BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ৩ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

সারদার নথি স্থানান্তর সময়সাপেক্ষ, আলিপুর আদালতে আটকে রাজীব মামলার শুনানি

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: September 19, 2019 10:24 am|    Updated: September 19, 2019 12:07 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে খুঁজে পেতে মরিয়া সিবিআই। দিল্লি থেকে আসা ১২জনের বিশেষ দলটির একমাত্র লক্ষ্য, আগামী ৭ দিনের মধ্যে রাজীব কুমারের হদিশ পেতে হবে। সেই লক্ষ্যেই কলকাতা পা দেওয়া মাত্রই তৎপরতায় তুঙ্গে তাঁদের মধ্যে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক করেছেন এই বিশেষ প্রতিনিধিরা। রাজীব কুমারের ফোন বন্ধ থাকায় তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ সম্ভব হচ্ছে না। এই পরিস্থিতিতে কোন নম্বরে তাঁকে পাওয়া যাবে, তা জানতে চেয়ে রাজ্য পুলিশের ডিজি বীরেন্দ্রকে চিঠি দিয়েছেন সিবিআই আধিকারিকরা। এই মামলায় কীভাবে রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে আইনি ঘুঁটি সাজাবেন, তা নিয়ে বেশ সাবধানী পদক্ষেপ নিচ্ছেন তাঁরা।

[ আরও পড়ুন:  সাতসকালে মেট্রোয় আত্মহত্যার চেষ্টা, চূড়ান্ত ভোগান্তি নিত্যযাত্রীদের]

এদিকে, বারাসত জেলা ও দায়রা আদালত রাজীব কুমারের আগাম জামিনের মামলাটি না শোনায়, বুধবার বিকেলেই আলিপুর জেলা আদালতে তিনি নতুন করে আবেদন করেন। কারণ, সারদা মামলাটি গোড়া থেকে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা আদালত অর্থাৎ আলিপুর আদালতের বিচারাধীন ছিল। তাই সেখানেই মামলাটি পাঠিয়ে দেওয়া হয় বারাসত জেলা আদালতের তরফে।

তবে আলিপুর আদালতেও মামলাটি আজ থেকে শুরু হবে কি না, তা নিয়ে অনিশ্চয়তা। সূত্রের খবর, শুনানির জন্য প্রয়োজনীয় নথিই নেই আদালতের হাতে। সারদা মামলার বিপুল নথিপত্র বারাসত থেকে আলিপুরে পৌঁছতে সময় লাগবে। শুক্রবারের আগে তা পৌঁছানো সম্ভব নয়। তাই সমস্ত নথি হাতে পেয়ে ঠিক কবে রাজীব কুমারের আবেদনের শুনানি শুরু করা যায়, তা বুঝতে পারছেন না বিচারকরাও।

[ আরও পড়ুন: ‘সম্পূর্ণ গটআপ গেম’, মোদি-মমতা বৈঠক প্রসঙ্গে কটাক্ষ বাম-কংগ্রেসের]

আরেকদিকে, সিবিআইও রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ধারায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করতে চেয়ে আবেদন জানিয়েছে আলিপুর আদালতে। কিন্তু এখানেও সেই নথিজটেই আটকে শুনানি। ফলে এই মুহূর্তে আলিপুর আদালতে এই সংক্রান্ত দুটি মামলার ভবিষ্যতই অনিশ্চিত। বিচারক স্পষ্ট জানিয়েছেন, সারদার মতো হাইপ্রোফাইল মামলার সম্পূর্ণ নথিপত্র না দেখে কোনওভাবেই শুনানি সম্ভব নয়। সূত্রের খবর, আজও আলিপুর আদালতে যাবেন সিবিআই আধিকারিকরা।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement