২২ আষাঢ়  ১৪২৭  মঙ্গলবার ৭ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

‘বিজেপির অপপ্রচারের বিরুদ্ধে ২৯৪ কেন্দ্রে পালটা প্রচারের নির্দেশ মমতার’, জানালেন পার্থ

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: June 6, 2020 5:25 pm|    Updated: June 6, 2020 5:27 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা-আমফানের মতো সংকটজনক পরিস্থিতিকে হাতিয়ার করে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচারে নেমেছে বিজেপি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিপুল কাজকে খাটো করে দেখানোর ক্রমাগত প্রচেষ্টা চলছে। দুঃসময়ে রাজনীতি করতে ঝাঁপিয়ে পড়েছে। এমনই একাধিক অভিযোগ তুলে আজ সাংবাদিক সম্মেলনে বিজেপিকে ফের কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন শিক্ষামন্ত্রী তথা তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়।সেইসঙ্গে জানালেন, বিজেপির এই অপপ্রচারের বিরুদ্ধে রাজ্যের ২৯৪টি কেন্দ্রেই পালটা প্রচারে নামবে তৃণমূল। তার রূপরেখা নিজে ঠিক করে দিয়েছেন দলের সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বিজেপি নেতাদের সাম্প্রতিক মন্তব্যে স্পষ্ট যে রাজ্যের মমতা সরকারের ভূমিকা খাটো করে দেখানোই তাঁদের লক্ষ্য। এমনই মতো পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের। তাঁর আরও অভিযোগ, করোনা মোকাবিলায় বাংলা নিজে যেভাবে লড়ছে, সেই কৃতিত্ব স্বীকার না করে একাধিক উলটে অপপ্রচার করেছে বিজেপি। ইচ্ছে করে বাংলায় ত্রুটিপূর্ণ টেস্ট কিট পাঠানো হয়েছে। তারপরও বাংলায় করোনায় মৃত্যুর হার অনেক কম বলে দাবি তাঁর।

[আরও পড়ুন: ‘আমফানের ক্ষতিপূরণের টাকা লুঠ করছে তৃণমূল’, কেন্দ্রীয় দলের কাছে অভিযোগ দিলীপের]

আমফান পরিস্থিতিতেও বিজেপির বিরুদ্ধে হীন রাজনীতির অভিযোগে সরব হয়েছেন তৃণমূল মহাসচিব। তাঁর কথায়, দুর্যোগ সামলাতে প্রধানমন্ত্রী ১০০০ কোটি টাকা দিয়ে চলে গেলেন, তবে বিজেপি নেতারা কিন্তু এ নিয়ে রাজনীতি করতে ছাড়ছেন না। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যের মানুষের পাশে দাঁড়ানো, ভরসা দেওয়াটাই দস্তুর, রাজনীতি করা নয়। এই কঠিন সময়েও রাজ্য সরকার সর্বশক্তি দিয়ে পুনর্গঠনের চেষ্টা করেছে, মানুষ যাতে সমস্যায় না পড়েন, সেদিকে সদা নজর রাখছে। অথচ এসব কিছুই বিজেপির নজরে পড়ছে না বলে অভিযোগ পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের।

[আরও পড়ুন: আলিপুর আদালতে করোনার থাবা, ২ বিচারকের শরীরে ভাইরাস সংক্রমণ]

সুপার সাইক্লোনের সপ্তাহ দুয়েক পেরিয়ে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল রাজ্যে এসেছে পরিস্থিতি পরিদর্শনে। গত দু দিন ধরে তাঁরা নিজেরা দুর্গত এলাকাগুলি খতিয়ে দেখেছেন। নবান্নে মুখ্যসচিবের সঙ্গে বৈঠক করে রিপোর্ট নিয়েছেন। বিজেপি এই প্রতিনিধিদলের সঙ্গে দেখা করেও রাজ্যের ভূমিকা নিয়ে অভিযোগের সুর তুলেছে বলে এদিনের সাংবাদিক বৈঠকেও বলেন শিক্ষামন্ত্রী। তবে এবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশমতো, বিজেপির এসব অপপ্রচারের বিরুদ্ধে তৃণমূলও যে কোমর বেঁধে পালটা প্রচারে নামছে, সে কথা গুরুত্ব দিয়ে জানালেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement