BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

“অভিভাবক হারালাম”

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 29, 2016 8:58 am|    Updated: July 29, 2016 8:58 am

An Images

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়: মহাশ্বেতাদির প্রয়াণে আমি গভীরভাবে শোকাহত৷ খবর পেয়েই দিল্লি থেকে কলকাতা রওনা হয়েছি৷ আমার সঙ্গে গভীর যোগাযোগ ছিল মহাশ্বেতাদির৷ সে যোগাযোগ কোনওদিন বিচ্ছিন্ন হয়নি৷ শেষযাত্রাতেও ওঁর সঙ্গে থাকতে চাই৷ উনি ছিলেন বাংলার মা৷ Coc6RL9XEAAlS2Aশুধু বাংলার বলি কেন, উনি ছিলেন গোটা দেশের মা৷ বিশ্বের মা৷ তাঁর প্রয়াণে অবসান হল একটি যুগের, একটি বহুমুখী কর্মজীবনের৷

সাহিত্য থেকে সমাজসেবা, মানুষের জন্য গভীর ভালবাসা, এক অনন্য ব্যক্তিত্ব ছিলেন মহাশ্বেতাদি৷ ভারত এক মহান লেখিকাকে হারাল৷ বাংলা এক গৌরবজ্জ্বল মা-কে হারাল৷ আমায় খুব ভালবাসতেন মহাশ্বেতাদি৷ সিঙ্গুর আন্দোলনের সময় আমার পাশে এসে দাঁড়িয়েছিলেন৷ অনশনমঞ্চেও পাশে ছিলেন৷ ছিলেন পথপ্রদর্শকও৷ মনে আছে, আমার মা তখন মারা গিয়েছেন৷ মহাশ্বেতাদি আমার অভিভাবক হয়ে এলেন৷ প্রায়ই খোঁজ নিতেন৷ জিজ্ঞাসা করতেন, ‘তুমি খেয়েছ?’ উনি চলে যাওয়ায় আমি মর্মাহত৷ আবার আমি আমার অভিভাবক হারালাম৷ হারালাম আপনজনকে৷ রাজ্য সরকার ওঁকে পূর্ণ মর্যাদা দেবে৷ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় ওঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে৷ আমি রাতে কলকাতা পৌঁছচ্ছি৷ বৃহস্পতিবার বেলভিউতে ওঁর মরদেহ রাখা থাকবে৷ শুক্রবার সকালে ওঁর মরদেহ প্রথমে নিয়ে যাওয়া হবে রবীন্দ্রসদনে৷ সকাল ১০টা থেকে রবীন্দ্রসদনে সাধারণের শ্রদ্ধা জানানোর জন্য শায়িত থাকবে তাঁর মরদেহ৷ বেলা ১টা নাগাদ রবীন্দ্রসদন থেকেই মহাশ্বেতাদির মরদেহ নিয়ে বেরবে শোকমিছিল৷ ওঁর পরিবারের সঙ্গে কথা বলা হয়েছে৷ মহাশ্বেতাদি-র পূত্রবধূ রয়েছেন নার্সিংহোমে৷ ওঁর নাতি রাতেই কলকাতায় পৌঁছচ্ছেন৷mamata_web

দুই মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস, ইন্দ্রনীল সেন, কলকাতার মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় রয়েছেন ওঁর পরিবারের সঙ্গে৷ পরিবারের সঙ্গে কথা বলেই ঠিক হয়েছে কেওড়াতলায় রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে৷ মহাশ্বেতাদি অনেক দিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন৷ বছর দেড়েক ধরে প্রায়ই চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যেতে হত৷ আমি সব সময়েই খবর নিতাম৷ গত বছর তো জন্মদিনের দিনই অসুস্থ হয়ে পড়লেন৷ হাসপাতালেই তাঁর জন্মদিন পালন করা হল৷ মাঝে সুস্থ ছিলেন বেশ কিছুদিন৷ হঠাৎই আবার অসুস্থ হয়ে পড়েন৷ হাসপাতালে নিয়ে যেতে হয়৷ দুপুরেই মহাশ্বেতাদির মৃত্যু সংবাদ পাই৷ দিল্লি সফর তাই কাটছাঁট করতে হল৷ মহাশ্বেতাদির মৃত্যু আমি মেনে নিতে পারছি না৷ দ্রুত কলকাতা ফিরছি৷ চিরজীবন আমাদের হৃদয়ের মণিকোঠায় নাম লেখা থাকবে মহাশ্বেতাদির৷

Mahasweta-Devi_web

(দিল্লি সফর কাটছাঁট করে কলকাতা ফেরার পথে মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিক্রিয়ার অংশবিশেষ)

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement