BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

ব্রিদ অ্যানালাইজারে ক্যানসারের জীবাণু ধরার চেষ্টায় কেমব্রিজের গবেষকরা

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: January 4, 2019 5:23 pm|    Updated: January 4, 2019 5:23 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নিঃশ্বাসেই ধরা পড়বে কর্কটের জীবাণু? সেই চেষ্টাই করে চলেছে কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক। মদ্যপদের চিহ্নিত করতে ব্রিদ অ্যানালাইজার যেভাবে ব্যবহার করা হয়ে থাকে, সেভাবেই প্রাথমিক স্তরে ক্যানসারের উপস্থিতি বুঝতে এই পদ্ধতির সাহায্য নেওয়ার কথা ভাবা হচ্ছে। কাজ এগিয়েছেন কিছু দূর। তবে পথ এখনও অনেকটা বাকি।

শ্বাস পরীক্ষার মাধ্যমে ক্যানসার নির্ধারণ নতুন নয়। পেট এবং ফুসফুসে এই মারণরোগ আছে কি না, তা বুঝতে আগেও এই পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়েছে। প্রাথমিক ধাপে যাতে সব ধরনের ক্যানসার ধরা পড়ে ব্রিদ অ্যানালাইজার বা ব্রিদ বায়োপ্সিতে, কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের লক্ষ্য সেটাই। তাঁরা অন্তত ১৫০০ মানুষকে এই পরীক্ষার আওতায় এনেছেন, যাঁদের মধ্যে অনেকে আবার ক্যানসার আক্রান্ত। তাঁদের শ্বাস পরীক্ষার ফলাফল নিয়ে এখন চলছে গবেষণা। পদ্ধতিটি কীরকম? তাও জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। সাধারণত নিঃশ্বাসের সঙ্গে শরীরের যে জৈবরাসায়নিক উপাদান যুক্ত থাকে, ক্যানসার থাকলে, সেই গঠনগত বৈশিষ্ট্য পালটে যায়। যার ফলে গন্ধও বদলায়। আর এই বদলে যাওয়াকেই ব্রিদ অ্যানালাইজারের মাধ্যমে ধরতে চাইছেন বিজ্ঞানীরা। প্রাথমিকভাবে তা চিহ্নিত করতে পারলে, পরবর্তী পরীক্ষার পরামর্শ দেওয়া সম্ভব।

                                            [এইসব সবজিতেই সারবে অ্যালঝাইমার্স-পার্কিনসন্স, বলছে গবেষণা]

ক্যান্সারের মতো জটিল, মারণ রোগ প্রতিরোধে এখনও তেমন যুগান্তকারী আবিষ্কার নেই। অথচ সময়ের সঙ্গে এই রোগে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যাও বাড়ছে বই কমছে না। তাই রোগ নিরাময়ে দ্রুত কোনও সমাধান করা জরুরি। পৃথিবীর নানা প্রান্তে এনিয়ে হাজারও গবেষণা চললেও, কর্কটকে বাগে আনা যাচ্ছে না। কেমব্রিজের এই নতুন গবেষণায় তাই এগিয়ে এসেছেন রোগীরাও। অ্যাডেনব্রুক হাসপাতালে রেবেকা কোল্ডরিক নামে এক মহিলা নিজেই গিয়ে নিঃশ্বাস পরীক্ষা করিয়েছেন। প্রস্টেট, কিডনি, লিভার ক্যানসারে আক্রান্ত রোগীরাও শামিল গবেষণায়। ১০ মিনিট ধরে ব্রিদ অ্যানালাইজারের মাধ্যমে তাঁদের শ্বাস পরীক্ষা চলেছে। নমুনা পাঠানো হয়েছে ল্যাবরেটরিতে। ব্রিটেনের ক্যানসার গবেষণার মূল কর্তা ডক্টর ডেভিড ক্রসবির কথায়, ‘শ্বাস পরীক্ষার মাধ্যমে প্রাথমিক পর্যায়ের ক্যানসার চিহ্নিত করা গেলে, চিকিৎসা সহজতর হবে তো বটেই, সামগ্রিকভাবে চিকিৎসা বিজ্ঞানে এক অভাবনীয় সাফল্য হয়ে উঠবে।‘ এই মুহূর্তে ক্যানসার গবেষণায় সবচেয়ে বেশি উদ্যোগী ব্রিটেন। প্রশাসনিক স্তরে বরাদ্দ হয়েছে প্রচুর অর্থ। সব ঠিকঠাক এগোলে, মারণরোগ নিরাময়ের সঠিক রাস্তা বের করতে হয়তো আর বেশিদিন লাগবে না।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement