২৮ কার্তিক  ১৪২৬  শুক্রবার ১৫ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়: প্রেমিককে সঙ্গে নিয়ে পিসির বাড়িতে হামলা। পিসতুতো দিদি এবং বাড়ির পরিচারিকাকে বটি দিয়ে কোপ। তারপর লক্ষাধিক টাকা লুঠ করে নিয়ে চম্পট। অনেকটা সিনেমার চিত্রনাট্যের মতো এই কাহিনী। এমনটাই ঘটেছে হরিদেবপুরের এক আবাসনে। চম্পাহাটির এক যুবতী ওই আবাসনে বসবাসকারী তাঁরা পিসির বাড়িতে হামলা চালায়। সঙ্গে ছিল তাঁর প্রেমিক।


হরিদেবপুরের ডায়মন্ড পার্ক নামের এক অভিজাত আবসনে থাকেন অরূপ কুমার দাস নামের এক চিকিৎসক। বুধবার দুপুরে তিনি বাড়িতে ছিলেন না। বাড়িতে ছিলেন তাঁর যুবতী মেয়ে শালমণি দাস এবং বাড়ির পরিচারিকা কল্পনা। শালমণির সঙ্গে তাঁর মামাতো বোনের খুব ভাল সম্পর্ক ছিল। সমবয়সী হওয়ায় তাঁরা বন্ধুর মতোই আচরণ করতে। মাঝেমাঝেই দিদির টানে পিসির বাড়িতে ছুটে আসত চম্পাহাটির এক যুবতী।

[আরও পড়ুন: প্রতিশ্রুতি রাখেনি সরকার! প্রাথমিক শিক্ষকদের বিক্ষোভে ধুন্ধুমার বাঘাযতীনে]


অভিযোগ, মঙ্গলবার দুপুরেও তেমনই পিসির বাড়িতে আসে সে। সঙ্গে ছিল তার প্রেমিক যুবক। বাড়িতে এসে কলিং বেল বাজায় তারা। সেসময় স্নান করছিলেন শালমণি। বেলের আওয়াজ পেয়ে দরজা খোলেন পরিচারিকা কল্পনা। দরজা খুলতেই আকস্মাৎ কল্পনার উপর বটি নিয়ে চড়াও হয় যুবতীর প্রেমিক। পরিচারিকার আর্তনাদ শুনে বাথরুম থেকে ছুটে আসেন শালমণিও। তার উপরও চড়াও হয় ওই যুবতী ও তাঁর প্রেমিক। তাঁকেও বটি দিয়ে আঘাত করা হয়। এরপর দেড় লক্ষ টাকার নগদ এবং আড়াই লক্ষ টাকার সোনা লুট করে নিয়ে পালায়।

[আরও পড়ুন: জুনিয়র চিকিৎসককে মারধরের অভিযোগ, কর্মবিরতি কলকাতা মেডিক্যালে]

আপাতত গুরুতর আহত অবস্থায় শালমণি এবং পরিচারিকা কল্পনা একটি নার্সিং হোমে ভরতি আছেন। এদের মধ্যে কল্পনার অবস্থা আশঙ্কাজনক। আবাসনের সিসিটিভি দেখে পুরো ঘটনা বোঝার চেষ্টা করছে পুলিশ। দ্রুত ঘটনার সুরাহা করার ব্যপারে আশাবাদী পুলিশ।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং