১৯ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  শুক্রবার ৬ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

ফ্যাশন বিষয়ক নানা কিছু। কখনও ট্রেন্ড, কখনও কোনও পোশাকের কথা, আবার কখনও ফ্যাশন দুনিয়ায় ঘটে যাওয়া কোনও খবরাখবর নিয়ে এই কলাম। আজকে রইল বর্ষার এ টু জেড।

গুটিগুটি পায়ে অবশেষে বর্ষা হাজির বঙ্গে। কারও কাছে এই মরশুম দারুণ রোম্যান্টিক, আবার কারও চক্ষুশূল। এহেন ঋতুর সবচেয়ে বড় সমস্যা পোশাক। কী পরলে এক থেকে তিন-চারেক পশলা বৃষ্টি আরামসে মোকাবিলা করতে পারবেন, তারই খোঁজ রইল এবার। দেখে নিন বর্ষায় কি পরবেন আর কী ওয়ার্ড্রোবে তুলে রাখবেন। 

বাতিল করুন
বর্ষাকালে সবচেয়ে প্রথম জিনস, কুড্রয়, সোয়েড, ভেলভেট- এই জাতীয় মেটিরিয়াল থেকে নিজেকে দূরে রাখুন। এই প্রতিটা কাপড় জল শুষে নেয় এবং তা থেকে জল ঝরতে সময় লাগে বহুক্ষণ।

কোন মেটিরিয়াল পরবেন

শিফন, রেয়ন, জর্জেট, লিনেন জাতীয় মেটিরিয়ালের পোশাক পরুন। শাড়ির ক্ষেত্রেও একই নিয়ম প্রযোজ্য। হালকা সিল্কও চলতে পারে।

[আরও পড়ুন:  অন্তর্বাস সংস্থার মালকিন সানি লিওনে, জেনে নিন স্টোরের হালহকিকত]

পোশাক-আসাক
পশ্চিমি পোশাকে যাঁরা স্বচ্ছন্দ, তাঁরা বর্ষায় বেছে নিন ড্রস্টিং ড্রেস, র‌্যাপ ড্রেস, মিডি ড্রেস। রোজকার কলেজ বা অফিসে পরুন শার্ট ড্রেস, টি-শার্ট ড্রেস। এতে পায়ের দিকে জল লেগে পোশাক ভিজে যাওয়া থেকে মুক্তি পাবেন। সঙ্গে হাওয়া-বাতাস খ্যালে এমন পোশাক শুকিয়ে যায় ঝটপট। অফিসে ড্রেস পরে যেতে দ্বিধা থাকলে বর্ষায় আপনার বেস্ট বেট কো-অর্ডস, স্কার্ট-টপ, টপ-প্যান্টস। এ ধরনের কো-অর্ডিনেটস পেয়ে যাবেন নানান ফর্মাল কাট্‌সে। ক্যাজুয়াল লুকের জন্য ক্রপ টপ ও কিউলট কো-অর্ডস পরতে পারেন।

বটম লাইন
পা অবধি লুটানো পোশাক ছেড়ে এই মরশুমে পরুন শর্টস, মিডিয়াম বা শর্ট লেন্থ স্কার্ট, পালাজো, কিউলট, স্লিম ফিট প্যান্টস। যাঁরা বেশির ভাগ দিন কুর্তি পরতে অভ্যস্ত, চুড়ি পা বা লেগিংসের বদলে পরুন অ্যাঙ্কল লেন্থ পালাজো অথবা কিউলট। ডাংগ্রি বা জাম্পসু্যট ও প্লেস্যুট এই মরশুমে উপযোগী।

নো মিনস নো
বডি হাগিং পোশাক এ সময় এড়িয়ে চলুন। বৃষ্টিতে যদি কোনওভাবে ভিজে যান, টাইট পোশাকে আপনার অস্বস্তির পারদ তরতরিয়ে বেড়ে যাবে- একথা গ্যারান্টিড। বদলে ঢিলেঢোলা, স্লিভলেস অথবা ঢিলে হাতার পোশাক বাছুন।

প্যালেট মিটার
বর্ষার স্যাঁস্যাঁতে মেঘলা আবহাওয়ার জন্য উজ্জ্বল রঙের পোশাক বেছে নিন। একরঙা টিল ব্লু, অরেঞ্জ, ইয়েলো, সবুজের ভিন্ন শেড, আইভরি হোয়াইট, গোলাপি, আশমানি নীল- এ ধরনের রঙের সঙ্গে বটমওয়্যার পরুন কনট্রাস্ট কোনও রঙের। যেমন, কমলার সঙ্গে অ্যাশ, হলুদের সঙ্গে লাইট পিচ, টিল ব্লু-র সঙ্গে নেভি ব্লু টিম আপ করতে পারেন। তবে সাদা রঙের বটমওয়্যার জল-কাদায় না পরাই ভাল।

[আরও পড়ুন: পশ্চিমি পোশাকে ভারতীয় ছোঁয়া, আধুনিকাদের মন ভোলাচ্ছে খাদি-ইক্কত ]

অ্যাকসেসরিজ
১) জল শুষে নেয় এমন জুতোর বদলে ওয়াটারপ্রুফ জুতো পরুন। এখন বহু অনলাইন সাইটে মিলছে সিলিকনের তৈরি শু কভার। যাদের রোজ কাজেকর্মে চামড়ার জুতো পরতেই হয় তাঁরা অনায়াসে এই শু কভার ব্যবহার করে দেখতে পারেন। পরিবর্তে ফ্লিপফ্লপ, জেলি শু, গাম বুট্‌স তো রয়েইছে।


২) বোরিং রেনকোট এখন বাজারে এসে গিয়েছে নতুন মোড়কে। উন্নতমানের পিভিসি মেটিরিয়াল দিয়ে তৈরি এ রেনকোট একেবারে ট্রান্সপারেন্ট। কোনও কোনও রেনকোটে থাকছে নজরকাড়া প্রিন্ট। অনেক সাইটে ড্রেঞ্চ কোট বা রেন জ্যাকেট নামেও বিক্রি হচ্ছে রেনকোট।
৩) আর্টিফিশিয়াল মেটাল জুয়েলারি, টেক্সটাইল জুয়েলারির বদলে সোনা, রুপো, তামা অথবা হিরের ছোট স্টাড পরুন। দামি গয়না না পরতে চাইলে গ্লাস বিড্‌স ভাল অপশন।
৪) জিপার অর্থাৎ চেন রয়েছে এমন ব্যাগ ব্যবহার করুন। ব্যাগের ভিতরে পলিয়েস্টার লাইনিং অথবা ব্যাগ যাতে ওয়াটারপ্রুফ মেটিরিয়ালের তৈরি হয়, তা দেখে নিন।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং