Advertisement
Advertisement
মুখ্যমন্ত্রী

আরও ১২০টি ট্রেনে পরিযায়ী শ্রমিকদের আনা হবে, বড় ঘোষণা মমতার

বিজেপির বিরুদ্ধে রাজনীতি করার অভিযোগে সরব মুখ্যমন্ত্রী।

WB CM announces 120 more trains for migrants workers
Published by: Paramita Paul
  • Posted:May 18, 2020 4:55 pm
  • Updated:May 18, 2020 5:09 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরাতে আপ্রাণ চেষ্টা করছে রাজ্য। তাঁদের ফেরাতে আরও ১২০টি ট্রেন চাওয়া হবে। সোমবার বড় ঘোষণা করলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একইসঙ্গে তাঁর অভিযোগ, পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে কিছু রাজনৈতিক দল স্রেফ রাজনীতি করছেন। মুখ্যমন্ত্রীর  কথায়, “আপনারা ক্ষমতায় না থাকলেও রাজ্যের প্রতি আপনাদেরও দায়িত্ব আছে। সেটা সঠিকভাবে পালন করুন।” একইসঙ্গে কেন্দ্রের আর্থিক প্যাকেজকেও কটাক্ষ করেন তিনি। তাঁর কথায়, ‘কেন্দ্রের আর্থিক প্যাকেজ আদপে অশ্বডিম্ব’। 

পরিযায়ী শ্রমিকদের রাজ্যে ফেরানো নিয়ে কয়েকদিন ধরেই রাজ্য রাজনীতি উত্তাল। কেন্দ্র ও রাজ্যের বিরোধী দলগুলি বারবার অভিযোগ করেছে, পরিযায়ী শ্রমিকদের রাজ্যে ফেরাতে সরকার উপযুক্ত ব্যবস্থা নিচ্ছে না। এমনকী, ঘরে ফিরতে সেই শ্রমিকদের ট্রেনের ভাড়া মেটাতে হচ্ছে। এরপরই রাজ্য জানায়, ট্রেনের ভাড়া মেটাবে রাজ্য। এদিন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, “১০০টি ট্রেন বুক করা হয়েছে। এছাড়াও ১৫টি ট্রেন এসেছে।আগামী দু-তিনদিনের মধ্যে আরও ১২০ টি ট্রেন চাইব। সমস্ত খরচ দেবে রাজ্য। মোট ২৩৫ টি ট্রেন আসবে। কেউ রাজ্যের সীমানায় এলে খবর দিন। তবে সন্ধে বেলা আসবেন না। কেন্দ্র কারফিউ জারি করেছে।” পরিযায়ী শ্রমিকদের প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে নাম না করেই বিজেপিকে তুলোধনা করেন মুখ্যমন্ত্রী।

Advertisement

[আরও পড়ুন : দেহ রাখার জায়গা নেই মেডিক্যালের মর্গে, ম্যানেজমেন্টের দায়িত্বে অতিরিক্ত সুপার নিয়োগ]

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথায়, “বিরোধী দলগুলি শুধু বিরোধিতা করছে। ওঁদের লজ্জা নেই। শুধু বলছে, লক্ষ-লক্ষ মানুষ ফিরছে। বাসের ব্যবস্থা করুন। ট্রেনের ব্যবস্থা করুন। নিজেরাও কিছু দায়িত্ব নিন না।” একইসঙ্গে দিন কেন্দ্রের আর্থিক প্যাকেজকে ‘অশ্বডিম্ব’ বলে কটাক্ষ করেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর কথায়, “গত কয়েকদিন ধরে শুধু প্রতিশ্রুতি দেওয়া হল। কেন্দ্রের অনুদান পেতে গেলে যুক্তরাষ্ট্রিয় কাঠামো ভাঙতে হবে। আমি মানবিকতার রাজনীতি করি। তাই এই নিয়ম মানব না।” এদিন মুখ্যমন্ত্রী আরও অভিযোগ করেন, “বাংলার নামে বদনাম করা হচ্ছে। নিজেরা অশান্তি করে, বাংলার ঘাড়ে দোষ চাপানো হচ্ছে।”

Advertisement

[আরও পড়ুন : স্বামীর মুখাগ্নি নিয়ে তুমুল বিবাদ দুই সতীনের, সমস্যা মেটালেন সাংসদ মালা রায়]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ