BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২০ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

কলকাতায় খুলল একাধিক বিউটি পার্লার-সালোঁ, কতটা সুরক্ষা বিধি মানছেন সবাই?

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: May 31, 2020 6:09 pm|    Updated: May 31, 2020 6:09 pm

An Images

শহরের বুকে একাধিক বিউটি পার্লার তো খুলেছে, কিন্তু কতটা স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ চলছে সেখানে? তা  জানতেই পার্লারে ঢুঁ মারল সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল

পিপিই কিট, মাস্ক, গ্লাভস… আরে, পার্লার না হাসপাতাল? দরজা ঠেলে ঢুকতেই প্রথমটায় এমন মনে হতে পারে আপনার। কিন্তু উপায় কী বলুন? করোনা থেকে বাঁচতে সতর্কতা অবলম্বনই তো একমাত্র পথ। অতঃপর বিউটি পার্লারের কর্মীরাও কোভিডের সঙ্গে লড়তে একেবারে রণসজ্জায় প্রস্তুত হয়েই হাতে কাঁচি, চিরুনি, স্প্রে তুলে নিয়েছেন।

দীর্ঘ ২ মাস লকডাউন। বাড়ির বাইরে বেরোনো বন্ধ। বেড়ানো-আড্ডা-মজলিশ সবই বন্ধ। আর তার পাশাপাশি বন্ধ হয়ে গিয়েছিল রূপচর্চাও। ওই ঘরোয়া পদ্ধতিতে যেটুকু, সেটাই ছিল ভরসা। ফলে, অনেকেরই ত্বক-চুলের দফারফা হয়েছে। তবে চতুর্থ দফার লকডাউনের অন্তিম পর্যায় থেকে গোটা দেশেই যখন একটু একটু করে লকডাউন শিথিল হচ্ছে, তখন বিউটি পার্লারই বা আর বন্ধ থাকে কেন! অতঃপর সরকারি নির্দেশিকা মেনে খাস কলকাতা শহরেও খুলেছে একাধিক পার্লারের দরজা।

বাগুইআটি এলাকারই এক পার্লারে প্রবেশ করতে দেখা গেল এমন দৃশ্য। পিপিই কিট, মাস্ক-গ্লাভস পরে গ্রাহকদের পরিষেবা দিতে ব্যস্ত কর্মীরা। কড়া সতর্কতা অবলম্বন করেই চলছে কাজ। যারা পার্লারে আসছেন, সেসব খদ্দেরদের জন্যেও কড়া নিয়ম বেঁধে দেওয়া হয়েছে। মাস্ক, গ্লাভস পরা অতি আবশ্যক। বাইরে থেকে কেউ এলে সবার প্রথমে তাঁদের থার্মাল চেক-আপ হচ্ছে। এরপর তাঁদের স্যানিটাইজ করে শাওয়ার ক্যাপ, ডিসপোজেবল শিট পরতে দেওয়া হচ্ছে। তাঁরা চলে গেলে তৎক্ষণাৎ সেই জায়গা স্যানিটাইজ করা হচ্ছে। এছাড়া চিরুনি, কাঁচি-সহ যেসব জিনিস ব্যবহার হচ্ছে, প্রত্যেকবার সেগুলো স্যানিটাইজ করা হচ্ছে। জানালেন অ্যাবসোলিউট হেয়ার অ্যান্ড বিউটি ফ্যামিলি সাঁলোর মালিক অনস্মিতা ধর।

[আরও পড়ুন: নেটদুনিয়া কাঁপাচ্ছে করোনা ভাইরাস হেয়ারস্টাইল, আপনিও বাড়িতে একবার চেষ্টা করবেন নাকি?]

তা এই করোনা আবহের মাঝেও কাস্টমাররা কতটা আসছেন? গ্রাহকরা প্রত্যেকেই ভীষণ তুষ্ট আমাদের ব্যবস্থাপনা দেখে। তবে খেয়াল রাখা হচ্ছে সামাজিক দূরত্বের কথাও। ভীড় এড়ানোর জন্য আগেভাগে অ্যাপয়েনমেন্ট নেওয়া হচ্ছে। কিন্তু তবুও ফাঁকা থাকছে না পার্লার। জানা গেল পার্লার থেকেই। উপরন্তু পিপিই কিট, ডিসপোজেবল শিটের যাতে অভাব না পড়ে, তাই সেসব মজুত রাখতে পার্লার থেকে আগেভাগেই ডিস্ট্রিবিউটারের কাছে অর্ডার চলে যাচ্ছে। তবে পার্লারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা হলেও নিজের সাবধানতা কিন্তু একান্ত নিজের কাছেই। আতঙ্কে নয়, সতর্ক থাকাটাই বাঞ্ছনীয়।

[আরও পড়ুন: বিউটি পার্লার বন্ধে ত্বকের দফারফা? গুড়ো দুধের ম্যাজিকেই ফিরে পান ঔজ্জ্বল্য]

 

ছবি ও ভিডিও- পিন্টু প্রধান 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement