৯ ফাল্গুন  ১৪২৬  শনিবার ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

অর্ণব আইচ: হাজার, লক্ষ টাকা নয়, কলকাতায় উদ্ধার একেবারে ১০৫ কোটি টাকার মাদক। এসটিএফ-এর হাতে গ্রেপ্তার দুই পাচারকারী। জুবের এবং মৌলানা ফয়াজউদ্দিন নামে ধৃত দু’জন যথাক্রমে উত্তরপ্রদেশ ও মণিপুরের বাসিন্দা বলে গোয়েন্দা সূত্রে খবর। সোমবার গভীর রাতে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে টালার পাইকপাড়ায় তল্লাশি চালিয়ে ২৫ কেজির বেশি হেরোইন উদ্ধার করেছে এসটিএফ। যার বাজারমূল্য ৭৫ থেকে ১০৫ কোটি টাকা। আজ ধৃতদের ব্যাংকশাল আদালতে পেশ করা হবে।

শহরে বসে যে বড়সড় মাদক পাচার চক্র চলছে, তা আগে বেশ কয়েকজনের গ্রেপ্তারিতেই নিশ্চিত হয়েছিলেন গোয়েন্দারা। সেইমতো অপারেশনে নামে কলকাতা পুলিশের এসটিএফ-এর একটি দল। সোমবার রাত দেড়টা নাগাদ টালা থানা এলাকার পাইকপাড়ায় একটি বাড়িতে হানা দিয়ে হাতেনাতে দু’জনকে ধরে ফেলেন তদন্তকারীরা। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে সাড়ে পঁচিশ কেজি হেরোইন। আন্তর্জাতিক বাজারে যার মূল্য ৭৫ থেকে ১০৫ কোটি টাকা। এসব দেখে তদন্তকারীদেরও চোখ কপালে ওঠার জোগাড়। তাঁরা জানিয়েছেন, শুধু কলকাতারই নয়, এত পরিমাণ হেরোইন উদ্ধার গোটা উত্তর-পূর্ব ভারতের মাদক পাচার বিরোধী পুলিশি অভিযানের বড় সাফল্য।

[আরও পড়ুন: CAA’র পক্ষে জনসম্পর্ক অভিযানে পুরভোটের আগে লাভ হবে, মনে করছে বিজেপি]

গ্রেপ্তার হয়েছে উত্তরপ্রদেশের বাহরাইচের বাসিন্দা বছর চল্লিশের জুবের এবং মণিপুরের থৌবলের বাসিন্দা ৪৯ বছরের মৌলানা ফয়াজউদ্দিন। জুবের কাছ থেকে ২০ কেজি এবং ফয়াজউদ্দিনের কাছে সাড়ে পাঁচ কেজি হেরোইন উদ্ধার হয়েছে। সূত্রের খবর, এই জুবের এবং ফয়াজউদ্দিন কলকাতায় এসে ছদ্মবেশে থাকছিল। জুবের ওই এলাকায় হকারি করত। এরা নিজেরাও নিজেদের মধ্যে মাদক কেনাবেচা করত। দু’জনের দুই এলাকার ক্রেতাদের চাহিদা এবং মাদকের গুণাগুণের বিচার করে একে অপরের কাছে বিক্রি করে। এদের বিরুদ্ধে NDPS-এর মামলা রুজু করা হয়েছে। আজ ব্যাংকশাল আদালতে পেশ করে নিজেদের হেফাজতে তাদের নেওয়ার আবেদন জানাবে পুলিশ। কলকাতায় বসে কতদিন ধরে তারা এই ব্যবসা চলছে, এই চক্রের সঙ্গে আরও কে কে জড়িত, এসব জানার চেষ্টায় রয়েছেন এসটিএফ-এর গোয়েন্দারা। তবে এত মোটা অঙ্কের মাদক উদ্ধারের ঘটনায় পুলিশ মহলে অনেকেই বিস্মিত।

[আরও পড়ুন: চিকিৎসকের ভুলে ডান হাত বাদ গেল নিউমোনিয়া আক্রান্ত বধূর, কাঠগড়ায় হাসপাতাল]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং