BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনা আবহে কোন কোন ফি নেওয়া যাবে না? স্কুল কর্তৃপক্ষকে কড়া নির্দেশিকা রাজ্যের

Published by: Sayani Sen |    Posted: July 22, 2020 10:00 am|    Updated: July 22, 2020 10:06 am

An Images

সন্দীপ চক্রবর্তী: লকডাউনের (Lockdown) ফলে নতুন শিক্ষাবর্ষে বেসরকারি স্কুলের বহু পড়ুয়াই আর স্কুলমুখো হয়নি। আপাতত অনলাইনেই ক্লাস চলছে তাদের। তবে তা সত্ত্বেও টিউশন ফি ছাড়া অন্যান্য সমস্ত ফি-ই নেওয়া হচ্ছে। তার ফলে অভিভাবকদের উপর তৈরি হচ্ছে অযাচিত চাপ। অভিভাবকদের দাবি, টিউশন ফি ছাড়া কিছুই দেবেন না তাঁরা। তবে তাঁদের দাবি মানতে নারাজ বেশিরভাগ স্কুল কর্তৃপক্ষ। এবার অভিভাবকদের পাশে দাঁড়াল রাজ্য সরকার।

মঙ্গলবারের ওই নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে, পরিবহণ, কম্পিউটার ল্যাব, লাইব্রেরি ফি নেওয়া যাবে না। স্কুলের পক্ষ থেকে যতটুকু পরিষেবা দেওয়া হবে ঠিক ততটুকুই ফি নিতে পারবে স্কুলগুলি। কোনও ফি বৃদ্ধি করা যাবে না| অনলাইন ক্লাস থেকে বাদও দেওয়া যাবে না পড়ুয়াদের। কোনও পড়ুয়ার ফি দিতে দেরি হলে তা মানবিকতার সঙ্গে বিচার করতে হবে। জরিমানা চাপিয়ে দেওয়া চলবে না।

School-Notice

[আরও পড়ুন: আমফানের তিন মাস পরেও মেরামত হয়নি শহরের বাসস্ট্যান্ড, আলোহীন পথে দুর্ভোগে যাত্রীরা]

উল্লেখ্য, এর আগেও রাজ্য সরকারের তরফে বারবার বেসরকারি স্কুল কর্তৃপক্ষকে আরও মানবিক হওয়ার বার্তা দেওয়া হয়েছিল। কোনওভাবেই স্কুলের ফি জমা দিতে না পারলে ছাত্রছাত্রীদের অনলাইন ক্লাস করতে না দেওয়ার হুঁশিয়ারি দিতেও বারণ করা হয়েছিল। তবে তাতেও কাজ হয়নি। তবে এবার নির্দেশিকা অমান্য করলে স্কুলগুলির বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে রাজ্যের স্কুল শিক্ষা দপ্তর। কোভিড পরিস্থিতিতে শিক্ষা ব্যবস্থা পরিচালনার জন্য কোনও পরামর্শ বা অন্য কোনও অভিযাগ থাকলে তা আগামী ২৭ জুলাইয়ের মধ্যে স্কুল শিক্ষা দপ্তরের কমিশনারের কাছে জানানোরও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

করোনা পরিস্থিতিতে বহুবার কলকাতার নামজাদা বেসরকারি স্কুলের সামনে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন অভিভাবকরা। বারবার তাঁরা জানিয়েছেন, টিউশন ছাড়া অন্য ফি তাঁরা দেবেন না। তবে স্কুল কর্তৃপক্ষ অভিভাবকদের কথায় কান দেয়নি। পরিবর্তে নিজেদের অবস্থানে অনড় ছিল তারা। রাজ্যের এই সিদ্ধান্ত অভিভাবকদের কার্যত জয় হল বলেই মনে করছেন ভুক্তভোগীরা। রাজ্য সরকারের এই সিদ্ধান্তে বেজায় খুশি তাঁরা।

[আরও পড়ুন: আমফানের ত্রাণের ত্রিপল দিয়ে একুশের সভা শোনার মঞ্চ! বিতর্কে তৃণমূল]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement