BREAKING NEWS

২০ শ্রাবণ  ১৪২৭  বুধবার ৫ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

ভারতে সাইট বন্ধ হওয়ায় কমছে ব্যবসা, কেন্দ্রকে তোপ পর্নহাব কর্তার

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: November 29, 2018 8:35 pm|    Updated: November 29, 2018 8:35 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নীলদুনিয়ার হাতছানিতে গা ভাসানোটা আর সহজ নয় ভারতে। একাকীত্ব কাটাতে যাঁরা পর্নকেই নিজেদের সঙ্গী হিসেবে বেছে নেন, সরকার তাদের দুঃসংবাদ শুনিয়েছে অনেক আগেই। সরকারি নির্দেশে বন্ধ হয়েছে ৮২৭ টি পর্ন সাইট। যার জেরে অলীক সুখ থেকে বঞ্চিত ভারতের লক্ষ লক্ষ পর্নপ্রেমী। তবে শুধু পর্নপ্রেমীরা নন, বঞ্চিতদের তালিকায় আছে পর্ন সাইটগুলিও। ভারতের মতো বড় দেশে ওয়েবসাইট বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ভিউয়ার সংখ্যা একলাফে অনেকটা কমেছে পর্নহাব, এক্সভিডিও-র মতো বড় বড় সাইটগুলির। তাই এবার আসরে নামল তারাও।

[প্লে-স্টোর থেকে ১৩টি জনপ্রিয় অ্যাপ সরিয়ে দিল গুগল, কিন্তু কেন?]

ভারতে পর্ন সাইটগুলি ব্লক করায় ভিউয়ার কমে গিয়েছে। উদ্বেগ বাড়ছে পর্ন সাইটগুলির কর্তাদের। এবার সেই উদ্বেগ সরাসরি প্রকাশ করলেন পর্নহাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট কোরে প্রাইস। কার্যত কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের তীব্র সমালোচনা করেছেন তিনি। তাঁর মতে, “কড়া শর্তাবলী আরোপ করে আসলে সরকার ভারতের মানুষকে আমাদের পরিষেবা থেকে বঞ্চিত করছে। যার ফলে ভারতবাসী ঢলে পড়ছে ঝুঁকিপূর্ণ পর্ন সাইটগুলির দিকে।” ভারতে সাইট বন্ধের জেরে পর্ন হাবের ঠিক কতটা ক্ষতি হয়েছে, তা অবশ্য বলতে চাননি প্রাইস। তবে ওয়েবসাইট ব়্যাংকিং সংস্থা অ্যালেক্সার হিসেবে, বেশিরভাগ পর্ন সাইটেরই ভিউয়ার সংখ্যা উল্লেখযোগ্যভাবে কমেছে। আসলে পর্ন সাইটের দর্শকদের বিচারে বিশ্বের মধ্যে তৃতীয় স্থানে ভারত। স্বাভাবিকভাবেই ভারতে ব্যবসা বন্ধ হয়ে যাওয়া বড় ধাক্কা বিশ্বখ্যাত সাইটগুলির জন্য।

[OMG! বন্ধ হতে চলেছে বিনামূল্যে ইনকামিং কল পরিষেবা!]

একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক ইমেল বার্তায় কোরে প্রাইস বলেন, ‘‘গোপনে পর্নোগ্রাফি দেখার ক্ষেত্রে ভারতে নির্দিষ্ট কোনও আইন নেই। অথচ আমাদের মতো স্বীকৃত সাইটগুলিকে দায়ী করা হচ্ছে।’’ সরকারি সিদ্ধান্তে যে তাঁরা হতাশ তা গোপন করেননি পর্নহাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেন, ‘‘আমাদের সংস্থা সরকারি সেন্সরশিপের বিরুদ্ধে। আমরা সরকারের সঙ্গে মিলেমিশে কাজ করতে চাই। এই সংক্রান্ত কোনও সমস্যা থাকলে তার সমাধান করতে আমরা সরকারকে সাহায্য করতে রাজি।’’ তাঁর মতে ভারতে যেভাবে সাইট ব্লক করা হচ্ছে সেই পদ্ধতি ঠিক নয়। এতে ঝুঁকিপূর্ণ ও বেআইনি বিষয়বস্তু রয়েছে এমন সাইটে ঢুকে পড়তে পারেন ভারতীয়রা। তাতে আরও বেশি ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement