৪ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২১ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

কলহার মুখোপাধ্যায়:  মোবাইল ফোন থেকে বিপদ?

একেবারেই তাই! ফোন যত স্মার্ট হচ্ছে, ততই তৈরি হচ্ছে হ্যাকিংয়ের নতুন নতুন স্মার্ট উপায়। আর, প্রায় সব রকম হ্যাকিংয়েরই নেপথ্যে রয়েছে ব্লু টুথ।
এখন সমস্যা হল, ব্লু টুথ ছাড়া থাকার কথা হালফিলে ভাবাই যায় না। ভাবা উচিতও নয়। প্রযুক্তি যখন আপনার হাতে সুবিধা তুলে দিচ্ছে, তখন সেটা ব্যবহার না করার তো কারণ নেই।
শুধু, সেটা অন্যকে অপব্যবহার করতে না দিলেই হল! জেনে নিন কী ভাবে!

ব্লু জ্যাকিং:
ব্লু টুথের সুবিধা আছে এমন ফোনে নামহীন অবাঞ্ছিত মেসেজ পাঠানো হয়৷ সাধারণত কনট্যাক্ট ডিটেলস বা ইলেকট্রনিক্স বিজনেস কার্ড নিয়ে নেয় ব্লু টুথের মাধ্যমে৷ বিজ্ঞাপনের মেসেজ বা ছবি পাঠায়৷ তাতে ক্লিক করলে ক্ষতিকর ভাইরাস আক্রমণের সমূহ সম্ভাবনা৷ নষ্ট হতে পারে মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম৷

ব্লু সার্ফিং:
ব্লু টুথ ব্যবহারকারীর অজান্তে তার মোবাইল থেকে ল্যাপটপের মাধ্যমে মোবাইলের সিরিয়াল নম্বর সহ যাবতীয় তথ্য চুরি করে নিতে পারে৷

বিপদ থেকে বাঁচার উপায় কী?
১. ব্লু টুথ ইনভিজিবিল মোডে রাখুন৷
২. কোনও অজানা উৎস থেকে কোনও কিছু ডাউনলোড করা থেকে বিরত থাকুন৷
৩. অচেনা কোনও ব্যক্তির কাছ থেকে আসা এমএমএস না খুলেই মুছে ফেলুন৷
৪. মোবাইলে সবসময় পিন কোড দিয়ে রাখুন৷ আর সেটা মনে রাখুন৷ কোথাও লিখে রাখবেন না৷
৫. ডেবিট কার্ড বা ক্রেডিট কার্ডের কোনও তথ্য মোবাইলে সেভ করে রাখবেন না৷
৬. মোবাইল ফোনের আইএমইআই কোড সুরক্ষিত স্থানে লিখে রাখুন৷ আপনার চুরি যাওয়া মোবাইলের ব্যবহার এই কোডের সাহায্যে আটকানো সম্ভব৷
৭. ব্লু টুথের মাধ্যমে অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করা থেকে বিরত থাকুন৷
তবে মাথায় রাখুন, তথ্য-দুষ্কৃতীরা নিত্য প্রতারণার নতুন কায়দা অবলম্বন করছে ফাঁদে ফেলার জন্য৷ তাই প্রযুক্তিগতভাবে আপডেটেড থাকার চেষ্টা করুন৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং