BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

শিয়ালদহ ডিভিশনে রেলের জমি বিক্রির অভিযোগ আরপিএফের বিরুদ্ধে

Published by: Bishakha Pal |    Posted: May 2, 2019 10:29 am|    Updated: May 2, 2019 10:33 am

An Images

সুব্রত বিশ্বাস: পড়ে থাকা নিজস্ব জমিকে কাজে লাগাতে চায় রেল। যখন এই পরিকল্পনা নিয়ে কাজ শুরু হয়েছে, তখনই রেলের পড়ে থাকা জমি রীতিমতো মোটা দামে বিক্রি করছে আরপিএফ বলে অভিযোগ উঠেছে। শিয়ালদহ ডিভিশনের এক শ্রেণির আরপিএফের বিরুদ্ধে এমন বড়সড় অভিযোগ রীতিমতো পৌঁছে গিয়েছে রেলমন্ত্রীর কাছে। এনিয়ে ক্ষুব্ধ আরপিএফের ডিজির দপ্তরও। তবে শিয়ালদহ ডিভিশনের আরপিএফের যেসব কর্মী এই কাজে যুক্ত তাঁরা অবশ্য বেপরোয়া। বলছেন, জমি বিক্রি হলেও তার দলিল বা পরচা দেওয়া হয়নি। সুতরাং যাঁরা নিচ্ছেন তাঁরা দখলদার হিসেবেই গণ্য।

যুক্তি যাই হোক, অভিযোগে বলা হয়েছে, ডায়মন্ডহারবার স্টেশনের বাইরে দশ থেকে বারোটি দোকান এভাবেই বিক্রি করেন আরপিএফ-এর এসআই জনৈক ঘোষ ও তাঁর সঙ্গী বহিরাগত আতিয়ার মোল্লা, অতিমুদ্দিন পুরকাইত, ইদ্রিশ গাজি। রমরমা এই ব্যবসার কবলে এখন দক্ষিণ শাখার বহু স্টেশন এলাকা বেদখল হয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ধপধপিতে রেলের জায়গা প্লট করে বিক্রি হচ্ছে।

[ আরও পড়ুন: কলকাতায় আইএস ডেরা, ২ জঙ্গিকে জেরা করতে পাটনায় এসটিএফের গোয়েন্দারা ]

আরপিএফের হয়ে এই জমির দালালি করছেন মুস্তাকিন মণ্ডল ও নৌশাদ বলে জানা গিয়েছে। মগরাহাট ও সংগ্রামপুরের মাঝে দেউলায় ডাউন লাইনের ধারে পরিত্যক্ত এক রেল আবাসনই বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে এভাবেই। লাইনধারের এই আবাসন এখন জমজমাট হোটেলে পরিণত হয়েছে। মধ্যমগ্রাম ৯ নম্বর লেভেল ক্রসিং গেটের পাশে রীতিমতো পাকাপোক্ত সব দোকান তৈরি হয়েছে যা এভাবেই আরপিএফকে টাকা দিয়ে নিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। তবে শুধু আরপিএফ নয়, এই বেআইনি বেচাকেনাতে ইঞ্জিনায়ারিং বিভাগের এক শ্রেণির কর্মীও ভালরকমভাবে যুক্ত বলে জানা গিয়েছে। আরপিএফ আধিকারীকরা জানিয়েছে, বিষয়টি খতিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরপিএফে লাগাতার ১০ বছরের বেশি কলকাতা শহর ও আশপাশে থাকা কর্মীদের দূরে বদলির প্রক্রিয়া চলাকালীন ১৬ জন আরপিএফ কর্মীকে কাছাকাছি বদলি করা হয়। এই কর্মীদের একাংশকে অভিযোগের ভিত্তিতে দূরে বদলি করা হলেও আবার কাছে বদলি করে আনা হয়। যদিএ এই নির্দেশ বাতিল করে দিয়েছেন স্বয়ং আরপিএফ ডিজি। অভিযোগের ভিত্তিতে বদলির নির্দেশ রদে প্রবল চাঞ্চল্য শুরু হলেও অনেক আরপিএফ কর্মীই তা উপযুক্ত পদক্ষেপ বলে মনে করেছেন।

[ আরও পড়ুন: দিঘার হোটেলে হেনস্তার শিকার, মুখ্যমন্ত্রীর শরণাপন্ন চার তরুণী ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement