাবুঘাট, চাঁদপাল ঘাট, শোভাবাজার ঘাট, আর্মানিয়ান ঘাটের মতো কয়েকটি ঘাটে প্রতিনিয়ত ফেরি লঞ্চ চলাচল করে। প্রত্যেকদিনই বহু অফিসযাত্রী ও মানুষ যাতায়াত করেন ফেরিতে। সেই ফেরি করে দুষ্কৃতীদের যাওয়া রুখতে শুরু হয়েছে নাকা তল্লাশি ও নজরদারি। ঘাটগুলিতে রয়েছেন থানার পুলিশ ও লালবাজারের গোয়েন্দারাও। পুলিশের ধারণা, অন্যভাবেও তারা গঙ্গা পার হতে পারে। তার জন্য তারা বেছে নিতে পারে নৌকাও। গঙ্গায় যেমন মৎস্যজীবীদের নৌকা চলে, তেমন চলে পর্যটনের জন্য নৌকাও। ভোটের আগে থেকে এই নৌকাগুলির উপর বিশেষ নজর রাখতে শুরু করেছে জলপুলিশ। কোনও মাছধরা নৌকায় অপরিচিত কোনও ব্যক্তি রয়েছে কি না, সেদিকে চলছে নজরদারি। আবার পর্যটনের জন্য যে নৌকাগুলি রয়েছে, সেগুলির মধে্য কোনওটি ভাড়া নিয়ে কেউ নদী পার হয়ে হাওড়ার কোনও ঘাটের দিকে যাচ্ছে কি না, তার উপরও চলছে বিশেষ নজরদারি। জলপুলিশের আধিকারিকরা নিজেদের নেটওয়ার্ক কাজে লাগিয়েই এই নদী পার হওয়ার বিষয়ে খবর নেওয়ার চেষ্টা করছেন।

গোয়েন্দারা জানিয়েছেন, কয়েকটি এলাকার দুষ্কৃতীদের ইতিমধ্যে চিহ্নিতও করেছেন তাঁরা। মধ্য কলকাতার বড়বাজার, গিরিশ পার্ক, আবার পূর্ব কলকাতার এন্টালি, নারকেলডাঙা, ট্যাংরা, তিলজলা, তপসিয়া ও বন্দর এলাকার কিছু দুষ্কৃতী কলকাতা থেকে হাওড়ার দিকে যেতে পারে, এমন সম্ভাবনা তাঁরা উড়িয়ে দিচ্ছেন না। আবার কলকাতায় ভোটের সময়ও হাওড়া থেকে শহরের দিকে নদীপথে আসতে পারে সেখানকার দুষ্কৃতীরা। সেদিকেও নজর রাখা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

[ আরও পড়ুন: ফণীর আতঙ্ক কাটিয়ে সূয্যিমামার উঁকি, চেনা গরমেই ঘুম ভাঙল শহরের ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে