১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

দুপুর থেকে সন্ধে পর্যন্ত রাজ্যে খোলা থাকবে মদের দোকান, বিজ্ঞপ্তি আবগারি দপ্তরের

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: May 4, 2020 5:15 pm|    Updated: May 4, 2020 5:21 pm

An Images

তরুণকান্তি দাস: দুপুর বারোটা থেকে সন্ধে সাতটা পর্যন্ত রাজ্যে খোলা থাকবে মদের দোকান। তার মধ্যেই মদ কিনতে পারবেন ক্রেতারা। তবে কেনাবেচার জন্য নির্দিষ্ট নির্দেশিকা জারি করল রাজ্যের আবগারি দপ্তর। সেই নির্দেশিকা অক্ষরে অক্ষরে মেনে তবেই মিলবে মদ। সংক্রামক এলাকায় (Containment Zone) কোনওভাবেই দোকান খোলা যাবে না বলে কড়া নির্দেশ প্রশাসনের।

New-notification-liquor

মদের দোকান খোলা, মদ কেনাবেচা নিয়ে রাজ্যবাসীর অপেক্ষার অন্ত ছিল না। বিভিন্ন জোনে শর্তসাপেক্ষে মদের দোকান খোলায় অনুমোদন দিয়েছিল কেন্দ্র। সেইমতো সোমবার সকাল থেকেই দেশজুড়ে দোকানগুলির সামনে লম্বা ভিড় চোখে পড়েছে। সামাজিক দূরত্ব শিকেয় তুলে ন্যূনতম স্বাস্থ্যবিধিটুকুও মানতে দেখা যায়নি অনেক জায়গায়। এই ভিড় সামাল দিতে হিমশিম দশা পুলিসের। রাজ্যেও সেই একই সমস্যা দেখা গিয়েছে। মদের দোকান খোলা নিয়ে রাজ্যের তরফে কোনও নির্দেশিকা না আসায় কিছুটা বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছিল। অনেকেই বুঝতে পারছিলেন না, কোথায় দোকান খোলা যাবে, কোথায় খোলা যাবে না। ক্রেতা-বিক্রেতাদের পাশাপাশি পুলিশও খানিক সংশয়ে ছিল। সেই কারণে সকাল থেকে বেশ কিছু জায়গা উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এই মদ কেনাকে কেন্দ্র করে। সোমবার বিকেলে, বৈঠকের পর সেই নির্দেশিকা জারি করল রাজ্যের আবগারি দপ্তর।

[আরও পড়ুন: কালীঘাটের মদের দোকানে উপচে পড়া ভিড়, সামাল দিতে লাঠিচার্জ পুলিশের]

বিজ্ঞপ্তিতে গুরুত্বপূর্ণ বেশ কয়েকটি নির্দেশ দেওয়া হয়েছে –

  • সংক্রামক এলাকায় (Containment Zone) কোনওভাবেই কোনও মদের দোকান খোলা যাবে না।
  • অন্যান্য জোনে দুপুর ১২টা থেকে সন্ধে ৭টা পর্যন্ত খোলা থাকবে মদের দোকান।
  • শপিং মল, মার্কেট কমপ্লেক্স অথবা ক্লাবের মধ্যে থাকা মদের দোকান বন্ধই থাকবে।
  • সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসনের অনুমোদন সাপেক্ষে খুলতে হবে দোকান।
  • মদের দোকানে রাখতে হবে স্যানিটাইজার, মাস্ক ছাড়া মদ মিলবে না।
  • এক সময়ে ৫ জনের বেশি লাইনে দাঁড়াতে পারবেন না, প্রত্যেকের মধ্যে ন্যূনতম ৬ ফুট দূরত্ব রাখতে হবে।
  • দোকানের সামনে মদের দামের তালিকা ঝোলাতে হবে।
  • একেকজন ক্রেতা একসঙ্গে ২টির বেশি মদের বোতল কিনতে পারবেন না।

সর্বোপরি, এতদিন পর মদের দোকান খোলায় সুরাপ্রেমীদের ভিড় যে সেখানে উপচে পড়বে, সেই আশঙ্কা রয়েছে। তাই পুলিশকে বারবার সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। যে কোনও জায়গায় ভিড় হলে, পুলিশ যেন তা সামলানোর জন্য আগাম যথাযথ প্রস্তুতি নিয়ে রাখে, সেই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

[আরও পড়ুন: আয়ুর্বেদিক পাঁচনের কামাল, বাহরিনের করোনা রোগী সুস্থ শ্যামবাজারের ওষুধে]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement