২২ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  সোমবার ৯ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

কলহার মুখোপাধ্যায়: দিনে দুপুরে লেকটাউনের জমজমাট এলাকার তৃণমূল পার্টি অফিসে দুষ্কৃতী হামলা, আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে তাণ্ডব। ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ল এলাকায়।প্রত্যক্ষদর্শীরা জানাচ্ছেন, দুপুর দেড়টা নাগাদ দক্ষিণ দমদম পুরসভায় ৩০ নং ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর মানসরঞ্জন রায়ের কার্যালয়ে আসে একদল দু্ষ্কৃতী। প্রায় শ খানেক বাইক নিয়ে আসে তারা, সকলের হাতে ছিল আগ্নেয়াস্ত্র।
লেকটাউন গার্লস হাই স্কুলের ঠিক উলটোদিকেই স্থানীয় কাউন্সিলর মানসরঞ্জন রায়ের কার্যালয়। স্থানীয় সূত্রে আরও খবর, এদিন দুপুরে কার্যালয়ের কাছে গিয়ে দুষ্কৃতীরা দরজা ভেঙে ভিতরে ঢুকে ভাঙচুর শুরু করে। টেবিল, চেয়ার, দলীয় পতাকা সমস্ত ছিঁড়ে দেওয়া হয়। ঘর পুরোপুরি লন্ডভন্ড হয়ে যায়। ঘটনার সময়ে নিজের কার্যালয়ে ছিলেন না কাউন্সিলর। খবর পেয়ে তিনি পার্টি অফিসে যান এবং তছনছ করা অবস্থা দেখে কার্যত ভেঙে পড়েন। কে বা কারা এধরনের আচমকা তাণ্ডব চালাল, সে বিষয়ে কিছু আন্দাজ করতে পারছেন না কাউন্সিলর। লেকটাউন থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: ছিল না লাইসেন্স-ফিট সার্টিফিকেট, চিৎপুরে স্কুলবাস দুর্ঘটনায় চাঞ্চল্যকর তথ্য]

দক্ষিণ দমদম পুর এলাকার লেকটাউনের যে এলাকায় তৃণমূল কাউন্সিলরের এই কার্যালয়, তা বেশ জমজমাট। দিনেদুপুরে এভাবে বাইক নিয়ে এতজন দুষ্কৃতীকে আসতে দেখে স্বভাবতই ভয় পেয়ে যান পথচারীরা। তাঁদের সঙ্গে আগ্নেয়াস্ত্র থাকায় আতঙ্ক আরও বাড়তে থাকে। কার্যালয়টি যেভাবে ভাঙচুর করা হয়, তা দেখে কার্যত তাজ্জব স্থানীয়রা। ঘটনার পিছনে যে রাজনৈতিক কারণই রয়েছে, সে বিষয়ে তাঁরা একেবারেই নিশ্চিত। নিজেদের নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েন তাঁরা। কিন্তু কারা এমনটা করল, কেনই বা করল, তা বুঝে উঠতে পারছেন না কেউই। ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। ঘটনাটি নিয়ে রাজ্যের শীর্ষ নেতৃত্বের দৃষ্টি আকর্ষণ করবেন বলে জানিয়েছেন কাউন্সিলর মানসরঞ্জন রায়।

[আরও পড়ুন: নিউটাউনে ভয়াবহ পথ দুর্ঘটনার কবলে গাড়ি, বেপরোয়া গতির বলি তিনজন]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং