BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

করোনার জেরে এবার ছুটি বিধায়কদেরও! বুধবার থেকে স্থগিত রাজ্য বিধানসভার অধিবেশন

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: March 16, 2020 2:06 pm|    Updated: March 16, 2020 2:06 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা(coronavirus) আতঙ্কের জেরে এবার রাজ্য বিধানসভার অধিবেশনও অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত হতে চলেছে। সোমবার বিধানসভায়(West Bengal Legislative Assembly) করোনা নিয়ে সর্বদল বৈঠক করেন পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সেই বৈঠকেই সিদ্ধান্ত হয়, আজ এবং আগামিকালের মধ্যে যাবতীয় জরুরি কাজ মিটিয়ে ফেলতে হবে এবং বুধবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করে দিতে হবে অধিবেশন।

Corona
উল্লেখ্য, করোনার সংক্রমণ রুখতে সমস্তরকম জমায়েত এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। ইতিমধ্যেই কেন্দ্রের তরফে রাজ্যগুলিকে নোটিস পাঠিয়ে যতটা সম্ভব জমায়েত এড়িয়ে চলার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। কেন্দ্রের সেই পরামর্শ মেনে ইতিমধ্যেই একাধিক রাজ্যের বিধানসভার অধিবেশন পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। তালিকায় নাম রয়েছে বিহার, ছত্তিশগড়, রাজস্থান, মহারাষ্ট্রের। মধ্যপ্রদেশের টালমাটাল রাজনৈতিক পরিস্থিতির মধ্যও ১০দিনের জন্য স্থগিত করে দেওয়া হয়েছে বিধানসভার অধিবেশন।

[আরও পড়ুন: করোনার প্রভাবে পিছোচ্ছে পুরভোট? চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে কমিশনে আজ সর্বদল বৈঠক]

এই পরিস্থিতিতে সোমবার করোনা নিয়ে আলোচনার জন্য বৈঠক ডাকেন পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। বৈঠকে বাম-কংগ্রেস এবং বিজেপির প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। সেখানেই ঠিক করা হয় বুধবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিধানসভার অধিবেশন স্থগিত করে দেওয়া হবে। তার আগে যাবতীয় জরুরি কাজকর্ম সোম ও মঙ্গলবারের মধ্যে মিটিয়ে ফেলতে হবে। এদিকে, করোনার জেরে হাওড়া এবং কলকাতার পুরভোট পিছিয়ে যাওয়াটা একপ্রকার নিশ্চিত।বিজেপি এবং তৃণমূল একযোগে কমিশনের কাছে ভোট পিছিয়ে দিতে আবেদন করেছে। কমিশনও ভোটের জন্য বিকল্প তারিখ ভাবতে শুরু করেছে। সূত্রের খবর, রমজানের পরেই দুই পুরসভার নির্বাচন হতে পারে।

[আরও পড়ুন: করোনা মোকাবিলায় প্রস্তুত রাজ্য, রাজারহাটে তৈরি কোয়ারেন্টাইন কেন্দ্র]

উল্লেখ্য, গোটা দেশে ইতিমধ্যেই ১১৮ জন করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন। এঁদের মধ্যে ২ জনের মৃত্যুও হয়েছে। এরাজ্যে এখনও করোনার সংক্রমণের খবর না মিললেও সতর্কতামূলক একাধিক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে সরকার। হাসপাতালগুলিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে আলাদা আইসোলেশন ওয়ার্ড তৈরি করার। ছুটি দিয়ে দেওয়া হয়েছে রাজ্যের সব স্কুল, কলেজ। এবার পড়ুয়াদের মতো বিধায়করাও অনির্দিষ্টকালের জন্য ছুটি পাচ্ছেন।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement