৩০ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ধনতেরসে সোনা কিনলে সংসারের শ্রীবৃদ্ধি হবে। এই আশায় বহু মানুষই ভিড় জমান গয়নার দোকানে। কিন্তু এই ধনতেরসে সোনা নয়, তার চেয়ে বরং বিনিয়োগ করুন লোহায়! সোশ্যাল মিডিয়ায় ইতিমধ্যেই উঠেছে #InvestInIron ঝড়। নেটদুনিয়ার এই ট্রেন্ডে গা ভাসাবেন নাকি? তবে তার আগে চলুন জেনে নেওয়া যাক ব্যাপারটা কী?

ধনতেরসে সোনার পরিবর্তে কেন লোহায় বিনিয়োগ করবেন, জানি সেই প্রশ্ন আপনার মনে ঘুরছে। কিন্তু এত ভাবনাচিন্তা ভুলে বরং মহিলাদের শরীরে লোহা বা আয়রনের গুরুত্ব নিয়ে একবার ভেবে দেখুন। সম্প্রতি একটি সমীক্ষায় উঠে আসা তথ্য জানতে পারলে আপনি শিউড়ে উঠবেন। কারণ সমীক্ষার রিপোর্ট বলছে, প্রতি দু’জন মহিলার মধ্যে একজন রক্তাল্পতার শিকার। কারণ, এখনও এ দেশের প্রত্যন্ত বহু গ্রামের মহিলা অপুষ্টিতে ভোগেন। আবার তার উপর ঋতুস্রাব। দু’য়ে মিলে বড়সড় রূপ নেয় রক্তাল্পতা। যা মৃত্যুমুখে ঠেলে দিচ্ছে অনেককেই।

[আরও পড়ুন: সর্বনাশ! কামরাঙার কামড়ে বিকল হচ্ছে আপনার কিডনি]

‘প্রজেক্ট স্ত্রীধন’-এর মাধ্যমে ইতিমধ্যেই প্রচার শুরু হয়েছে। তবে শুধু বাড়ি বাড়ি ঘুরে যে কিছুই হবে না, তা জানেন প্রকল্পের সঙ্গে যুক্ত প্রায় সকলেই। তাই নেটদুনিয়াতেও প্রচার শুরু করেন তাঁরা। #InvestInIron লিখে একটি ভিডিও ফেসবুকে শেয়ার করেছে ‘প্রজেক্ট স্ত্রীধন’। ওই ভিডিওর মাধ্যমে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে মহিলাদের রক্তাল্পতা ঠিক কতটা ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। পরিজনদের পাশাপাশি নিজেই নিজেকে ভালবাসা যে ঠিক কতটা প্রয়োজনীয়, তাও ওই ভিডিওর মাধ্যমে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। ‘প্রজেক্ট স্ত্রীধন’-এর পক্ষ থেকে সমস্ত মহিলাদের কাছে আরজি জানানো হয়েছে, এই ধনতেরসে সোনা কেনার আগে দু’বার ভাবুন। নিজেকে ভাল রাখতে গেলে বিনিয়োগ করুন লোহায়। অর্থাৎ বেশি করে আয়রন জাতীয় খাবার খেয়ে শরীরে বাড়ান রক্ত। নিজেকে সুস্থ রাখুন।

‘প্রজেক্ট স্ত্রীধন’-এর উদ্যোগ ইতিমধ্যেই মন কেড়েছে নেটিজেনদের। ভিউ, শেয়ার ক্রমশই বাড়ছে ওই ভিডিওর। বলিউড তারকারাও এই ভিডিওর প্রশংসা করেছেন। #InvestInIron লিখে ইনস্টাগ্রামে ছবি পোস্ট করেছেন বিদ্যা বালান এবং অনুজা চৌহান। মহিলাদের নিজের শরীরের যত্ন নেওয়ার আবেদন জানিয়েছেন তাঁরাও।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং