BREAKING NEWS

২৩ শ্রাবণ  ১৪২৭  রবিবার ৯ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

স্কুল বন্ধ হবে না, জি ডি বিড়লা কাণ্ডে রাজনীতিতে আপত্তি মমতার

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: December 5, 2017 10:17 am|    Updated: September 20, 2019 7:46 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জি ডি বিড়লা কাণ্ডে রাজনীতির অনুপ্রবেশ নিয়ে সুর চড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর অভিযোগ, এই ঘটনাকে কাজে লাগিয়ে কেউ কেউ ঘোলা জলে মাছ ধরার চেষ্টা করছে। গণ্ডগোল পাকিয়ে স্কুল বন্ধ করে দিতে চাইছে। মুখ্যমন্ত্রীর সাফ কথা, ‘জেনে রাখুন, স্কুল বন্ধ হবে না। বাচ্চারা পড়াশোনা করবে। যাঁরা স্কুল বন্ধ করতে চাইছে, তাঁদের নজরে রাখতে হবে।’

[অভিভাবকদের আন্দোলন বানচাল করতে জি ডি বিড়লায় ‘বহিরাগত’!]

দক্ষিণ কলকাতার জি ডি বিড়লা স্কুলে চার বছরের এক শিশুকে যৌন হেনস্তার প্রতিবাদে আন্দোলনে নেমেছেন অভিভাবক। অভিযোগ, নার্সারির ওই পড়ুয়াকে শৌচাগারে নিয়ে গিয়ে যৌন হেনস্তা করেছে স্কুলেরই দুই শিক্ষক। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। অভিভাবকরা চাইছেন, জি ডি বিড়লা স্কুলের প্রিন্সিপাল পদত্যাগ করুন। তাঁকেও গ্রেপ্তার করা হোক। এই দাবিতে স্কুলে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন অভিভাবকরা। সোমবার টালিগঞ্জে রাস্তা অবরোধও হয়। স্কুল অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ হয়ে গিয়েছে। কিন্তু, ঘটনা হল, অভিভাবকদের আন্দোলনে রাজনীতির ছোঁয়া লেগেছে। সোমবার জি ডি বিড়লা স্কুলে গিয়েছিলেন বিজেপি নেত্রী রূপা গঙ্গোপাধ্যায়। আক্রান্ত শিশুটির মায়ের সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছিলেন তিনি। যদিও অভিভাবকরা তাঁকে দেখা করতে দেননি। পরে প্রিন্সিপালকে গ্রেপ্তারের দাবিতে স্কুলে অবস্থান বিক্ষোভে বসেন রূপা। বিক্ষোভকারীদের পাশে দাঁড়াতে স্কুলে গিয়েছিলেন এ রাজ্যে বিজেপির মহিলা মোর্চার সভানেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়ও। জি ডি বিড়লা কাণ্ডের শেষ দেখে ছাড়বেন বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি। আর এতেই আপত্তি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

[গোয়েন্দাদের জেরায় ভেঙে পড়লেন ‘ডাকাবুকো’ প্রিন্সিপাল শর্মিলা

মঙ্গলবার নজরুল মঞ্চে রাজ্যে সংখ্যালঘু পড়ুযাদের বৃত্তিপ্রদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। অনুষ্ঠানে দেড় লক্ষ পড়ুয়াদের হাতে রাজ্য সরকারের তরফে বৃত্তি তুলে দেন তিনি। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘জি ডি বিড়লা স্কুলে যা ঘটেছে, তা ঠিক নয়। শিক্ষকরা আমাদের অভিভাবক। তাই তাঁদের আরও দায়িত্ব নিতে হবে। বিশেষ করে কো-এড স্কুল ও সিবিএসসি স্কুলের সকলেই দায়িত্ব নিতে হবে। এক, দু’জন খারাপ হতে পারে। সবাই দোষী নয়। কিন্তু, কেউ কেউ এই সুযোগে ঘোলা জলে মাছ ধরতে চাইছে। গণ্ডগোল পাকিয়ে স্কুল বন্ধ করে দিতে চাইছে। স্কুল বন্ধ হবে না। বাচ্চারা পড়াশোনা করবে।’ সংবাদমাধ্যমের প্রতি মুখ্যমন্ত্রীর পরামর্শ, ‘লাগাতার খারাপটা না দেখিয়ে, ভাল কিছু দেখান।’

[ছাত্রীদের সঙ্গে অভব্য আচরণ করলেই জানিয়ে দেবে নয়া যন্ত্র]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement