BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

সমালোচনা উড়িয়ে করোনা ভ্যাকসিনের উৎপাদন শুরু করে দিল রাশিয়া, দাবি সূত্রের

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: August 16, 2020 2:39 pm|    Updated: August 17, 2020 11:39 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বহু মানুষ প্রশ্ন তুলেছে। সরকারি স্বীকৃতি দেয়নি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)। কিন্তু সেসবে পরোয়া নেই রাশিয়ার। নিন্দুকের মুখে ছাই দিয়ে করোনা ভ্যাকসিনের উৎপাদন শুরু করে দিল পুতিনের দেশ। মস্কোর তরফ থেকে জানানো হয়েছে, প্রথম ব্যাচের এই টিকা দেওয়া হবে চিকিৎসকদের। তারপর ধীরে ধীরে রাশিয়ার সব নাগরিককে এই ভ্যাকসিন দেওয়া হবে।

স্পুটনিক-ভি (Sputnik V) । রাশিয়ার দাবি অনুযায়ী এটিই পৃথিবীর প্রথম কার্যকরী করোনা ভ্যাকসিন। খোদ রাশিয়ার রাষ্ট্রনায়ক ভ্লাদিমির পুতিন (Vladimir Putin) সাংবাদিক বৈঠক করে দাবি করেছেন, তাঁদের তৈরি ভ্যাকসিন করোনার (Corona) বিরুদ্ধে লড়াইয়ে উপযোগী এবং এর তেমন কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই।কিন্তু পুতিনের সেই দাবি মানতে নারাজ বিশ্বের অনেক দেশই। তাঁদের প্রধান অভিযোগ, রাশিয়ার এই করোনা ভ্যাকসিন এখনও মানব ট্রায়ালের সমস্ত ধাপ উত্তীর্ণ হয়নি। তাই এর কার্যকারিতা সংশয়াতীত নয়। এমনকী বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও জানিয়েছে, রাশিয়ার টিকাকে এখনই স্বীকৃতি দেওয়া সম্ভব নয়। কারণ, রাশিয়ার ভ্যাকসিন স্পুটনিক-ভি এখনও চূড়ান্ত পর্যায়ের ট্রায়ালে অংশই নেয়নি। বস্তুত তাঁদের কাছে চূড়ান্ত পর্যায়ের ট্রায়ালে অংশ নেওয়া যে ৯ টি ভ্যাকসিনের তালিকা আছে, তাতে নামই নেই রাশিয়ার ভ্যাকসিনটির।

[আরও পড়ুন: রুশ টিকায় বেনিয়ম, পুতিনের অস্বস্তি বাড়িয়ে ইস্তফা স্বাস্থ্যমন্ত্রকের চিকিৎসকের]

কিন্তু সেসব প্রশ্ন তুড়িতে উড়িয়ে দিয়েছে রাশিয়া (Russia)। তাঁদের দাবি, সেদেশে তৈরি ভ্যাকসিন যথেষ্ট পরীক্ষিত এবং কার্যকারী। এর উপযোগিতা নিয়ে তারাই সন্দেহ প্রকাশ করছে, যারা ভ্যাকসিন তৈরির প্রতিযোগিতায় হঠাৎ করে পিছিয়ে পড়েছে। মস্কোর তরফে আগেই ইঙ্গিত মিলেছিল সমালোচনার তোয়াক্কা না করেই ভ্যাকসিন তাঁরা বাজারে আনবে। এবং সেইমতোই কাজ শুরু হয়ে গেল। রাশিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে,”প্রথম দফায় বেশ কিছু করোনার ভ্যাকসিন উৎপাদন করা হয়ে গিয়েছে।” সেপ্টেম্বর থেকে এটি গণহারে তৈরি হবে। প্রথমে এই টিকা দেওয়া হবে রাশিয়ার ফ্রন্টলাইন করোনা যোদ্ধাদের। তারপর ধীরে ধীরে সাধারণ নাগরিকরাও পাবেন। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement