২  ভাদ্র  ১৪২৯  শুক্রবার ১৯ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

অব্যাহতি সিপি জোশীকে, বাংলায় কংগ্রেসের পর্যবেক্ষকের দায়িত্বে এবার গৌরব গগৈ

Published by: Kumaresh Halder |    Posted: May 27, 2018 5:58 pm|    Updated: July 27, 2018 2:49 pm

Rahul Gandhi's return to Focus of Bangla Congress

কুমারেশ হালদার: ‘বন্ধু’ বামেদের হাল দেখে নিজেদের সংশোধনের পথে পা বাড়াল কংগ্রেস৷ নতুন মুখ আনিয়ে দলকে চাঙ্গা করার ভোকাল টনিক দেওয়ার চেষ্টা করলেন সোনিয়া পুত্র রাহুল গান্ধী৷ রীতিমতো বিজ্ঞপ্তি জারি করে পশ্চিমবঙ্গের পর্যবেক্ষক পদে বড়সড় বদল ঘটালেন কংগ্রেস সভাপতি৷ রাজ্যের দায়িত্বপ্রাপ্ত কংগ্রেস পর্যবেক্ষক সিপি জোশীর চেয়ার এবার গৌরব গগৈকে বসানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে৷ শীঘ্রই রাজ্যের পর্যবেক্ষক হিসেবে দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেবেন অসমের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৈয়ের পুত্র গৌরব৷

আজ, একটি প্রেস বিবৃতি দিয়ে জাতীয় কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক অশোক গেহলট জানান, পশ্চিমবঙ্গ ও আন্দামান-নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব থেকে জোশীকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে৷ জোশীর পরিবর্তে আনা হচ্ছে তরুণ গগৈয়ের পুত্র গৌরবকে৷

কে এই গৌরব গগৈ? অসমের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ছেলে হিসাবে রাজনীতিতে পা রাখলেও পরে নিজের দক্ষতা দেখিয়েছেন৷ বাবার সঙ্গে ছেলেও রাজনীতিতে দাগ কাটতেও সমর্থ হয়েছেন৷ একইসঙ্গে গান্ধী পরিবারের সঙ্গেও যোগাযোগ বেড়েছে৷ গত লোকসভা ভোটে হাতের প্রতীক নিয়ে লড়াই করে অসমের কলিয়াবর কেন্দ্রের থেকে জয় ছিনিয়ে এনেছিলেন গৌরব গগৈ৷ একইসঙ্গে অসমের তরুণ সাধারণ সম্পাদকদেরও দায়িত্ব সামলেছেন৷ এবার পালা বাংলা৷ অসমের পাশাপাশি বাংলা কংগ্রেসের দেখভালও করতে হবে তাঁকে৷ সর্বভারতীয় নেতৃত্বের তরফ থেকে পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলিতে কংগ্রেসের কিছু সাংগঠনিক কাজ দেখভাল করার দায়িত্ব আগেই গৌরব দেওয়া হয়েছিল৷ পূর্বভারতে শক্ত হাতে সংগঠন পরিচালনার করার সুবাদে তাঁকে বাংলা ও আন্দামানের পর্যবেক্ষক করা হয়েছে৷

রবিবার ছুটির দিনে নতুন পর্যবেক্ষকের নাম ঘোষণা হওয়ার পর থেকে বেশ খানিকটা চাঙ্গা যুব কংগ্রেসের নেতা-কর্মীরা৷ দীর্ঘদিন পর দলে নতুন মুখে উঠে আসায় নতুন করে আসার আলো দেখতে শুরু করেছেন বাংলা কংগ্রেসের নেতারা৷ কারণ, রাজ্যের পর্যবেক্ষক জোশীকে নিয়ে দলের অন্দরে চূড়ান্ত ক্ষোভ ছিল৷ দলের কোনও কাছে তাঁকে পাওয়া যেত না বলেও খবর৷ দলের নেতাদের ফোনেও বিরক্ত বোধ করতেন জোশী৷ গতবারের বাংলা ভোটের উৎসবে বেশ কয়েকটি প্রচারে জোশীকে দেখা গেলেও আর বাংলামুখো হতে দেখা যায়নি তাঁকে৷ ফলে, প্রদেশ কংগ্রেসের বেশ কয়েকজন নেতার ঘাড়েই দলের চাপ গিয়ে পড়ছিল৷ এমনকি, বাংলার রাজনীতির প্রেক্ষাপট এআইসিসিকে বোঝাতেও সময় লেগে যাচ্ছিল৷ ফলে, সিদ্ধান্ত গ্রহণেও লেগে যাচ্ছিল বেশ খানিকটা সময়৷ প্রদেশ নেতাদের আশা, তরুণ তুর্কিতেই চাঙ্গা হবে দল৷ ফিরবে কংগ্রেসের গৌরব!

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে