২০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  বুধবার ৭ ডিসেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

স্যানিটারি ন্যাপকিনে বিপজ্জনক কেমিক্যাল, ক্যানসারও হতে পারে, চাঞ্চল্যকর দাবি গবেষণায়

Published by: Kishore Ghosh |    Posted: November 22, 2022 8:03 pm|    Updated: November 22, 2022 9:07 pm

A Study Says, High amounts of harmful chemicals found in sanitary napkins sold in India | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতে বিপুল পরিমাণ বিক্রি হওয়া জনপ্রিয় সংস্থার স্যানিটারি ন্যাপকিনগুলিতে (Sanitary Napkin) রয়েছে একাধিক বিপজ্জনক কেমিক্যাল (Dangerous Chemical)। যার সঙ্গে দীর্ঘ সময় সংস্পর্শ ঘটে নারী শরীরের অন্যতম সংবেদনশীল অঙ্গের। এর ফলে ভয়ানক রোগ বাসা বাধাতে পারে মহিলাদের শরীরে। হতে পারে হৃদযন্ত্রের কঠিন অসুখ (Heart Diseases), ডায়বেটিস (Diabetes), এমনকী ক্যানসারের (Cancer) মতো মারণ রোগও। সম্প্রতি এমনটাই দাবি করেছে দিল্লির (Delhi) একদল গবেষক।

সাধারণত পরিবেশ নিয়ে কাজ করে থাকে বেসরকারি সংস্থা টক্সিক লিঙ্ক (Toxic Linc)। সম্প্রতি ‘মেন্সট্রুয়াল ওয়েস্ট ২০২২’ (Menstrual Waste 2022) শিরোনামে একটি সমীক্ষাপত্র প্রকাশ করেছে তারা। সংস্থাটি বাজার চলতি ১০টি ব্র্যান্ডের স্যানিটার ন্যাপকিন নিয়ে কাজ করে। এর মধ্যে চারটি ‘অরগ্যানিক’ (Organic) ও ছ’টি ‘ইনঅরগ্যানিক’ (Inorganic)। সবকটিতেই বিপুল পরিমাণ বিপজ্জনক কেমিক্যালের উপস্থিতি পেয়েছেন গবেষকরা। বিজ্ঞানীদের দাবি, স্যানিটারি প্যাডে এমন কিছু কেমিক্যাল রয়েছে যার ফলে হৃদযন্ত্রের অসুখ হতে পারে, ভবিষ্যতে সন্তান উৎপাদনের সমস্যা দেখা দিতে পারে, ডায়াবেটিস হতে পারে। ঝুঁকিবহুল কেমিক্যালের সংস্পর্শ আসা মা জন্মগত ত্রুটি থাকা সন্তান প্রসব করতে পারেন। এমনকী ক্যানসারের মতো মারণ অসুখ হতে পারে।

[আরও পড়ুন: ৮ লাখের কম রোজগারে সংরক্ষণ অথচ আড়াই লাখে আয়কর কেন? কেন্দ্রকে প্রশ্ন আদালতের]

সংস্থা টক্সিক লিঙ্কের অন্যতম গবেষক ড. অমিত বলেন, “সাধারণত যে স্যানিটারি ন্যাপকিনগুলি ভারতের মহিলারা ব্যবহার করে থাকেন, তাতে অসংখ্য ক্ষতিকারক রাসয়নিক খুঁজে পাওয়ার ঘটনা বাস্তবিক অবাক করা। আমরা কার্সিনোজেন পেয়েছি স্যানিটারি প্যাডে। যা প্রজননের জন্য বিষের সমান। ঋতুস্রাবের বিঘ্ন ঘটাতে পারে এমন পদার্থ পেয়েছি। এছাড়াও অ্যালার্জির সমস্যা বাড়তে পারে এমন একাধিক বিষাক্ত রাসায়নিক মিলেছে জনপ্রিয় স্যানিটারি প্যাডগুলিতে।”

[আরও পড়ুন: দুর্ঘটনার দিন ৩ হাজারের বেশি টিকিট বিক্রি, মোরবি সেতুকাণ্ডে ফের প্রকাশ্যে গাফিলতির তত্ত্ব]

গবেষকরা আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, ভয়ের কথা হল সাধরণ ত্বকের তুলনায় যৌনাঙ্গ অনেক বেশি সংবেদনশীল। তা ত্বকের চেয়ে বেশি হারে রাসায়নিক শোষণ করে থাকে। ফলে মহিলারা ঝুঁকির মধ্যে রয়েছেন বলাই যায়। এখন দেখার গবেষকদের বিস্ফোরক দাবির পর কী ব্যবস্থা সরকার ও স্যানিটারি ন্যাপকিনের সংস্থাগুলি। 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে