BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

জেল হেফাজতে রিষড়ার ছাত্রনেতা, ছাত্রীর বিরুদ্ধেই এবার চাঞ্চল্যকর অভিযোগ

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 19, 2018 2:01 pm|    Updated: January 19, 2018 2:01 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রিষড়ার বিধান কলেছের ঘটনায় এল চাঞ্চল্যকর মোড়। শুক্রবারই আত্মসমর্পণ করে অভিযুক্ত ছাত্রনেতা শাহিদ হাসান খান। আজই তাঁকে আদালতে পেশ করা হয়। পুলিশ তাঁকে হেফাজতে চায়নি। ফলে ১৪ দিনের জেল হেফাজত হয়েছে ওই ছাত্রনেতার। অন্যদিকে অভিযোগকারী ছাত্রীর বিরুদ্ধেই এবার মারাত্মক অভিযোগ আনল অভিযুক্তের আইনজীবী।

কী সেই অভিযোগ?

ঐত্রীর পরিবারকে শাসানির জের, বরখাস্ত আমরি মুকুন্দপুরের ইউনিট হেড জয়ন্তী ]

অভিযুক্তে আইনজীবীর বক্তব্য, ঘটনার ঠিক পরের দিনেই কলেজের টিচার-ইন-চার্জকে একটি চিঠি দেয় অভিযোগকারী ছাত্রী। সেখানে তিনি স্পষ্ট জানান, সমক্ষেই জিএস-এর সঙ্গে তাঁর ঝামেলা হয়েছিল। ভুল বোঝাবুঝি হয়েছিল। কিন্তু তা করা তাঁর উচিত হয়নি। ভবিষ্যতে এরকম কোনও ঘটনা ঘটবে না। যা সমস্যা ছিল মিটে গিয়েছে। আইনজীবীর অভিযোগ, এরপরও  তিনি যে অভিযোগ তুলেছেন তা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে করা হয়েছে।

অবশেষে পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ বিধানচন্দ্র কলেজের জিএস-এর ]

রিষড়ার বিধানচন্দ্র কলেজের যে সিসিটিভি ফুটেজটি ছড়িয়ে পড়েছিল, সেখানে স্পষ্টতই ছাত্রীটিকে নিগৃহীতা হতে দেখা গিয়েছিল। ছাত্রনেতা সমানে তাঁকে কিল-চড় ঘুষি মারছে এমনটাই দেখা গিয়েছিল। শুক্রবার সকালে এ ব্যাপারে মুখ্যমন্ত্রীর দ্বারস্থ হন নিগৃহীতা ছাত্রী। জানানো হয়, তাঁকে রীতিমতো খুনের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। কলেজে যাওয়াও বন্ধ হয়েছে। প্রভাবশালীর পুত্র বলেই ছাত্রনেতার বিরুদ্ধে পুলিশ অভিযোগ নিতে গড়িমসি করেছিল বলে দাবি করা হয়। এদিকে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও জানিয়েছিলেন, এ ধরনের কোনও ঘটনা বরদাস্ত করা হবে না। যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। একই মত ছিল টিএমসিপির সভানেত্রী জয়া দত্তেরও। এরপরই ঘটনা নতুন দিকে মোড় নেয়। শুক্রবার সকালে আত্মসমপর্পণ করে অভিযুক্ত জিএস।

৮টি লোকাল ট্রেনের রুট বন্ধে রেলমন্ত্রকের চিঠি রাজ্যকে ]

আজ তাঁকে আদালতে পেশ করলে অবশ্য অভিযোগকারী ছাত্রীর বিরুদ্ধেই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ উঠে আসে। কেন সেদিন চিঠি দিয়েও ফের এ নিয়ে সরব হলেন তিনি। সংবাদমাধ্যমকে ছাত্রীটি জানিয়েছেন, রীতিমতো চাপের মুখে পড়েই তাঁকে এই চিঠি লিখতে হয়েছিল। খুনের হুমকি-সহ একাধিক চাপের মুখে পড়েই এই চিঠি জমা দিয়েছিলেন তিনি। জিএস-এর সঙ্গে তাঁর ভাল সম্পর্কের কথাও অনেকেই জানেন। তাহলে কেন এই বিরোধ? ছাত্রীর দাবি, তাঁর প্রতি নানারকম যৌন ইঙ্গিত দিয়েছিল ওই জিএস। তা তিনি মানতে চাননি বলেই এই পরিস্থিতি। এছাড়া ভুয়ো বিলের বিরোধিতা করতেও তিনি জিএস-এর কোপে পড়েন বলে জানিয়েছেন।

দেখুন সেদিনের ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ:

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement