BREAKING NEWS

২০ শ্রাবণ  ১৪২৭  বুধবার ৫ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

রাতের কলকাতায় চলন্ত অ্যাপ ক্যাবেই প্রসব মহিলার, পাশে দাঁড়াল বেসরকারি হাসপাতাল

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: November 15, 2019 9:13 am|    Updated: November 15, 2019 9:13 am

An Images

কলহার মুখোপাধ্যায়, বিধাননগর: হাসপাতাল যাওয়ার পথে ট্যাক্সির মধ্যে প্রবল প্রসবযন্ত্রণা। অতঃপর, চলন্ত গাড়ির মধ্যেই প্রসব করলেন এক মহিলা। বৃহস্পতিবার ভোর রাতে নিউটাউনের রাজপথে এই ঘটনা ঘটেছে।

ভাগ্যের জোরে চিনার পার্ক এলাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালের সামনে ঘটনাটি ঘটায় প্রয়োজনীয় চিকিৎসা পেতে অসুবিধে হয়নি এই গৃহবধূর। সদ্য জন্ম নেওয়া শিশুটি এবং তার মাকে হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে প্রসব পরবর্তী চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন চিকিৎসকরা। হাসপাতাল সূত্রে খবর, শিশুটি সুস্থ রয়েছে। তার ওজন প্রায় সাড়ে তিন কেজির মতো হয়েছে। সুস্থ রয়েছেন বাচ্চার মা-ও। প্রয়োজনীয় চিকিৎসার পর শিশু ও তার মাকে নিয়ে আরজিকর হাসপাতালে নিয়ে চলে যান তাঁ পরিবার।

[আরও পড়ুন: প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের দখল নিল এসএফআই, খড়কুটোর মতো উবে গেল বিরোধীরা]

পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, মায়ের নাম সোনি বেগম। তিনি অম্তঃসত্ত্বা থাকাকালীনই আরজিকর হাসপাতালে চিকিৎসা করাচ্ছিলেন। দিন দুয়েক আগে তাঁর হাসপাতালে ভরতি হওয়ার কথা ছিল। পারিবারিক অসুবিধার কারণে দিন দুয়েক দেরি হয়ে যায়। যার ফলস্বরূপ এই বিপত্তি ঘটেছে বলে অনুমান করছে মহিলার পরিবার।

এদিন রাত দেড়টা নাগাদ রায়গাছির বাড়ি থেকে আরজিকরের উদ্দেশে রওনা দেন সোনি বেগম ও তাঁর পরিবারের দুই সদস্য। একটি অ্যাপ নির্ভর ক্যাবে চেপে হাসপাতাল যাচ্ছিলেন। নিউটাউনের রাস্তায় ওঠার পর পরই যন্ত্রণা বাড়তে থাকে সোনি বেগমের। ইকো পার্ক ছাড়ানোর পর তা তীব্র আকার নেয়। আর একটু বাদে চিনার পার্ক পেরনোর পর সোনি প্রায় সংজ্ঞাহীন হয়ে পড়েন। তারপর কিছু রাস্তা এগোনোর পরই প্রসব প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যায়। গাড়ির মধ্যে স্বাভাবিকভাবেই নির্বিঘ্নে প্রসব করেন তিনি। গাড়ি তখন চিনার পার্ক সংলগ্ন হাসপাতালের দরজার সামনে দাঁড়িয়ে। হাসপাতালের এক নিরাপত্তারক্ষী মারফত খবরটি চিকিৎসকদের কানে যায়। তৎক্ষণাৎ হাসপাতালের মেডিক্যাল অফিসার মহিলা ও শিশুকে হাসপাতালের অভ্যন্তরে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা শুরু করেন। বর্তমানে শিশু এবং মা সুস্থ রয়েছেন। তারপর সকালেই মা এবং শিশুকে আরজিকর হাসপাতালে ভরতি করানো হয় পরিবারের লোকজনের তরফে। 

[আরও পড়ুন: কলকাতায় যুবতী গণধর্ষণে নয়া মোড়, দ্বিতীয় ট্যাক্সিতে তুলে টানা ৪০ মিনিট চলে নির্যাতন ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement