BREAKING NEWS

২০ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  বুধবার ৩ জুন ২০২০ 

Advertisement

দীর্ঘদিন মাথার পরচুলা না খোলায় জানেন কী হল এই যুবকের?

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 31, 2017 4:01 pm|    Updated: October 7, 2019 1:04 pm

An Images

সুলয়া সিংহ: মাথায় চুল না থাকায় হীনমন্যতায় ভোগেন অনেকেই। নতুন চুল গজাতে অনেকেই অনেক পন্থা নেন। কেউ টিভি চ্যানেলের সস্তা বিজ্ঞাপন দেখে বাজার থেকে কিনে আনেন নানা ধরনের ওষুধ, জরিবুটি। তো কেউ আবার টাক ঢাকতে পরচুলার আশ্রয় নেন। অনেকের মতে, মাথার চুল থাকলে আত্মবিশ্বাস বাড়ে। স্বল্প বয়সে অল্প চুল নিয়ে হতাশ অনেকেই। আত্মবিশ্বাস বাড়াতে গিয়ে এমনই পরচুলার আড়ালে টাক ঢাকেন। তবে তাতে যে কতবড় সর্বনাশ নেমে আসতে পারে তা বোধহয় কল্পনাও করা যায় না।

[শরীরে সোডিয়াম-পটাশিয়াম কম? নিজেকে ঠিক রাখবেন কীভাবে?]

টানা পরচুলা ব্যবহার করে মর্মান্তিক পরিণতি হল সব্যসাচী চট্টোপাধ্যায় নামে এক ব্যক্তির। সামান্য একটা পরচুলা যে তাঁর এমন সর্বনাশ করে ছাড়বে, তা হয়তো তিনি নিজেও ভাবেননি। বছর আষ্টেক আগের কথা। নানা ধরনের কেমিক্যাল-মিশ্রিত শ্যাম্পু ব্যবহার করে অল্প বয়সেই মাথার চুলকে বিদায় জানিয়েছিলেন কলকাতার বাসিন্দা সব্যসাচী। কিন্তু চুলের সঙ্গে একটু একটু করে কমতে শুরু করেছিল আত্মবিশ্বাসও। বন্ধু, সহকর্মীদের টিটকিরি-ঠাট্টা আর যেন সহ্য হচ্ছিল না। তাই ঠিক করে ফেলেন, পরচুলা লাগিয়ে সব সমস্যা মিটিয়ে ফেলবেন। যেমন ভাবনা তেমন কাজ। তবে এ পরচুলা যেমন তেমনভাবে খোলা বা পরা যায় না। রীতিমতো হেয়ার সেন্টারে গিয়ে আঠা দিয়ে লাগাতে হয়। যাতে এক ঝলকে কেউ ধরতেই না পারে যে এই চুল আসল নয়। মাসে একবার কী দু’বার পরচুলা খুলে শ্যাম্পু করে ফের পরে ফেলতেন। এইভাবেই দীর্ঘ আট বছর কাটিয়ে দিয়েছিলেন সংবাদমাধ্যমের ওই কর্মী। কিন্তু গত তিন চার মাসেই ঘটে যত বিপত্তি।

[ফেসবুকে দামি গাড়ি, গয়নার ছবি পোস্ট করেছেন? সর্বনাশ!]

সব্যসাচী জানাচ্ছেন, গত তিন-চার মাস ধরে খুব মাথা চুলকাচ্ছিল তাঁর। দেখেন, পরচুলায় উকুন জাতীয় পোকা বাসা বেঁধেছে। এবং ব্যাপকভাবে তা ছড়িয়ে পড়েছে। এমনকী বাইরেও বেরিয়ে আসছে। শ্যাম্পু করে ফের সেই পরচুলাই মাথায় চাপান। তাতেও লাভ হয়নি। ঘুরেফিরে সেই পরচুলাতেই সংসার পাতে পোকারা। আর গত সপ্তাহে যখন তা খুললেন, তখন আঁতকে উঠলেন সব্যসাচীর পরিবারের লোকেরা। লক্ষ লক্ষ পোকা বেরিয়ে আসছে। গোটা স্কাল্পে লালচে গোল গোল ছোপ পড়ে গিয়েছে। আর ভীষণ চুলকানি হচ্ছে। চিকিৎসক জানান, পরচুলায় বাসা বাঁধা পোকা আর আঠা থেকে গোটা মাথায় ইনফেকশন হয়ে গিয়েছে। যে কারণে পরচুলা পরতে সম্পূর্ণ বারণ করে দেন চিকিৎসক। গত সাত দিন ধরে তাই কেশহীন সব্যসাচী। কিন্তু মজার বিষয় কী জানেন? এসবের পরও সব্যসাচীর ইচ্ছা, তিনি ফের পরচুলা পরবেন। আপাতত টাক ঢাকতে টুপির আশ্রয় নেওয়া ভদ্রলোক বলছেন, “পরতে তো হবেই। নাহলে দেখতে যে ভাল লাগে না।”

সব্যসাচীর এই ঘটনা কিন্তু অশনিসংকেত। যদি টাক ঢাকতে আপনিও পরচুলা ব্যবহার করে থাকেন, তবে এই ফলাফল কিন্তু আপনার ক্ষেত্রেও হতে পারে।এই ঘটনা আপনাকে বড়জোর সাবধান করে দিতে পারে, বাকিটা অবশ্যই ব্যক্তিগত।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement