BREAKING NEWS

২৯ শ্রাবণ  ১৪২৭  শনিবার ১৫ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

ঘরে বসেই বাড়ছে ওজন? সুস্থ থাকতে হেঁটে বেড়ান বাড়িতেই

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: May 3, 2020 7:46 pm|    Updated: May 3, 2020 10:04 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লকডাউনে বাড়িতে বসেই মেদ বাড়ছে? ওয়ার্ক ফর্ম হোমে ঠায় বসে এক জায়গায়? বাইরে বেরতে না পেরে বুঝতে পারছেন না তো কী করে মেদ কমাবেন। তাহলে বদল আনুন আপনার খাবারের তালিকায়। নিয়ম করে শুরু করুন এক্সারসাইজ।

লকডাউনেরক জেরে প্রায় দেড় মাসের উপরে বাড়ি বন্দি সকলে। কেউ আবার সকাল থেকে উঠেই বসে পড়ছেন কাজে। ওয়ার্ক ফর্ম হোমের ঠেলায় শিকেয় উঠেছে শরীরিক সুস্থতা। সকালে উঠে যেখানে কাজ করতে বসছেন সেখানে বসেই চলছে রাত অবধি কাজ। নাওয়া-খাওয়া ছাড়া ফুরসত নেই ল্যাপটপটিকে কোল থেকে নামাবার। খেতে বসলেও সেখানে গিয়ে বসে থাকতে হচ্ছে। ফলে লকডাউনের জেরে বাজার-হাট করা, ট্রামে-বাসে গুঁতোগুঁতি করে যাওয়া, মেট্রোর সঙ্গে তাল মিলিয়ে দৌড় সবই এখন অদূর ভবিষ্যতে। তবে নিজেকে সুস্থ রাখতে হলে বাড়িতে থাকতেই শুরু করুন যোগ ব্যায়াম বা বড় বাড়ি হলে বাড়ির ছাদেই শুরু করুন হাঁটাহাঁটি।

staircast

বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রতিটি ব্যক্তির সুস্থ থাকার জন্য ডায়েটের সঙ্গে সঙ্গে প্রয়োজেন যোগাব্যয়াম। শরীরের মেদ ঝড়াতে ঘড়ি ধরে হাঁটলেও ক্যালরি পুড়বে যথেষ্ট। তবে লকডাউনের মধ্যে নিয়ম মেনে রাস্তায় বেরিয়ে হাঁটতে না পারলেও চিকিৎসকদের পরামর্শ- দুপুরে ও রাতে খাবার পর অবশ্যই কিছুক্ষণ ট্রেডমিলে হেঁটে নিন। তাতে হজম শক্তি যেমন বাড়বে তেমনই মেদও ঝড়বে। ফলে সঠিক মাত্রায় বজায় থাকবে সুগারও। তবে ক্রমেই বাড়িয়ে তুলতে পারেন হাঁটার সময়। প্রথম ১৫ মিনিট পরে তা ঘণ্টাখানেকে পরিণত করুন। তবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে কাউকে সঙ্গে না নিয়ে হাঁটুন একাই। প্রয়োজনে পছন্দের গানকে সঙ্গী বানিয়ে ফেলুন। বাড়িতে বড় জায়গা বা ছাদ না থাকলেও সমস্যা নেই বসার ঘরেই হেঁটে বেড়ান বা ঘরের সিড়িতে বার বার ওঠা-নামা করুন তাতে সম্ভাবনা রয়েছেন ওজন কমে যাওয়ার। হাঁটা ছাড়াও কিছু বিশেষ ব্যায়ামের সাহায্যেও ওজন কমানো যায়। আর খুব বেশি মন খারাপ হলে পিকে সিনেমার স্টাইলে মজার গানে নাচের অনুশীলন করতে পারেন। এতে মনও খুশি থাকবে আর শরীরও।

music

[আরও পড়ুন:‘পরিযায়ী শ্রমিকদের ট্রেন ভাড়া মেটাতে নারাজ কেন্দ্র’, ‘লজ্জাজনক’ সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ বিরোধীরা]

তবে বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ বেশি থাকায় কখনই শরীর খারাপ থাকলে হাঁটার প্রয়োজন নেই। নিজের শরীরের পরিস্থিতি বুঝে যোগব্যায়াম করা বা হাঁটা আবশ্যিক। ডি-হাইড্রেশনের সমস্যা থাকলে হাঁটার প্রয়োজন নেই। তবে ওজন হ্রাস করার প্রধান উপায় হল- সঠিক মাত্রায় রাতের ঘুম ও চিন্তা মুক্ত থাকা। চিকিৎসকদের মতে অনেক সময় অনিদ্রা ও অতিরিক্ত দুশ্চিন্তার থেকেও মেদ বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই লকডাউনের মত কঠিন পরিস্থিতিতে নিজেকে সুস্থ রাখতে বর্তমান পরিস্থিতি মানিয়ে নিয়ে হাসিখুসি থাকলেই ঝরেঝরে হয়ে উঠতে পারেন আপনিও।

[আরও পড়ুন:চিকিৎসকের হাতযশ, করোনাকে কুপোকাত করে যুদ্ধজয়ী ১২ দিনের শিশু]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement