BREAKING NEWS

১১ মাঘ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

অনিদ্রা ডেকে আনে ডায়াবেটিস, কীভাবে এড়াবেন বিপদ? জানুন বিশেষজ্ঞের পরামর্শ

Published by: Paramita Paul |    Posted: November 15, 2021 8:09 pm|    Updated: November 15, 2021 8:09 pm

Insomania may casues to Diabetes | Sangbad Pratidin

কম ঘুম বাড়িয়ে দিতে পারে ডায়াবেটিসের সমস্যা। আবার  অনিদ্রার কারণ হতে পারে ডায়াবেটিস।  কীভাবে এড়াবেন অনিদ্রা? পরামর্শ দিলেন এন্ডোক্রিনোলজিস্ট ডা. শুভদীপ প্রামাণিক।

ডায়াবেটিস ও অনিদ্রা দুটি আন্তঃসম্পর্কিত সমস্যা। অনিদ্রা যেমন ডায়াবেটিসের (Diabetes) ঝুঁকি বাড়ায়, তেমনি অপরদিকে ডায়াবেটিস আক্রান্তদের অনিদ্রার সম্ভাবনা বেশি। উচ্চ রক্তশর্করার মাত্র বারবার প্রস্রাবের কারণে ঘুমের ব্যাঘাত ঘটে। অন্যদিকে, ডায়াবেটিক রোগীর হাইপোগ্লাইসেমিয়া (রক্তশর্করা মাত্রাতিরিক্ত কম হওয়া) হলেও বেশি খিদে পায়, ঘাম বেশি হয়, জল তেষ্টা পায় এবং ঘুমের সমস্যা উদ্রেক করে। এছাড়াও ডায়াবেটিস রোগীদের অনিদ্রার আরও কতগুলি কারণ আছে। যেমন- অবস্ট্রাকটিভ স্লিপ অ্যাপনিয়া (যার প্রধান লক্ষণগুলি হল রাতে নাক ডাকা এবং দিনের বেলা ঘুম পাওয়া), রেস্টলেস লেগ সিনড্রোম (রাতে ঘুমের মধ্যে বারবার পা ছোড়া) এবং অতিরিক্ত মানসিক চাপ।

[আরও পড়ুন: করোনার পর এবার নতুন আতঙ্ক নোরো ভাইরাস! জেনে নিন কী কী উপসর্গ]

ঘুম কম হলে শরীরে যে সব স্ট্রেস হরমোন নিঃসৃত হয়, সেগুলি মানুষের ওজন বাড়িয়ে দেয়। এর ফলে ডায়াবেটিস রোগীর নিদ্রার অপ্রতুলতা রক্তশর্করা নিয়ন্ত্রণের অন্তরায় হয়ে দাঁড়ায় এবং নন-ডায়াবেটিক মানুষের অনিদ্রা ডায়াবেটিসের সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেয়। দেখা গিয়েছে, যাঁরা দুশ্চিন্তা বেশি করেন তাঁদের ঘুম আসতে দেরি হয়। আবার যাঁরা মানসিক হতাশার শিকার তাঁদের যথেষ্ট সময়ের আগেই ঘুম ভেঙে যায়। ডায়াবেটিস রোগীর মধ্যে এই দু’ধরনের নিদ্রাজনিত সমস্যার সম্ভাবনাই বেশি। এছাড়া রক্তে আয়রনের অভাব, কিডনির অসুখ আর থাইরয়েডের সমস্যা যদি ডায়াবেটিসের সঙ্গে থাকে তাহলে রেস্টলেস লেগ সিনড্রোমের কারণে অনিদ্রা হতে পারে।

যেসব ডায়াবেটিস রোগী অনিদ্রায় ভোগেন তাঁদের করণীয় কী কী?

  • সর্বপ্রথম নিদ্রার উপযোগী পরিবেশ তৈরি করা প্রয়োজন। বালিশ-বিছানা এবং ঘরের তাপমাত্রা আরামদায়ক হতে হবে।
  • চা-কফি ও অন্যান্য নেশা সন্ধ্যার পর থেকে এড়িয়ে চলুন।
  • সন্ধের পর থেকে টিভি, মোবাইল ও কম্পিউটার ব্যবহার যতটা সম্ভব কম করুন।
  • নির্দিষ্ট সময়ে রোজ ঘুমোতে যান এবং নির্দিষ্ট সময়ে উঠে পড়ুন।
  • যাঁদের ঘুম খুব পাতলা তাঁরা হোয়াইট নয়েজ (White Noise) যেমন পাখার শব্দ বা একটানা এক সুরে বেজে চলা বাজনার শব্দের সাহায্য নিতে পারেন।
  • নিয়মিত শরীরচর্চা, খাদ্যাভ্যাসের পরিবর্তন এবং বিশেষজ্ঞের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধ খাওয়ার মাধ্যমে রক্তশর্করা যেমন নিয়ন্ত্রণে থাকে, ওজনও তেমন স্বাভাবিক থাকে যা ভালো ঘুমের জন্য দরকারি।

 

[আরও পড়ুন: সাবধান! ডায়াবেটিসের বিপদ আসন্ন, সুগার টেস্ট নিয়ে বিপজ্জনক তথ্য সাম্প্রতিক গবেষণায়]

প্রধানত তিন ধরনের ওষুধ অনিদ্রার চিকিৎসার জন্য দেওয়া হয় যথা হরমোন-জাতীয় ওষুধ(Melatonin), মন শান্ত করার ওষুধ (Tranquilizer) এবং হতাশা-দুশ্চিন্তা দূর করার ওষুধ (Anxiolytic -Antidepressant)। কিন্তু বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া এগুলি নিজে
নিজে কিনে সেবন করা উচিত নয়। যদি জীবনশৈলীর পরিবর্তন করে ঘুমের সমস্যা দূর না হয়, অবিলম্বে চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে