BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

রেড রোডে সারা শপথের প্রস্তুতি, বাড়ছে টিকিটের চাহিদা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: May 25, 2016 10:38 am|    Updated: May 25, 2016 10:38 am

An Images

শপথের কর্মকাণ্ড৷ রেড রোডে মঙ্গলবার প্রস্ত্ততির ছবিটি তুলেছেন শুভাশিস রায়৷

দীপঙ্কর মণ্ডল: মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে ফের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন৷ শুক্রবার মমতা ও তাঁর মন্ত্রিসভার সদস্যরা রেডরোডের মঞ্চে শপথ নেবেন৷ শনি ও সোমবার ২৯৪ জন বিধায়ক বিধানসভায় শপথ নেবেন৷ মঙ্গলবার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় সচিব ও আধিকারিকদের সঙ্গে এই নিয়ে বৈঠক করেন৷ শপথ অনুষ্ঠান উপলক্ষে সেজে উঠেছে বিধানসভা৷ এদিন রেড রোডে মঞ্চ পরিদর্শন করেন মুখ্যসচিব বাসুদেব বন্দ্যোপাধ্যায় ও স্বরাষ্ট্র সচিব মলয় দে৷ পরে তাঁরা মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে গিয়ে তাঁর সঙ্গে দেখা করেন৷ রাত পর্যন্ত এদিন অসংখ্য মানুষের সঙ্গে দেখা করেন মমতা৷ ভিআইপিদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষ ফুল, মিষ্টি দিয়ে শুভেচ্ছা জানান মমতাকে৷

রেড রোডে যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করেছে পুলিশ৷ মঞ্চ তৈরি প্রায় শেষ৷ মন্ত্রী ও বিশেষ অতিথিদের জন্য আলাদা বসার জায়গা৷ সাধারণ মানুষের যাতে অনুষ্ঠান দেখতে অসুবিধে না হয় তা নিশ্চিত করছে পুলিশ প্রশাসন৷ কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার-সহ আধিকারিকরা এদিন মঞ্চ পরিদর্শন করেন৷ সভাস্থলে গিয়েছিলেন পূর্ত দফতরের সচিব ইন্দিবর পান্ডে৷ শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার পর বিকেলে নবান্নে্ নতুন সরকারের প্রথম মন্ত্রিসভার বৈঠক হবে৷ পুলিশের তরফে গার্ড অফ অনার দেওয়া হবে মুখ্যমন্ত্রী ও অন্য মন্ত্রীদের৷ সরকারি কর্মীরা নবান্নে মুখ্যমন্ত্রীকে সংবর্ধনা দেবেন৷

মুখ্যমন্ত্রীর হরিশ চ্যাটার্জি স্ট্রিটের বাড়ির সামনে এদিনও থিকথিকে ভিড়৷ স্কুল পড়ুয়া থেকে বয়স্ক মানুষ, সবার সঙ্গেই দেখা করলেন মমতা৷ তৃণমূলের জয়ী এবং কয়েকজন হেরে যাওয়া বিধায়কও এসেছিলেন৷ দলের নেতা-মন্ত্রীরাও উপস্থিত ছিলেন৷ উপস্থিত হাজার হাজার মানুষের মধ্যে মমতা প্রথম দেখা করেন এক সেরিব্রাল পলসি আক্রান্ত স্নাতক ছাত্রীর সঙ্গে৷ মোনালিসা মুখোপাধ্যায় নামে ওই ছাত্রী এসেছিলেন হাওড়ার সালকিয়া থেকে৷ তিনি নেতাজি মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে ইতিহাস সাম্মানিক নিয়ে দ্বিতীয় বর্ষে পড়েন৷ নিজের লেখা কবিতা মুখ্যমন্ত্রীকে উপহার দিলেন হুইল চেয়ারে বসা ছাত্রী৷ মমতা তা গ্রহণ করায় খুশিতে উদ্বেল হয়ে মায়ের সঙ্গে বাড়ি ফিরলেন তিনি৷ এমনই হাসি মুখে বাড়ি ফিরেছেন কলকাতা ও বিভিন্ন জেলা থেকে আসা অগুনতি মানুষ৷ বর্ধমান থেকে সীতাভোগ মিহিদানা নিয়ে এসেছিলেন ব্যবসায়ীরা৷ গঙ্গাসাগরের কপিলমুনির আশ্রমের প্রধান মহন্ত এসেছিলেন মমতার সঙ্গে দেখা করতে৷ তবলা বাদক বিক্রম সেন, ওস্তাদ রশিদ খান, ময়দানের একঝাঁক ক্রীড়া ব্যক্তিত্বের সঙ্গে আলাদা করে দেখা করেন মুখ্যমন্ত্রী৷ পাহাড় থেকে তামাং, লিম্বু ও বুজিল সংগঠনের প্রতিনিধিরা হরিশ চ্যাটার্জি স্ট্রিট থেকে হাসি মুখে ফিরেছেন৷ দেখা করতে আসা প্রত্যেককেই আপ্যায়ন জানিয়েছেন দলের প্রথম সারির নেতা-মন্ত্রীরা৷ অনেকেই তাঁদের প্রিয় দিদির সঙ্গে আলাদা করে দেখা করতে চেয়েছেন৷ তবে তা সম্ভব নয় বলে সবিনয়ে বুঝিয়েছেন নেতারা৷ মমতা বাড়ি থেকে দফায় দফায় বেরিয়ে আগত অতিথিদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন৷ অনেকেই শুভেচ্ছা জানানোর পাশপাশি তাঁদের চাহিদার কথা মুখ্যমন্ত্রীকে জানিয়েছেন৷ হাসিমুখে মমতা তাঁদের জানিয়েছেন, মানুষের জন্য তিনি সবসময় কাজ করেছেন৷ আমৃত্যু মানুষের পাশেই থাকবেন৷

মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার পাশাপাশি শপথ অনুষ্ঠানের ভিআইপি পাসেরও চাহিদা তুঙ্গে৷ সবাই চান মঞ্চের কাছে বসে অনুষ্ঠান দেখতে৷ তৃণমূলের নেতা-মন্ত্রীদের কাছে আবদার আসছে৷ তবে এদিন রাত পর্যন্ত পাস বিলি করা হয়নি৷ মহানগরের কৌতুহলী মানুষ অনুষ্ঠানের আগে থেকেই সভামঞ্চ দেখতে ঢল নামিয়েছেন৷ রাতে রেড রোডে প্রচুর উৎসাহী মানুষকে আসতে দেখা গিয়েছে৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement