BREAKING NEWS

২৯ শ্রাবণ  ১৪২৭  শনিবার ১৫ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

‘বিজেপি যেন মনে রাখে এটা উত্তরপ্রদেশ নয়’, সাফ কথা পার্থর

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 23, 2018 5:22 pm|    Updated: October 31, 2018 1:40 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মনোনয়নের অতিরিক্ত দিনেও রাজ্য জুড়ে অশান্তির আঁচ। উত্তপ্ত সিউড়ি। প্রাণ যায় এক রাজনৈতিক কর্মীর। তা নিয়ে শাসক-বিরোধী তরজা চলছে। অশান্তির জন্য একযোগে পুলিশ-প্রশাসন ও শাসকদলকে কাঠগড়ায় তুলেছে বিরোধীরা। পালটা দিলেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও। তাঁর সাফ কথা, বিজেপি যেন মনে রাখে এটা পশ্চিমবঙ্গ, উত্তরপ্রদেশ নয়।

 মনোনয়নের নামে প্রহসন চলছে, মমতাকে কাঠগড়ায় তুলে তোপ মুকুলের ]

আদালতের নির্দেশেই মনোনয়নে বাড়তি একটা দিন ধার্য হয়েছিল। কিন্তু সেদিনও জেলায় জেলায় অশান্তি। তা নিয়ে ক্ষুব্ধ পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তাঁর দাবি, বিরোধীরা নানা অছিলায় ভোট বিলম্বিত করছে। মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকারকে ক্ষুণ্ণ করছে। সেই সঙ্গে গ্রামীণ অর্থনীতির উপরও আঘাত হানছে। তারপরই তাঁর মন্তব্য, “বিজেপি যেন মনে না করে যে, এটা উত্তরপ্রদেশ। এখানে সাম্প্রদায়িক বিভেদের চেষ্টা করা হলেও তা কার্যকর হবে না। কারণ পশ্চিমবঙ্গের ঐতিহ্য আছে। এখানে সব ধর্মের মানুষ শান্তিতে বাস করে।” তাই গণ্ডগোল বাধিয়ে এখানে অনর্থ সৃষ্টি করার চেষ্টা বৃথা বলেই দাবি তাঁর।

[  মনোনয়নের অশান্তিতে আক্রান্ত সংবাদমাধ্যম, সাংবাদিকরা নিখোঁজ হওয়ায় চাঞ্চল্য ]

রাজ্যের এই অশান্তির জন্য পালটা বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে কাঠগড়ায় তোলেন পার্থ। তাঁর প্রশ্ন, “পঞ্চায়েতের গোড়া থেকে রাজ্য সভাপতি যে ভাষায় কথা বলছেন, তার জন্য কেন তাঁকে কিছু বলা হচ্ছে না? কখনও বলছেন শ্মশানে দেখা হবে তো কখনও বলছেন অনাথ করে দেওয়া হবে।” ক্ষুব্ধ পার্থবাবু বলেন, এভাবে তো হার্মাদরাও কথা বলে না। পরিকল্পিতভাবে ভোট বানচাল করতে বিরোধীরা আসরে নেমেছে বলেই অভিযোগ তাঁর। তাঁর দাবি, “১১টায় মনোনয়ন শুরু হওয়ার আগেই বিরোধীরা গিয়ে পিটিশন দাখিল করছে আদালতে। বলছে, প্রশাসন-পুলিশের জন্য মনোনয়ন জমা দিতে পারছে না। এসবের অর্থ কী? আমাদেরও পাঁচজন কর্মী খুন হয়েছেন। এদিকে বিরোধীরা বলছেন মনোনয়ন জমা দিতে পারছেন না। ২৭ শতাংশ আসনে আমরা নাকি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতে গিয়েছি। আমার প্রশ্ন, এই দাবিই যদি সত্যি হয় তাহলে ৭৩ শতাংশ আসনে বিরোধীরা মনোনয়ন জমা দিতে পেরেছে তা তো সত্যি। কই সেখানে তো গণ্ডগোলের অভিযোগ ওঠেনি!” পার্থবাবুর দাবি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নে ভীত হয়েই বিরোধীরা এখন ভোট বিলম্বিত করতে এই পরিকল্পনা নিয়েছে। জেলায় জেলায় প্রার্থী দিতে না পেরেই বিরোধীরা মনোনয়ন জমা দিতে না পারার অভিযোগ করছেন বলে দাবি তাঁর। সেইসঙ্গে বিরোধীরা কমিশন ও আদালতকেও বিভ্রান্ত করছে বলেই জানালেন তৃণমূলের মহাসচিব।

 ‘রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন জারির অবস্থা’, দিলীপের দাবির পালটা ফিরহাদের ]

 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement